Bonsai-will-win-Digital-Wells-Challenge 

 ‘ডিজিটাল খিচুড়ি চ্যালেঞ্জ’ প্রতিযোগিতায় জয় লাভ করেছে বনসাই নামে একটি দল। ৩০ অক্টোবর রাজধানীস্থ আইসিটি টাওয়ারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।


এছাড়া এই প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয়েছে ‘জাগরণ’, দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে ‘সে তারা’।

বিশেষজ্ঞদের সহযোগিতায় ও নির্দেশনায় বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য বিজয়ী এই তিনটি দল পাবে ৫ হাজার ইউএস ডলার। এ ছাড়া দলগুলো আইসিটি ডিভিশন কারওয়ান বাজারের জনতা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে কো-ওয়ার্কিং স্পেস বরাদ্দ পাবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলগুলো আমাদের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড অন্ট্রাপ্রেনিওরশিপ একাডেমি আইডিয়াতে অংশ নিতে পারবে। আমরা আইডিয়া প্রকল্পের আওতায় মিনিমাম ভায়েবল প্রোডাক্টকে ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত বরাদ্দ দিচ্ছি।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল খিচুড়ি চ্যালেঞ্জ হলো ইউএনডিপি এর আয়োজনে এবং আইসিটি ডিভিশন বাংলাদেশ, ফেসবুক ও মাইক্রোসফটের সহযোগিতায় তিনদিনের একটি আইডিয়া ল্যাব। তিন দিনের এই ইভেন্টে ৩০ জন প্রতিযোগী ৬টি দলে বিভক্ত হয়ে একে অপরের সহযোগিতার মাধ্যমে তাদের প্রাথমিক পরিকল্পনাগুলো উন্নয়নে কাজ করেছে। সামাজিক শান্তি ও বৈচিত্রে প্রভাব বিস্তার করে এমন সমস্যাগুলো চিহ্নিত করা এবং সেগুলোর কার্যকর সমাধান বের করাই এবারের চ্যালেঞ্জ ছিল।

4100-mAh-battery-is-open-with-the-Nokia-2 


 নানা ফাঁস হওয়া তথ্য ও ছবির পর আনুষ্ঠানিকভাবে নোকিয়া ২ স্মার্টফোনের ঘোষণা দিল এইচএমডি গ্লোবাল। ডিভাইসটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৯৯ ইউরো যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯৬০০ টাকার মতো। এইচএমডি গ্লোবালের দাবি, এই ফোনের ৪ হাজার ১০০ এমএএইচ ব্যাটারি টানা দুইদিন ব্যাকআপ দিবে।


৫ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লের এই ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ২১২ এসওসি। ছবি তোলার জন্য ফোনটিতে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল মূল ক্যামেরা সাথে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ফোনটি যদি গ্রাহক দিনে ৫ ঘন্টা করে ব্যবহার করে তাহলে টানা দুইদিন চার্জ থাকবে এতে। ১ জিবি র‍্যামসহ মোবাইলটিতে রয়েছে ৮ জিবি মেমোরি। তবে মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে তা বাড়ানো যাবে।

অ্যান্ড্রয়েড ন্যুগাট অপারেটিং সিস্টেমে চলা এই ফোনে সর্বশেষ ওরিও হালনাগাদ পাওয়া যাবে। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে কপার, ব্ল্যাক এবং হোয়াইট রঙের সংস্করণে নোকিয়া ২ ফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে।

 IPhone-8-starts-in-Bangladesh

বাংলাদেশের বাজারে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে আইফোন-৮। আগামী ২ নভেম্বর থেকে ঢাকাসহ সারাদেশের অনুমোদিত ডিলারের কাছ থেকে আইফোন-৮ ও আইফোন-৮ প্লাস কেনার সুযোগ পাচ্ছেন ক্রেতা।


বৃহস্পতিবার (অক্টোবর ৩১)  রাজধানীর গুলশানে অ্যাপেল ব্র্যান্ড আইফোনের অনুমোদিত ডিলার কম্পিউস্টার প্রাইভেট লিমিটেডের (সিপিএল) কার্যালয়ে আইফোন-৮ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সিপিএল’র চেয়ারম্যান রাকিবুল কবির, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কর্নেল (অব.) মোহাম্মাদ আকবর হোসেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজেশ ভিমসারিয়া প্রমুখ।

রাকিবুল কবির বলেন, আইফোন-৮ গত ২৭ অক্টোবর থেকে প্রি-অর্ডার পাওয়া শুরু হয়েছে।  বর্ণিল তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে এই স্মার্টফোন। ফোনটিতে থাকছে রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে, এ-১১ বায়োনিক চিপ, সিঙ্গেল ও ডুয়েল ক্যামেরা। অনুমোদিত ডিলার থেকে আইফোন কিনলে ক্রেতা মোবাইল অপারেটদের কাছ থেকে ইন্টারনেট ব্যান্ডেল অফার, ৩৬ মাসের ইএমই সুবিধা, এক বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টিসহ সঠিক পণ্যটি পাবেন।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালে অ্যাপেল কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করে বাংলাদেশে আইফোনের বাজারজাত শুরু হয়। সে সময় অ্যাপেল কোম্পানি বাংলাদেশে আইফোন বিক্রি হবে  কি-না সন্দেহ প্রকাশ করেছিলো। কিন্তু প্রথম বছরে ১ হাজার ৫০টি আইফোন বিক্রি হয়। ২০১৫  সালে ৯ হাজার ৭শ’ ৮৯টি, ২০১৬-তে ১৬ হাজার ৩শ’ ৪৩টি আইফোন বিক্রি করা হয়। বিক্রির পরিমাণ দেখে অ্যাপেল বাংলাদেশে আইফোনের ব্যবসা বাড়ানোর ব্যাপারে সিরিয়াস হয়েছে।

নকল এড়াতে অনুমোদিত ডিলারের কাছ থেকে আইফোন কেনার আহ্বান জানিয়ে রাকিবুল বলেন, বাজারে দেখতে হুবহু নকল আইফোন পাওয়া যাচ্ছে। নকল এড়ানোর জন্য ক্রেতাদের অনুমোদিত ডিলারের কাছ থেকে আইফোন কিনার অনুরোধ জানান তিনি।

এছাড়া একজন ক্রেতা www.compustarltd.com -এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফোনটির আইএমইআই নম্বর চেক করে নিতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা চাই না কেউ নতুন ফোনের মূল্য দিয়ে নকল অথবা পুরোনো ফোন কিনুক। মোটা অংকের টাকা খরচ করে সর্বাধুনিক মোবাইল ফোনটি কিনছেন, এজন্য নিশ্চিত হোন, প্রত্যারিত হচ্ছেন কি-না।

 

শীত মানেই নানা রকম সবজির সমাহার। আর এই সময়টাতে সবজির স্বাদ থাকে অনেক বেশি। বিশেষ করে ফুলকপির স্বাদ হয়ে থাকে অসাধারণ। ফুলকপি দিয়ে অনেক রকম খাবার তৈরি করা যায়। তবে শীতের বিকেলে গরম গরম ফুলকপির স্যুপের স্বাদের কোনো তুলনা হয় না। আসুন তাহলে জেনে নেই খুব সহজেই কীভাবে তৈরি করা যায় ফুলকপির স্যুপ।


উপকরণ

:

ফুলকপির ডাটা ২ কাপ

লবণ ২ চা-চামচ

এরারুট ১ টেবিল-চামচ

ডিম ১টি

গোলমরিচ সামান্য

সয়াসস ২ চা-চামচ

সিরকা ১ টেবিল-চামচ (আপনি চাইলে সিরকার বদলে লেবুর রস দিতে পারেন। লেবুর রস বেশি টেস্টি এবং হেলদি)

প্রনালি:


প্রথমে কপি থেকে ফুল আলাদা করুন। ডাটাগুলো লম্বা করে কাটুন। কপির ফুল ছাড়া যে অংশগুলো থাকে তার সবই ধুয়ে কেটে নিন। কাটা অংশ যে পরিমাণ হবে তার ৫-৬ গুণ পানি দিয়ে ফুলগুলোসহ সেদ্ধ করুন। লবণ দিন। ফুলকপি সিদ্ধ হলে এরারুট গুলে দিন। ডিম, লবণ ও গোলমরিচ একসঙ্গে ফেটে সুপে আস্তে আস্তে দিয়ে নাড়তে থাকুন। ডিম দেয়া শেষ হলে সুপ নামিয়ে সয়াসস দিন। সিরকা বা সাদা সিরকা, অথবা লেবুর রস মেশান। কিছু ক্ষন নেড়েচেড়ে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

বিঃদ্রঃ ‘টেস্টিং সল্ট’ দিলে স্যুপ বা যেকোনো খাবারে স্বাদ অনেক বেড়ে। তবে এটা মানব দেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর একটি উপাদান। তাই খাবারে এটা ব্যবহার না করাই ভালো। 

Easy-recipe-for-instant-biryani-cooking 

বিরিয়ানি খেতে ভালোবাসেন না এমন লোক খুব কমই আছে। কিন্তু অনেকেই আছেন যারা, সময় এবং রান্নার ঝামেলার কারণে বিরিয়ানি রান্নাটা এড়িয়ে চলেন। কারণ এই ব্যস্ত জীবনে কার কাছে এতটা সময় আছে কঠিন কিছু রাঁধার? কিন্তু তাই বলে ভালো খাবার খাওয়া হবে না? নিশ্চয়ই হবে। চলুন জেনে নেই ঝটপট বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি।


উপকরণ:


– গরুর মাংস বা খাসির মাংস ২ কেজি
– পোলাওর চাল ১ কেজি
– তেল পরিমাণ মত
– পেঁয়াজকুচি ৩ কাপ
– পেঁয়াজ বাটা ১কাপ
– কাঁচা মরিচ ১৪/১৫টি
– আলু বোখারা ৪/৫টি
– দারুচিনি ,এলাচি,তেজপাতা
– বড় বড় করে কাটা আলু ,
– বিরিয়ানি মসলা ২ টেবিল চামচ
– আদা বাটা ১ টেবিল চামচ
– রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ
– ধনে গুঁড়ো ও জিরা গুঁড়ো, লাল মরিচ গুঁড়ো ২ চাচামচ করে
– এক কাপ ঘন দুধ (পাউডার দুধ পানিতে
গুলিয়ে নিতে পারেন)

প্রনালি:

-মাংস ধুয়ে নিন।
-এবার প্রেশার কুকারে তেল দারুচিনি, এলাচ, তেজপাতা, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ ও পেঁয়াজ বাটা এককাপ, আদাবাটা, রসুন বাটা, ধনে গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো, লবণ, ২চা চামচ লাল মরিচ গুঁড়ো, বিরিয়ানি মশলা সব দিয়ে মাখিয়ে প্রেসার কুকারে রান্না করুন।

-এরপর আলুগুলো দিয়ে দিন। ঝোল মাখা মাখা হলে নামিয়ে রাখুন।
-এবার অন্য হাঁড়িতে তেল বাকিটা দিন।

-এককাপ পেঁয়াজ কুচি, দারুচিনি, এলাচ, তেজপাতা চাল দিয়ে ভাল করে ভেজে আদাবাটা ও রান্নাকরা মাংস ও বিরিয়ানি মশল্লা মিশিয়ে পরিমাণ মত গরম পানি দিয়ে ঢাকনা দিয়ে দিন। প্রেসার কুক করতে চাইলে একটা সিটি দিয়েই নামিয়ে ফেলবেন।

-চুলায় করলে পানি কমে এলে চুলার আচঁ কমিয়ে দিন কাচাঁ মরিচ, আলু বোখারা ও দুধ দিয়ে দিন। প্রেসার কুকারে সব আগেই দিয়ে দেবেন। এক সিটি দিয়ে কুকার বণ্ড করে রাখুন ১৫ মিনিট। এটাই দম দেয়ার কাজ করবে।
-ঝরঝরে হয়ে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন ঝটপট বিরিয়ানি।

 Kailash-kher-went-to-commit-suicide

আল্লাহ কে বন্দে’ বা ‘তেরি দিওয়ানি’—  এ গানগুলো শ্রোতাদের অন্যরকম অনুভূতি দেয়। অথচ এগুলো নাকি শ্রোতাদের কানেই পৌঁছাতো না।  এমন বলার কারণ, গানের গায়ক কৈলাশ খের অজানা এক তথ্য দিলেন।


জানালেন, জীবনে একসময় হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। আত্মহত্যা করতে গিয়েছিলেন কৈলাশ!

সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে এ তথ্য দেন গায়ক। বলেন, ‘একটা সময় আর্থিক সমস্যায় পড়েছিলাম আমি। অনেক ক্ষতি হয়েছিল আমার। প্রায় এক বছর অবসাদগ্রস্ত ছিলাম। সে সময় জীবন শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আত্মহত্যা করব বলে নদীতে ঝাঁপও দিয়েছিলাম। কিন্তু আমার এক বন্ধু বাঁচিয়ে দিয়েছিল।’

শুধু গান নিয়ে ব্যস্ত থাকেননি এ শিল্পী। ব্যবসাতেও যুক্ত হয়েছেন। তবে বলিউডে সুযোগ পাওয়ার পরে আর ফিরে তাকাতে হয়নি। সমাদৃত হয়েছেন তিনি।

১৬ বছরের সফল জার্নি করা কৈলাশের মন্তব্য, ‘আজ যদি সে দিনের ছেলেটার সঙ্গে আমার দেখা হত, আমি ওকে আত্মহত্যা করতে যাওয়া থেকে আটকাতাম।’

Banglalink-is-coming-with-iPhone-8-and-iPhone-8-plus 

আগামী ২রা নভেম্বর বাংলালিংক নিয়ে আসছে নতুন প্রজন্মের অ্যাপল এর আইফোন ৮ এবং আইফোন ৮ প্লাসসহ অন্যান্য নতুন পণ্য। ইতিমধ্যে গত ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৭থেকেগ্রাহকরা বাংলালিংক স্টোরে এবং বাংলালিংকের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আইফোন ৮ এবং আইফোন ৮ প্লাস প্রি-অর্ডার শুরু করেছেন।


বাংলালিংক ওয়েবসাইট:www.banglalink.net

Alia-fitness-coach-Katrina 

ট্রেনার এসে পৌঁছাননি। বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাটকে তাই জিমে উদ্বুদ্ধ করতে থাকলেন ক্যাটরিনা। সিনিয়র বলে কথা!


ফিটনেস নিয়ে বলিউড অভিনেত্রীদের মধ্যে ক্যাটরিনা একটু বেশিই সচেতন। সুযোগ পেয়ে এ প্রজন্মের নায়িকা আলিয়াকে জিমে গুরুত্বপূর্ণ কিছু পরামর্শ দিলেন তিনি। হয়ে উঠলেন বিকল্প প্রশিক্ষক।

ক্যাটরিনা কাইফের সঙ্গে আলিয়া ভাট
রবিবার (২৯ অক্টোবর) ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন ক্যাটরিনা। এতে দেখা যাচ্ছে, ফিটনেস কোচের ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে নির্দেশনা দিচ্ছেন ৩৪ বছর বয়সী এই তারকা। তার সামনে ঘাম ঝরাচ্ছেন আলিয়া। ১০০ বার ওপর-নিচ হওয়ার পরও তাকে আরও ৩০০ বার তা করার জন্য বলছেন ক্যাট!

জিমে কঠোর প্রশিক্ষক ক্যাটরিনার কাছে ছাড় বলতে যেন কিছু নেই! তার কাছে ব্যায়ামের গুরুত্বই সবার আগে। এক্ষেত্রে মোটেও নমনীয় নন তিনি। এমন কড়া কোচ কেইবা চায়! কিন্তু ২৪ বছর বয়সী আলিয়ার উপায়ও ছিল না!

নিজেদের ট্রেনারের অনুপস্থিতিতে ক্যাটরিনা হয়ে গেলেন আলিয়ার ফিটনেস কোচ। ইনস্টাগ্রামে ওই ভিডিওর ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘ইয়াসমিন করাচিওয়ালা (ট্রেনার) না থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। আলিয়া তোমাকে দিয়ে হবে। ভেবো না, আর মাত্র ৩০০ বার ওপর-নিচ করতে থাকো।’

ক্যাটরিনার ভিডিও পোস্ট করার দুই ঘণ্টা পর জিম প্রশিক্ষক ইয়াসমিন করাচিওয়ালা এতে মজার একটি মন্তব্য করেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমার চাকরিটা খাওয়ার চিন্তা কোরো না!’

এর আগে ভারতের একটি শীর্ষ ম্যাগাজিনকে আলিয়া জানিয়েছেন, ক্যাটরিনা তার প্রিয় অভিনেত্রী। তাই তারা জিমও করেন একই ট্রেনারের তত্ত্বাবধানে।

এদিকে নিজের নতুন ছবি ‘রাজি’র শুটিং শেষ করেছেন আলিয়া। এটি পরিচালনা করেছেন মেঘনা গুলজার। তাকে সবশেষ দেখা গেছে ‘বাদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া’য়। সামনে তিনি শুরু করবেন করণ জোহরের ‘ব্রহ্মাস্ত্র’র শুটিং। এতে তার সহশিল্পী অমিতাভ বচ্চন ও রণবীর কাপুর। পরিচালনা করবেন অয়ন মুখার্জি।

অন্যদিকে ক্যাটরিনা শেষ করেছেন ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’। ২০১২ সালের ছবি ‘এক থা টাইগার’-এর সিক্যুয়েলটিতেও তার বিপরীতে থাকছেন সুপারস্টার সালমান খান। এটি মুক্তি পাবে আগামী ডিসেম্বরে। শাহরুখ খানের সঙ্গে নাম চূড়ান্ত না হওয়া একটি ছবিও আছে তার হাতে।

এছাড়া ক্যাট অভিনয় করছেন ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’-এ। এর মাধ্যমে ‘ধুম থ্রি’র পর আবার আমির খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন তিনি। যশরাজ ফিল্মস প্রযোজিত ছবিটিতে আরও আছেন অমিতাভ বচ্চন ও ফাতিমা সানা শেখ। পরিচালনায় বিজয় কৃষ্ণ আচার্য।

নতুন খবর হলো, পোশাক ব্যবসায় নামছেন ক্যাটরিনা। এর আগে আনুশকা শর্মাসহ বলিউডের কয়েকজন অভিনেত্রী ফ্যাশন, সুগন্ধি কিংবা রেস্তোরাঁ ব্যবসার খাতায় নাম লিখিয়েছেন।

* জিমে ক্যাটরিনা কাইফ ও আলিয়া ভাট:

 
                             স্পেস ওয়াকের সময়ে মহাকাশচারী টিম পিক

ছোটবেলা থেকেই অনেকের স্বপ্ন থাকে মহাকাশচারী হওয়া। একটা সময়ে গিয়ে অবশ্য সবারই জানা হয়ে যায় স্বপ্নের মত এই পেশাটি আসলে কতটা কঠিন! যে কেউ পৃথিবীর গন্ডি পার হতে পারেন না, তার জন্য হতে হয় দারুণ বুদ্ধিমান, বিভিন্ন কাজে দক্ষ, শারীরিক ফিটনেস থাকতে হয় নিখুঁত, হৃদয় হতে হয় ভয়হীন, আর ধৈর্য থাকতে হয় অসীম। এর পাশাপাশি খুব দ্রুত সমস্যার সমাধান করতেও জানতে হয়।


ব্রিটিশ মহাকাশচারী টিম পিক সম্প্রতি তার ফেসবুক ফলোয়ারদেরকে একটি প্রশ্নের উত্তর দিতে আহবান জানান। ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি বা ESA এর মহাকাশচারী হিসেবে তাকে বাছাই করার সময়ে এই প্রশ্ন করা হয়েছিল।

এই প্রশ্নটি আসলে একটি ধাঁধাঁ। মেজর পিকের বই ‘আস্ক অ্যান অ্যাস্ট্রোনট’ বইতে থাকা এই ধাঁধাঁয় বলা হয়, একটি স্কয়ার বা চৌকো বাক্সের নিচে একটি ফোঁটা দেওয়া আছে। কিছু নির্দেশনা মেনে এই বাক্সকে নাড়াচাড়া করার পর এই বাক্সের কোন জায়গায় ফোঁটাটি থাকবে, তা জিজ্ঞেস করা হয় এই প্রশ্নে। বিভিন্ন দিক, দৃষ্টিভঙ্গি এবং নির্দেশনা বুঝতে পারার ওপরে নির্ভর করে আপনি প্রশ্নের উত্তরটি পারবেন কি পারবেন না। দেখুন তো, আপনি পারবেন কিনা এই প্রশ্নের উত্তর-


শুনতে খুব সরল মনে হতে পারে, কিন্তু কমেন্ট সেকশন দেখলে বোঝা যায় এই ধাঁধাঁ আসলে সহজ নয়। ১,৭০০ এরও বেশি মানুষ উত্তর দিয়েছেন। কিন্তু অনেকেই দিয়েছেন ভুল উত্তর, আবার সেই ভুল উত্তরের পক্ষেও যুক্তি দিয়েছেন, যা কিনা ফেসবুকে হয়েই থাকে।

প্রশ্ন করার পরের দিন মেজর পিক এর উত্তরটি জানান। তিনি বলেন, ‘আপনাদের উত্তর পড়তে আমার খুবই ভালো লাগলো. . . আর তাদেরকে অভিনন্দন যারা উত্তরে বলেছেন ফোঁটাটি একদম শেষে কিউবের নিচেই থাকবে।’

Google-can-not-search-other-countries-in-the-name-of-Google 

অনেকেই হয়ত গুগল সার্চে আলদা আলাদা দেশের নাম (গুগল.কম.ইউকে কিংবা জাপানের জন্য গুগল.কম.জেপি) লিখে সার্চ করে থাকেন প্রায়ই। কন্তু আজ থেকে আর ভিন্ন ভিন্ন ডোমেইনে এই সার্চ সুবিধা থাকছে না আপনার জন্য।


গুগল এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে, দেশ ভিত্তিক সার্চ রেজাল্ট পরিবর্তন করা হয়েছে। ফলে অন্য দেশের নাম দিয়ে এখন থেকে আর গুগল সার্চ করা যাবে না।

গুগলের এই নতুন পরিবর্তে গুগল সার্চ করা ব্যবহারকারীর লোকেশনের ভিত্তিতে তাতে সার্চ রেজাল্ট দেখাবে। অর্থাৎ আপনি যদি বাংলাদেশে বসে গুগল.কম.ইউকে কিংবা জাপানের জন্য গুগল.কম.জেপি লেখেন গুগল আপনাকে বাংলাদেশের জন্য সামঞ্জস্যপূর্ণ সার্চ রেজাল্টই দেখাবে আপনাকে।

গুগল বলছে, এমন ডোমেইন পরিবর্তন করে সার্চ করার ফলে স্থানীয় সার্চ ভালো ফলাফল দেখায় না। ডোমেইনে অন্য দেশের সার্চ করে আসলে নিজের ডোমেইনে ভালো ফলাফল দেখানো সম্ভব হয় না। আর এজন্যই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

আর এখন থেকে সবসময় স্থানীয় সার্চ রেজাল্ট পরিবেশন করার নীতি ডেস্কটপ এবং মোবাইল অনুসন্ধানের পাশাপাশি গুগল ম্যাপ এবং আইওএস গুগল অ্যাপ্লিকেশানেও প্রয়োগ করা হবে।

The-first-picture-of-the-underground-tunnel-of-the-Bowring-Company-revealed-the-mask 

 যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জলসে ইলোন মাস্কের বোরিং কোম্পানির জন্য আন্ডারগ্রাউন্ড টানেল তৈরি হচ্ছে। আর ২৯ অক্টোবর মাস্ক ইমেজ শেয়ারের প্ল্যাটফর্ম ইন্সটাগ্রামে এই টানেলের প্রথম ছবি প্রকাশ করেছেন। জানুয়ারি মাসে ক্যালিফোর্নিয়া শহরের নিচ দিয়ে ১.৬ মাইল লম্বা টানেল বানানোর অনুমোদন পায় মাস্কের বোরিং কোম্পানি।


তবে ছবি দেখে কাজ কতদূর এগিয়েছে তা বোঝা সম্ভব হয়নি। তবে ইলোন মাস্ক আশাবাদী এই প্রকল্প শেষ হলে চিরতরে ট্রাফিক জ্যাম নির্মূল করতে পারবে। এর আগে মাস্ক জুলাই মাসে  যানজট এড়াতে গাড়িকে মাটির নিচ দিয়ে চলাতে হলে একটি এলিভেটর বা লিফট প্রয়োজন হবে জানিয়ে তিনি একটি টেসলা গাড়ি দিয়ে এই এলিভেটর ধারণাটি দেখিয়েছেন।

এদিকে মাস্ক এর দেওয়া এক ভবিষ্যৎ প্রযুক্তির ধারণা হাইপারলুপ নামে বায়ুশূন্য একটি নলের ভেতর দিয়ে বিশেষ পডে করে যাত্রী ও মালামাল পাঠানোর ‘হাইপারলুপ’ নামের ধারণা বাস্তবায়িত হলে যোগাযোগ খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে বলেই আশা করা হচ্ছে।

স্পেসএক্স ও টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলোন মাস্ক ২০১৬ সালে বোরিং কোম্পানির ধারণা দেন। রাস্তায় গাড়ির জ্যামে বিরক্ত হয়ে এমন ধারণা টুইট করেছিলেন তিনি। তিনি বলেছিলেন যানজট এড়াতে সুড়ঙ্গ তৈরি করে এর ভেতর দিয়ে গাড়ি না চালিয়ে বরং এটিকে একটি পডের উপর বসান হবে, আর ওই পড চলবে একটি নেটওয়ার্কে।

Asus-router-came-to-market 

বাজারে এলো আসুসের প্যারেন্টাল কন্ট্রোল ও এমইউ মিমোসহ ডুয়েল ব্যান্ড ওয়াইফাই ১৩০০ এমবিপিএস রাউটার। রাউটারটি দেশের বাজারে এনেছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড। রবিবার (২৯ অক্টোবর) গণমাধ্যকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।


সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নতুন এই রাউটার দিয়ে ইন্টারনেট এক্টিভিটিস ফিল্টার করা যাবে। রাউটারটিতে রয়েছে ইউএসবি ২.০ থেকে ১০ গুন বেশি দ্রুত ইউএসবি ৩.০ পোর্ট। রয়েছে পাওয়ারফুল কোয়াড কোর এ৭ প্রোসেসর ও হাই নেটওয়ার্ক স্পীড। ৪টি এক্সটার্নাল এন্টেনারের সাথে রয়েছে ১২৮ এমবি ফ্ল্যাস ও ২৫৬ এমবি র‌্যাম।

এছাড়াও এর বিশেষ ফিচারগুলোর মধ্যে রয়েছে থ্রিজি/ফোরজি ডাটা শেয়ারিং, প্রিন্টার সার্ভার, অপারেটিং মুড, রেঞ্জ এক্সটেন্ডার মুড, ওয়্যারলেস রাউটার মুড, এ্যাক্সেস পয়েন্ট মুড, মিডিয়া ব্রিজ মুড, ভিপিএন ও আইপি/ম্যাক/পোর্ট ফিল্টারিং। রাউটারটির মূল্য ৯০০০ টাকা। বিস্তারিত : ০১৯৬৯৬৩৩০২৭।

 Pink-whale-country

নীল তিমির ভয়ে সাগরে যাব না-তাই কি হয়? সাগরে যাব ঠিকই। মিলব গোলাপি তিমির সঙ্গে। যেখানে তিমির (অন্ধকার) নেই। আছে গোলাপের সৌরভ।


বলছি, পিংক হোয়েল গেমের কথা। প্রযুক্তি সীমানায় আছড়ে পড়া ডিপ ওয়েবের ঢেউকে চ্যালেঞ্জ জানানো এক মহতি উদ্যোগের কথা। এই গেমটি ব্লু-হোয়েলের ঠিক বিপরীত একটি গেম। পিংক হোয়েলে রয়েছে ৫০টি ধাপ। এর প্রতিটি ধাপই ইতিবাচক। এখানে নেই- ‘আর কোনও প্রেম আমার চাই না। আমার মৌনতা ভাঙার চেষ্টা তাই কোরো না; আমাকে বোঝাতেও এসো না। আমি নিজেই তো নিজেকে বুঝি না। যা কিছু বলি, যা কিছু দেখি-জগতে তার সবটা বলার উপায়ও নেই। আর আমি কী চাই-নিজেও কি জানি! কেউ নিঃসঙ্গ হতে চায় না। কিন্তু আমার আর কিছুর দরকার নেই-সেখানে যাওয়া ছাড়া; সেখানে। কেবল তার পরই আমি নিজেকে বুঝতে পারব। এই হচ্ছে আমার চাওয়া, আর কিছু না, কিছু না, কিচ্ছু না’ -এর মতো বিভ্রান্ত সঙ্গীত।

বরং ব্রাজিলীয় ডেভেলপারদের তৈরি গেমটিতে আছে, জীবনের জন্য কল্যাণকর ১০৭টি টাস্ক। গেমের টাস্কে কোনও মৃত্যু ভয় নেই, নেই কোনও জটিলতা। আছে জীবন ও পরিজনদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলার আয়োজন। শেষ রাতে জেগে হরর মুভি দেখা কিংবা ছাদে ঘুরে বেড়ানো নয়; ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম করার কাজ দেয়। চেয়ে পাঠায় দাদা-দাদির সঙ্গে সময় যাপনের আনন্দময় মুহূর্তের ছবি। বলে সুন্দর সুন্দর ছবি আঁকার কথা। হাত কাটা নয়, সেখানে হাতে লিখতে বলা হচ্ছে, আপনি আপনার প্রিয়জনকে কতটা ভালোবাসেন। নিজেকে শেষ করে দেওয়া নয়, পিংক হোয়েল গেম বলছে নিজেকে ভালোবাসার কথা। গেমে গেমে জীবনকে ভালোবাসতে শেখায়।

পিংক হোয়েলের মূল নাম- বালেয়া রোসা। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস  প্ল্যাটফর্মের জন্য তৈরি গেমটি ডাউনলোড করতে প্রয়োজন হবে একটি ই-মেইল ঠিকানা। গেমের শুরুতেই নিজের বিষয়ে কিছু লিখতে হবে। সুন্দর পোশাক পরা ছবি পোস্ট করার নির্দেশনাও রয়েছে এই গেমে। পিংক হোয়েল গেমটি খেলতে গুগলে গিয়ে বালিয়া রোসা (baleiarosa) লিখে সার্চ করতে হবে। অথবা http://baleiarosa.com.br ঠিকানায় যেতে হবে। পতুর্গিজ ভাষা হওয়ায় প্রথমেই একটু হোঁচট খেতে পারেন। গেমটি ইন্সটল করতে এখানে রয়েছে দুইটি অপশন। এর একটি ওয়েব ব্রাউজার এবং অন্যটিতে ছবি আছে। এখান থেকে আপনি কোন ডিভাইসে খেলতে চান তা নির্বাচন করতে হবে। এখান থেকেই আপনি সহজে পেয়ে যাবেন গেম খেলার মূল লিংক।

গেমটি খেলতে প্রথমেই খেলোয়াড়কে এক প্রস্থ সাদা কাগজে লিখতে হবে,  আমি মানসিকভাবে দৃঢ়। আমি চাইলে সবই করতে পারি।’ ৫০ বার লিখতে হবে এই প্রত্যয়ের কথা। ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠে হাটতে হাটতে মৃদু লয়ে উজ্জীবিত লয় শুনতে পারবেন। বেলা ১০টায় কাজের ফাঁকে দরজা খুলে শুনতে হবে প্রাকৃতিক শব্দমালা। প্রকৃতির অপার মহিমায় বেঁচে থাকার এই আনন্দ নিয়ে ভাবতে হবে বারবার। উপভোগ করতে হবে সূর্যাস্ত। নিজের জন্য নিজেই কিছু খাবার তৈরির চেষ্টা করতে হবে। গেম বন্ধুর সঙ্গে ভাগাভাগি করতে হবে নিজের ভালো লাগা-মন্দ লাগা। এভাবেই গেমের শেষ ধাপে যাওয়ার আগে নিজের ওপর নিজের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে। কিউরেটরকে প্রতি ধাপেই এইসব আনন্দময় কাজের ছবি পাঠাতে হবে।

আর গেমার যখন নিজের আত্মশক্তি জয় করে নিজেকে এবং পরিবার-পরিজনকে জয় করতে সম্ভব হবে তখনই তাকে মুকুট দিয়ে প্রস্থান ঘটবে কিউরেটরের। পিংক হোয়েল কর্তৃপক্ষ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এই গেমের সারমর্ম হল ভালোবাসা। ভার্চুয়াল দুনিয়াকে হাতিয়ার করে ব্লু হোয়েল যে মরণখেলায় মেতেছে তা বন্ধ করবে পিংক হোয়েল। এই গেমের পদ্ধতিও ব্লু হোয়েলের মত টাস্ক করতে হবে, কিন্তু সেগুলো হবে নিজেকে ও প্রিয়জনদের ভালোবাসার টাস্ক। এজন্য এর নাম দেওয়া হয়েছে, পিংক হোয়েল চ্যালেঞ্জ- নো সুইসাইড, স্প্রেড অনলি লাভ।

Instant-chicken-nagate 

বিকেলে চায়ের সঙ্গে কি নাস্তা পরিবেশন করা যায় ভাবছেন? মজাদার চিকেন নাগেট বানিয়ে ফেলতে পারেন ঘরেই। টমেটো সসের সঙ্গে সুস্বাদু ও মচমচে নাগেট পছন্দ করবে শিশুরাও। জেনে নিন কীভাবে বানাবেন চিকেন নাগেট।


উপকরণ


মুরগির মাংসের টুকরা- ২৫০ গ্রাম
ব্রেড ক্রাম্ব- আধা কাপ
ডিম- ১টি
লবণ- স্বাদ মতো
তেল- প্রয়োজন মতো
ময়দা- ১/৪ কাপ
পেঁয়াজ- ১টি (কুচি)
রসুন বাটা- আধা চা চামচ
গোলমরিচ গুঁড়া- ১/৪ চা চামচ

প্রস্তুত প্রণালি

একটি পাত্রে মুরগির মাংসের টুকরা। রসুন বাটা, পেঁয়াজ কুচি, গোলমরিচ গুঁড়া ও লবণ একসঙ্গে মাখিয়ে নিন। মিশ্রণটি একঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন।আটি পাত্রে ডিম ফেটিয়ে রাখুন। ফ্রিজ থেকে মাখিয়ে রাখা মিশ্রণ বের করে ছোট ছোট অংশে ভাগ করে ময়দায় গড়িয়ে নিন। এবার ডিমে ডুবিয়ে ব্রেড ক্রাম্বে গড়িয়ে একটি পাত্রে রেখে দিন।

প্যানে তেল গরম করুন। নাগেটগুলো সোনালি করে ভেজে তুলুন। দুইদিক যেন ভালো মতো ভাজা হয় সেদিকে লক্ষ রাখবেন। টমেটো সসের সঙ্গে মচমচে নাগেট পরিবেশন করুন।    

 

 আজকাল পিজ্জা-বার্গার-চিকেন ফ্রাইয়ের ভিড়ে যেন হারিয়েই গেছে বাঙালি হেঁসেলের চিরায়ত খাবারগুলো। যেসব খাবার একটা সময়ে তৈরি হতো ঘরে ঘরে, সেসব সেসব পরিণত হয়েছে শৌখিনতায়। তরুণ প্রজন্মের একটা বড় অংশ যেন চেনেই না সেই খাবারগুলোকে, যেগুলোর পরিচিত স্বাদে কেটেছে আমাদের শৈশব।


তেমনই আরও একটি খাবার বেগুন দিয়ে কেচকি শুঁটকির চচ্চড়ি ।  গরম গরম ভাতের সাথে এই কেচকি শুঁটকির চচ্চড়ি আসলেই ভীষণ মুখরোচক একটি খাবার। তবে হ্যাঁ, সব বেগুনে এই চচ্চড়ি মজাদার হবে না। বড় তাল বেগুন নয়, বরং বেছে নিতে হবে একদম চিকন চিকন দেশি বেগুনগুলো। কুচিয়ে নিতে হবে একটু মোটা করে। তবেই মিলবে স্বাদ, কেচকি আর বেগুন মিলে আপনার হেঁসেলে নিয়ে আসবে দারুণ দেশি আবহ। 

 
 চলুন, সায়মা সুলতানার হেঁসেল হতে জেনে আসি এই মজাদার রেসিপি।

যা লাগবে


কেচকি শুঁটকি ১ কাপ ( ধুয়ে নিয়ে প্যানে হালকা টেলে নেয়া। রান্নার আগে তেলে নিলে শুঁটকির ফ্লেভার বাড়ে। )

ছোট বেগুণ টুকরো করা হাফ কাপ পরিমাণ

রসুন কুচি ১ কাপ ( একটু মোটা করে কুচি করা )

পেঁয়াজ কুচি দেড় কাপ

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ

মরিচ গুঁড়ো ২ চা চামচ ( ঝাল কম খেতে চাইলে কম করে দিতে পারেন)

ধনিয়া গুঁড়ো ১ চা চামচ

তেল ১/৪ কাপ

লবণ স্বাদমত

প্রণালী


-প্রথমে প্যানে তেল দিয়ে এতে পেয়াজ কুচি দিন।

-মিডিয়াম আঁচে পেয়াজ নরম হবার আগ পর্যন্ত রান্না করুন। এখন রশুন কুচি দিয়ে রান্না করুন ৩ থেকে ৪ মিনিট ।

-এখন সব গুঁড়া মশলা দিয়ে নাড়াচাড়া করে অল্প পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন ।

-এবার টেলে রাখা শুঁটকি দিয়ে নাড়াচাড়া করে আরেকটু কষিয়ে নিন ।

-এতে বেগুণ টুকরা , স্বাদ অনুযায়ী লবণ , কয়েকটা কাঁচামরিচ আর ১/৪ কাপ পানি দিয়ে ঢাকনা লাগিয়ে মিডিয়াম আঁচে রান্না করুন আরও ১০ থেকে ১২ মিনি।

-তরকারিতে তেলটা উপরে উঠে এলে নামিয়ে গরম গরম ভাত এর সাথে পরিবেশন করুন এই বেগুন দিয়ে কেচকি শুঁটকি ভুনা !

 

বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের ভক্তের অভাব নেই এখন! কেউ কেউ তার রূপের পূজারি। আবার দারুণ অভিনয়ের জন্য তাকে পছন্দ করেন অনেকে। ভালো মনের মানুষ হিসেবেও তার জনপ্রিয়তা কম নয়।


জনসমক্ষে বরাবরই হাসিখুশি থাকেন জ্যাকুলিন। এই গুণের সুবাদেই সবশ্রেণির গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছেন তিনি। সদা হাস্যোজ্জ্বল এই অভিনেত্রীর নতুন একটি ভিডিও নিয়ে এখন বেশ আলোচনা চলছে। এতেও আছে তার প্রাণচাঞ্চল্য।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি গাছে উঠছেন জ্যাকুলিন। নিজের আগামী ছবি ‘ড্রাইভ’-এর পরিচালক তরুণ মানসুখানির উৎসাহে গাছে চড়েন ৩২ বছর বয়সী এই তারকা। অবশ্য এ কাজে বেশ সতর্ক ছিলেন তিনি।

গাছে উঠতে রীতিমতো হিমশিম খেয়েছেন জ্যাকুলিন। তবে ধীরে ধীরে গাছের উঁচু একটি ডালে উঠে ভারসাম্য বজায় রাখতে পেরেছেন তিনি। তারপর নেচেছেন মনের আনন্দে। রবং বলা যায়, এটি অনুরোধে। ভিডিওতে দেখা না যাওয়া জ্যাকুলিনের এক সঙ্গী তাকে রিহার্সেল নাচ করে দেখাতে বলেন। দুরন্ত জ্যাকুলিন সহসাই তা করে দেখান।

কিন্তু গাছ থেকে নামতে বলা হলে চিন্তায় পড়ে যান জ্যাকুলিন। কারণ গাছে ওঠা হয়তো সহজ, কিন্তু নামা অনেক কঠিন। সেখানেই শেষ হয় ভিডিও। লাফ দিয়ে নাকি ইউনিটের সহযোগিতায় গাছ থেকে তিনি নেমেছেন তা আর দেখা যায়নি।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওটি পোস্ট করেন পরিচালক তরুণ মানসুখানি। গাছের প্রতি ভালোবাসা থেকে একইরকম ভিডিও পোস্ট করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

যারা কাজটা পারবেন তাদের মধ্য থেকে একজন দেখা করতে পারবেন জ্যাকুলিন ও তার নায়ক সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে। বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে আগামী ২৭ অক্টোবর।

‘ড্রাইভ’ প্রযোজনা করেছেন বলিউডের খ্যাতিমান নির্মাতা করণ জোহর। ছবিটি মুক্তি পাবে ২০১৮ সালের ২ মার্চ।
গাছে উঠে জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের নাচের ভিডিও:

 


মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে অন্যান্য বন্যপ্রাণীর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে চিত্রা হরিণ। জীববৈচিত্রের দিক থেকে লাউয়াছড়া রেইন ফরেস্ট এবং বাংলাদেশের জাতীয় উদ্যান সমৃদ্ধতম বনগুলোর মধ্যে একটি। দুর্লভ উদ্ভিদ এবং প্রাণীর এক জীবন্ত সংগ্রহশালা লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান।


পরীক্ষামুলকভাবে চিত্রা হরিণ ছাড়ার বিষয়ে পরিকল্পনা ও প্রাথমিক কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগের মৌলভীবাজার কার্যালয় সুত্র জানায়, সহকারী বন সংরক্ষক মো. তবিবুর রহমান লাউয়াছড়ায় চিত্রা হরিণ ছাড়ার বিষয়টি প্রথম চিন্তা-ভাবনা করেন এবং বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মিহির কুমার দেকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি এতে সম্মতি দেন।

সহকারী বন সংরক্ষক তবিবুর রহমান জানান, দেশের শ্রেষ্ঠ রেইন ফরেস্ট লাউয়াছড়া। এখানে আগে থেকেই মায়া হরিণ বসবাস করছে। চিত্রা হরিণ বসবাসের জন্য লাউয়াছড়ায় সব উপাদান বিদ্যমান রয়েছে। লাউয়াছড়ার আবাসস্থল, খাদ্য, আবহাওয়া ও পরিবেশ চিত্রা হরিণের জন্য খুবই উপযোগী।

পরিকল্পনা অনুযায়ী লাউয়াছড়ার জানকিছড়ায় রেসকিউ সেন্টার সংলগ্ন ৩০ শতক জায়গা নির্বাচন করা হয়েছে। এ স্থানটিতে আপাতত পরীক্ষামুলকভাবে চিত্রা হরিণের আবাসস্থল হিসেবে গড়ে তোলা হবে এবং ২-৩ জোড়া চিত্রা হরিণ এখানে ছাড়া হবে। পরীক্ষামুলক চিত্রা হরিণের বসবাস সফল হলে পরে চিত্রা হরিণ লাউয়াছড়া জাতীয় পার্কের অভ্যন্তরে আনুষ্ঠানিক অবমুক্ত করা হবে।

 How-to-eliminate-negative-thoughts-from-life

নেতিবাচক চিন্তা বেশী করার প্রবণতা অনেকের মাঝেই দেখা যায়। যে কোন পরিস্থিতিতে, যে কোন সময়ে, যে কোন ঘটনার ক্ষেত্রে শুধুমাত্র নেতিবাচক চিন্তাটাই তাদের মাথায় সবার আগে এসে নাড়া দেয়। জীবনে সফল হবার ক্ষেত্রে নেতিবাচক চিন্তা বেশী করাটা হলো প্রধান এবং বলা চলে প্রথম অন্তরায়। প্রশ্ন আসতে পারে, জীবনে নেতিবাচক চিন্তার কী একেবারেই কোন প্রয়োজন নেই? উত্তর হবে, অবশ্যই প্রয়োজন রয়েছে। তবে নেতিবাচক চিন্তা ঠিক ততটুকুই থাকা উচিৎ, যতটুকু চিন্তা জীবনের পথচলার ক্ষেত্রে এবং সফল হবার ক্ষেত্রে কোন বাধা সৃষ্টি করে না। ভবিষ্যৎ এর সকল কাজ এবং পরিকল্পনার ক্ষেত্রে ইতিবাচক এবং নেতিবাচক ধারণা নিজের মাঝে ধারণ করা প্রয়োজন। এতে করে সকল পরিস্থিতিতেই নিজেকে শক্ত রাখা সম্ভব হয়।


তবে নিজের চিন্তাভাবনা এবং জীবনযাপনের মাঝে নেতিবাচক প্রভাব কে সরিয়ে রেখে ইতিবাচক মনোভাব ধারণ করা প্রয়োজন। কারণ, বাস্তববাদী হওয়ার অর্থ শুধুমাত্র নেতিবাচক ব্যাপারগুলোকে লক্ষ্য করা নয়। বরং, সকল পরিস্থিতিকে সঠিকভাবে বিচার বিবেচনা করতে পারা। কীভাবে নিজের ভেতরের নেচিবাচক চিন্তাগুলো কে দূর করবেন? জেনে নিন দারুণ কিছু উপায়। 

নিজেকে ক্ষমা করুন

হয়তো অতীত জীবনে কোন ভুল করেছিলেন। কিন্তু সেটাই তো আপনার জীবনের সবকিছু নয়। একটামাত্র ভুল একজন মানুষের জীবনের সবকিছুকে থামিয়ে দিতে পারে না। অতীত কে, অতীত এর ভুলকে পেছনে পেফে সামনে এগিয়ে যাবার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। কারণ, অতীত নিয়ে পরে থাকলে কখনোই ভবিষ্যৎ এর জন্য এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে না। তাই, নিজের জীবনের অতীত এর স্মৃতি, ভুলগুলোকে ভুলে যান। নিজেকে ক্ষমা করুন। নিজেকে শক্ত করুন এবং নিজেকে বলুন- সামনের পথে এগিয়ে যাওয়ার জন্য আপনি তৈরি।

নিজের প্রশংসা নিজেই করুন

প্রশংসা সকলের সামনে ঢাকঢোল পিটিয়ে করতে হবে এমনটা কিন্তু নয়। নিজের কাছেই নিজের প্রশংসা করুন। নিজের ভালো কাজের জন্য নিজেকে বাহবা দিতে শিখুন। অবশ্যই আপনার জীবনে আপনি ছোট কি বড় বহু ভালো এবং দারুণ কাজ করেছেন। সেগুলো স্মৃতিচারণ করুন। সেগুলোর জন্য আনন্দিত হন।

ইতিবাচক মনোভাব সম্পন্ন মানুষদের সাথে মিশুন

জানেন নিশ্চয়, একজন মানুষের চিন্তাভাবনা তার আশেপাশের মানুষের মাঝেও অনেকটা প্রভাবিত হয়ে থাকে। তাই নিজেকে সবসময় ইতিবাচক মনোভাব সম্পন্ন মানুষদের মাঝে রাখার চেষ্টা করুন। তাদের সাথে মিশুন, তাদের সাথে সময় কাটান। ভালো কোন পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষেত্রে তাদের সাথে আলোচনা করুন। কারণ, প্রতিটি সময়েই তারা আপনাকে অনুপ্রেরণা দিবে, কাজ করার জন্য মানসিক শক্তি দিবে।

অনুপ্রেরণামূলক বই পড়ুন এবং চমৎকার গান শুনুন

বই এবং গান- এই দুইটি জিনিসকে বলা হয়ে থাকে আত্মার খোরাক। সেক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা মুলক বই এবং চমৎকার কথাসহ গান শোনা ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করার ক্ষেত্রে খুব ভালো কাজ করে থাকে। অনেক নামকরা ব্যক্তিত্বের জীবনী মূলক বই পাওয়া যায় বাজারে। এছাড়াও বিভিন্ন জ্ঞানীগুণী মানুষদের চমৎকার উক্তিমূলক বইও পাওয়া যায়। এই সকল বই প্রতিদিন কয়েক পাতা করে পড়ার অভ্যাস তৈরি করতে পারলে দেখা যাবে নিজের ভেতরে ধীরে ধীরে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি হচ্ছে।

এখন থেকেই শুরু করুন!

পয়েন্ট এর টাইটেল পড়ে নিশ্চয় ভ্রূ কুচকাচ্ছেন! ভাবছেন, এখন থেকেই কী শুরু করার কথা বলা হচ্ছে? এখন থেকে নিজের ভেতরের নেতিবাচক চিন্তাভাবনাগুলো কে দূর করে ইতিবাচক চিন্তা শুরু করার কথা বলা হচ্ছে। এই লেখাটা পড়ার মাঝেই নিজেকে প্রতিজ্ঞা করুন, নেতিবাচক মনোভাব নিয়ে আর পড়ে থাকবেন না। শুরুটা করুন ঠিক এখন থেকেই।

গুটিয়ে না থেকে সাহায্য খুঁজুন

সবার মাঝে থেকেও নিজেকে গুটিয়ে রাখলে কখনোই নিজের চিন্তাভাবনার ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনা সম্ভব হবে না। তাই নিজের পরিবারের মানুষ কিংবা বন্ধুদের কাছে নিজের সমস্যাগুলো নিয়ে খোলামেলাভাবে আলোচনা করতে হবে, কথা বলতে হবে। যদি মনে হয় যে তাতেও খুব একটা কাজ হচ্ছে না, তবে কোন বিশেষজ্ঞের সাথে দেখা করতে করতে হবে।

Private-flying-drone-that-you-may-fly-in-the-future-video 

প্রযুক্তি উন্নতি করতে করতে জীবনকে এমন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে যা আপনি হয়ত এখন কল্পনাও করতে পারেন না। কল্পনা করুন ট্র্যাফিক জ্যাম থেকে বাঁচতে খুব সহজেই ফ্লায়িং ড্রোনে ঘুরে বেড়াতে পারবেন। আর কল্পনাকে বাস্তবে রূপ দিচ্ছে সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক প্যাসেঞ্জার ড্রোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।


দুই সিটের প্যাসেঞ্জার ড্রোন নিয়ে আসতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। সম্প্রতি সিনেটের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

প্রতিষ্ঠানটি এক প্রেস রিলিজে জানিয়েছে, এই প্যাসেঞ্জার ড্রোন একটি ছোট গাড়ির চেয়ে আকারে বড়, প্রতিষ্ঠানটি গতানুগতিক যোগাযোগ ব্যবস্থার পরিবর্তন করতেই এই উদ্যোগ নিয়েছে। টাচস্ক্রিন ব্যবহারের মাধ্যমে যাত্রীরা সহজেই তার গন্তব্য নির্বাচন করে দিতে পারবে। এরপর সিটে বসে আরাম করতে পারবে আর ড্রোন তাকে নির্দিষ্ট জায়গায় পৌঁছে দেবে। আর ড্রোনটি ঘন্টার ৮০ কিলোমিটার যেতে পারবে।

ড্রোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১৬টি ইলেকট্রিক ইঞ্জিন এবং ভার্টিক্যালি এটি উড্ডয়ন এবং অবতরণ করতে সক্ষম। তবে সস্তা হবে না এই যাত্রীবাহী ড্রোন। প্রতিষ্ঠানের মতে, এই প্যাসেঞ্জার ড্রোনের দাম হটে পারে ১ লাখ ৫০ হাজার ডলার থেকে ২ লাখ ডলারের মধ্যে।

প্রতিষ্ঠানের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ২০১৮ সালের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্র সহ ইউরোপের কয়েকটি বাজারে অনুমোদন পাবে।


Robis-bundle-offer-on-the-Samsung-J2-and-J7-series-FourG-smartphones 

মোবাইল অপারেটর কোম্পানি রবি’র সাথে একটি আকর্ষণীয় বান্ডেল অফার ঘোষণা করেছে স্যামসাং বাংলাদেশ। ফলে গ্রাহকরা স্যামসাং এর জে২ এবং জে৭ সিরিজের ফোরজি স্মার্টফোন কিনে অফারটি উপভোগ করতে পারবেন।


অফারে থাকছে ১৮০ মিনিট টকটাইম এবং হোয়াটস অ্যাপ, ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ভাইবার ও ইমো ব্যবহারের জন্য ১৮ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনেট। গ্রাহকরা স্যামসাং গ্যালাক্সি জে১ নেক্সট প্রাইম, জে২ ২০১৫, জে২ প্রাইম, জে২ প্রো কিনে ১২ জিবি ডাটা প্যাক এবং জে৭ ২০১৫, জে৭ ২০১৬, জে৭ প্রাইম, জে৭ ম্যাক্স, জে৭ প্রো, জে৭ নেক্সট কিনে ১৮ জিবি ডাটা প্যাক উপভোগ করতে পারবেন। অফারটি ৩ মাস উপভোগ করা যাবে।

এছাড়াও জে৭ সিরিজের নির্দিষ্ট যে কোনো একটি কিনলেই সাথে পাবেন একটি ফোন ওয়ালেট এবং একটি উইন্টার জ্যাকেট।  গ্রাহকরা এখন থেকে স্যামসাং জে১ নেক্সট প্রাইম ৬,৯৯০ টাকায়, জে২ ২০১৫ ৮,৯৯০ টাকায়, জে২ প্রাইম ১১,৪৯০ টাকায়, জে২ প্রো ১২,৯৯০ টাকায়, অন৭ প্রো ১৪,৯৯০, জে৭ ২০১৫ ১৪,৯৯০ টাকায়, জে৭ নেক্সট ১৭,৯০০ টাকায়, জে৭ ২০১৬ ১৮,৯০০ টাকায়, জে৭ প্রাইম ২১,৯০০ টাকায়, জে৭ ম্যাক্স ২৪,৯০০ টাকায় এবং জে৭ প্রো ২৯,৯০০ টাকায় কিনতে পারবেন।

স্যামসাং-এর নির্ধারিত সকল শো-রুম এবং রবি স্টোর থেকে এই অফার উপভোগ করা যাবে। অফার সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এই (http://mygalaxy.fdl.com.bd/samsung-robi-offer.html) লিঙ্কে।

OLGmobile-business-in-losses 

স্মার্টফোন যন্ত্রাংশের দাম এক লাফে বেড়ে যাওয়ায় এলজির মোবাইল ব্যবসায় লোকসান হয়েছে। তবে দক্ষিণ কোরীয় প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য ব্যবসা সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে। এলজি জানায়, জুলাই-সেপ্টেম্বর কোয়ার্টারে প্রতিষ্ঠানটির মোবাইল ব্যবসায় ৩৩৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার লোকসান হয়েছে। মেমোরি চিপ এবং স্মার্টফোনের অন্যান্য যন্ত্রাংশের দাম বেড়ে যাওয়ায় গত কোয়ার্টারের থেকে এ কোয়ার্টারে স্মার্টফোন উৎপাদন খরচ তিনগুণ বেড়ে গেছে।


প্রিমিয়াম স্মার্টফোন বাজারে আধিপত্য ধরে রেখেছে স্যামসাং এবং অ্যাপল। ফলে এলজির মতো ক্ষুদ্রতর স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো হঠাৎ করে মোবাইল ফোন উৎপাদনে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হচ্ছে। মেমোরি চিপের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় স্যামসাং এবং এসকে হাইনিক্সের মতো চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রচুর লাভবান হচ্ছে। আর বিপদে পড়লে এলজির মতো হ্যান্ডসেট নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। কেননা স্মার্টফোনের যন্ত্রাংশ বাবদ প্রচুর অর্থ পরিশোধ করা লাগে এলজির। এলজি জি৬সহ অন্যান্য গ্যাজেটগুলো বেশি বিক্রি হওয়া সত্ত্বেও প্রতিষ্ঠানটি লাভের মুখ দেখতে পাচ্ছে না।

তবে প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য ব্যবসা সুবিধাজনক অবস্থায় আছে। বাসাবাড়িতে বিনোদন সংক্রান্ত প্রযুক্তি পণ্য জনপ্রিয়তা পাওয়ায় এলজির অন্যান্য ব্যবসা চাঙ্গা রয়েছে। এলজির ওএলইডি টিভি প্রচুর পরিমাণে বিক্রি হচ্ছে। ফলস্বরূপ এলজির টিভি ব্যবসায় এবার সবচে বেশি লাভ হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে এলজি জুলাই-সেপ্টেম্বর মাসে সব মিলিয়ে ২৮৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছে। এটি প্রত্যাশাকে ছাড়িয়ে গেছে। বিগত দুই কোয়ার্টারে লোকসানের পর এই কোয়ার্টারে এসে লাভের মুখ দেখল প্রতিষ্ঠানটি।

20-megapixel-dual-front-cameras-including-Apo-and-11S-coming-to-the-market 

 চীনে ২ নভেম্বর আর১১এস স্মার্টফোন জনসমক্ষে উন্মোচন করবে অপো। নতুন এ মডেলটি আর১১ স্মার্টফোনের পরবর্তী সংস্করণ। এতে ২০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ও রিয়ার ক্যামেরা আছে।


টিজার ছবিতে ফোনটিতে মেটাল ইউনিবডি এবং রিয়ার মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দেখা গেছে। অপো আর১১এস স্মার্টফোনে ১০৮০*২১৬০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ১৮:৯ অনুপাতের ৬ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে আছে। অক্টা-কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ প্রসেসরযুক্ত স্মার্টফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ৭.১.১ ন্যুগাট অপারেটিং সিস্টেমে চলে।

মাইক্রোএসডি কার্ড সমর্থনসহ স্মার্টফোনটিতে ৪জিবি র‌্যাম এবং ৬৪জিবি অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ আছে। হ্যান্ডসেটটিতে ডুয়াল সিম ফাংশন, ১৬ ও ২০ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা আছে। তাছাড়া সেলফি তোলার জন্য ফোনটিতে ২০ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে। হ্যান্ডসেটটিতে ৩২০৫ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি থাকবে বলেও শোনা যাচ্ছে।

 

থ্যপ্রযুক্তি খাতে ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী তরুণ-তরুণীদের পদচারণায় মুখর চট্টগ্রাম আইটি-আইটিইএস জব ফেয়ার-২০১৭ শেষ হয়েছে। চাকরি মেলা থেকে সরাসরি চাকরি পেয়েছেন ১১৩ জন এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হয়েছে ৬৯৫ জন। 


বৃহস্পতিবার বন্দরনগরী চট্টগ্রামের জিইসি মিলনায়তনে আয়োজিত এ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের আওতায়  লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স প্রজেক্ট (এলআইসিটি), পিকাবু ও আর্নস্ট অ্যান্ড ইয়াং যৌথভাবে এ মেলার আয়োজন করে। মেলায় চট্টগ্রামের ১৩টি প্রতিষ্ঠানসহ বাংলাদেশের প্রথম সারির ৫০টি আইটি কোম্পানির প্রতিনিধিরা উপস্থিত থেকে চাকরি প্রার্থী তরুণ-তরুণীদের সাক্ষাৎকার নেন এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করেন। চাকরি মেলায় যোগ দিতে গত ১০ দিনে চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে ১০ হাজারের বেশি স্নাতক অনলাইনে নিবন্ধন করেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ১১ হাজারের বেশি তরুণ-তরুণী চাকরি মেলায় আসেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে আইটি-আইটিইএস খাতে রফতানি আয় ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা এবং ২০ লাখ তথ্যপ্রযুক্তি পেশাজীবী গড়ে তোলা। এ লক্ষ্য পূরণে আমরা ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় চাকরি মেলার আয়োজন করি। সে ধারাবাহিকতায় আজকের এ আয়োজন। আশা করছি আগামীতে এ ধরনের আয়োজন আমরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিয়ে যাব।
এলআইসিটি প্রকল্পের পরিচালক মো. রেজাউল করিম সকালে চাকরি মেলার উদ্বোধন করেন। বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ মেলায় চাকরি প্রার্থীরা সরাসরি চাকরিদাতাদের সামনে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণের সুযোগ পেয়েছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ক‍র্মসংস্থান এবং আগামীর সম্ভাবনা বিষয়ে চাকরি মেলায় ৪টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। 

1450-Telephone-bend-of-Genderia-BTCL 

গেন্ডারিয়ায় বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে প্রায় এক হাজার ৪শ’ ৫০টি টেলিফোন বিকল ও ইন্টারনেট সার্ভিস বন্ধ হয়ে পড়েছে।


বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোব) বিটিসিএল জানায়, জাতীয় স্বার্থে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বাস্তবায়নাধীন উন্নয়ন প্রকল্পের কাজে রাস্তা খনন করায় গেন্ডারিয়ায় টেলিফোন বিকল ও ইন্টারনেট সার্ভিস বন্ধ হয়ে পড়ে।

কেবল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় গেন্ডারিয়ার কালামিয়া সরদার রোড, ওয়াসা পূর্ব জুরাইন, খোরশেদ আলী সরদার রোড, কুদরত আলী বাজার মুরাদপুর, মেডিক্যাল রোড, জুরাইন, মাদ্রাসা রোড জুরাইন, দনিয়া, দক্ষিণ দনিয়া এবং আলমবাগ এলাকার টেলিফোনগুলো বিকল হয়ে পড়ে।

জাতীয় স্বার্থে গুরুত্বপূর্ণ এ প্রকল্পের কাজ চলাকালে প্রকল্প কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে যথাসম্ভব দ্রুত টেলিফোনগুলো চালু করার ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও বিটিসিএল থেকে জানানো হয়।

সংশ্লিষ্ট এলাকার টেলিফোন ও ইন্টারনেট সার্ভিস সাময়িক বিঘ্নিত হওয়ায় গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্য বিটিসিএল কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করেছে।

How-to-make-the-footpieces-of-chicks 

দুধ ও চালের পায়েস তো খাওয়া হয় সবসময়ই। এবার অতিথি আপ্যায়নে পরিবেশন করতে পারেন মজাদার ছানার পায়েস। জেনে নিন কীভাবে বানাবেন এটি। 


উপকরণ


দুধ- ১ লিটার
ছানা- ২৫০ গ্রাম
চিনি- স্বাদ মতো 
এলাচ- ৩টি
কিশমিশ- ৪ টেবিল চামচ
বাদাম কুচি- ৩ টেবিল চামচ  

প্রস্তুত প্রণালি

একটি পাত্রে ছানা নিন। হাত দিয়ে ছানা ভালো করে মেখে ছোট ছোট বলের মতো তৈরি করুন। চুলায় মাঝারি আঁচে দুধ ফুটান কিছুক্ষণ। ঘন হয়ে এলে ছানার বলগুলো দিয়ে দিন একটি একটি করে। ধীরে ধীরে চিনি দিয়ে নাড়তে থাকুন। এলাচ গুঁড়া করে দিয়ে দিন। দুধের মিশ্রণ ঘন হলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন।পরিবেশনের আগে ফ্রিজে রাখে ঠাণ্ডা করে নিন। বাদাম কুচি ও কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার ছানার পায়েস।

 

একটি প্রবাদ আছে ‘যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে’। অভিনয়ের প্রয়োজনে চিত্রনায়িকা পূর্ণিমার চুল বাঁধা অর্থাৎ সাজগোজের ব্যাপারটি সম্পর্কে তার ভক্তরা ভালোই জানেন।


তবে পূর্ণিমা যে ভালো রাঁধতে পারেন কিংবা রান্না নিয়ে রীতিমতো নিরীক্ষা করতে পারেন, এ বিষয়টি অনেকেরই অজানা। অভিনয় কিংবা ফ্যাশন এমনকি সাম্প্রতিককালে উপস্থাপনা, সর্বশেষ গান গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। সবার জন্য এবার নতুন খবর হলো, পূর্ণিমা প্রথমবারের মতো রান্না বিষয়ক কোনও রিয়েলিটি শো’য়ের বিচারক হিসেবে কাজ করতে যাচ্ছেন।

স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড আয়োজিত দেশের অন্যতম সেরা রান্না বিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪ (বঙ্গাব্দ)’-এর তিন বিচারকের একজন হবার জন্য গত মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এই নায়িকা। প্রতিযোগিতার মূল স্টুডিও রাউন্ডে অভিজ্ঞ শেফ শুভব্রত মৈত্র ও বর্ষীয়ান রন্ধন বিশেষজ্ঞ নাহিদ ওসমানের সঙ্গে মিলে তিনি বিচারকের দায়িত্বপালন করবেন।

প্রথমবারের মতো রান্না বিষয়ক অনুষ্ঠানের বিচারক হবার পেছনে কী কী কারণ কাজ করেছে জানতে চাইলে পূর্ণিমা বলেন, “নিজে রন্ধনশিল্পী না হলেও আমার মনে হয় ভালো রান্নার গুণাগুণ বিচারের দক্ষতা আমার রয়েছে। এমনকি রান্না নিয়ে নিরীক্ষা করতেও পছন্দ করি। অভিনয়, নাচ, গানের অনুষ্ঠানের সঙ্গে তো বরাবরই সম্পৃক্ত ছিলাম। তবে ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ সেসব অনুষ্ঠান থেকে পুরোপুরি ব্যতিক্রম।’’

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন, ‘এ অনুষ্ঠানে দেশের ৭টি আলাদা অঞ্চল থেকে আসা ৪০ জনকে প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হবে। পরবর্তীতে ১৬ জনকে নিয়ে স্টুডিও রাউন্ড এবং বিভিন্ন ধাপে প্রতিযোগিতা পেরিয়ে একজনকে বেছে নেওয়া হবে; যিনি পাবেন ১৫ লাখ টাকার পুরস্কার। তবে এবার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এমন একজন রন্ধনশিল্পীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করবো আমরা যিনি শুধু রান্না পরিবেশনাতেই দক্ষ হবেন না বরং বুদ্ধিদীপ্ত উপস্থাপনের মাধ্যমে তার রেসিপির বিপণনেও পারদর্শী হবেন। আমার মনে হয়, প্রতিযোগিদের বন্ধু হিসেবে তাদের কাছ থেকে আমিও অনেক কিছু শিখতে পারবো। সেই সঙ্গে আমার অভিজ্ঞতা, জ্ঞান তাদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারবো।’

জানা গেছে, আসছে ১২ জানুয়ারি ২০১৮ থেকে প্রতি শুক্র-শনিবার রাত ৯টায় মাছরাঙা টেলিভিশনে ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ অনুষ্ঠানটির প্রচার শুরু হবে।

Abhishek-fires-in-panic-Aishwarya 

বিয়ের আগে মুম্বাইয়ের বান্দ্রার একটি বহুতল ভবনে থাকতেন বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। ওখানকার ১৩ তলার একটি ফ্ল্যাটে থাকেন তার মা বৃন্দা রাই। ‘লা মের’ নামের ওই ভবনে মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে আগুন লেগেছিল।


খবর পেয়েই স্বামী অভিষেক বচ্চনকে নিয়ে ছুটে গেছেন আতঙ্কিত অ্যাশ। তার মায়ের তেমন কোনও ক্ষতি না হলেও আগুন নিয়ে সারাদিন আতঙ্কে ছিলেন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের আটটি ইউনিট কাজ করেছে। তাদের সঙ্গে ছিল জলকামানও। তবে অগ্নিকাণ্ডে কেউ হতাহত হয়নি।

একই ভবনের বাসিন্দা আদমান প্রহ্লাদ কাক্কার টাইমস নাউ ওয়েবসাইটকে জানান, এখানকার ১০ তলায় থাকেন ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের শ্বশুর-শাশুড়ি।
বান্দ্রা থানার সহকারী পুলিশ ইন্সপেক্টর সবিতা শিন্ডে জানান, শচীনের আত্মীয়র ফ্ল্যাটের রান্নাঘর থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়। ভবনের কেয়ারটেকারের এমনই ভাষ্য।


২০০৭ সালে সাতপাকে বাঁধা পড়ার পর থেকে বচ্চন পরিবারের সঙ্গে জুহুতে থাকেন সাবেক এই বিশ্বসুন্দরী। সম্প্রতি অমিতাভ বচ্চন, জয়া বচ্চন, অভিষেক ও মেয়ে আরাধ্যর সঙ্গে মালদ্বীপে বেড়াতে গিয়েছিলেন তিনি। উপলক্ষ্য ছিল, বিগ বি’র ৭৫তম জন্মদিন।

ঐশ্বরিয়ার সবশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি করণ জোহর পরিচালিত ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’। ৪৩ বছর বয়সী এই তারকা এখন ‘ফ্যানি খান’ ছবির কাজ নিয়ে ব্যস্ত। এতে তার সহশিল্পী অনিল কাপুর ও রাজকুমার রাও।

Suffering-dry-hair-problems 

শুষ্ক এবং নিষ্প্রাণ চুলের সমস্যা কমবেশী সকলের থাকে। আমাদের দেশের আবহাওয়া জনিত কারণে তো বটেই, অনেক ক্ষেত্রে সঠিক পরিচর্যার অভাবেও চুল তার স্বাভাবিক আর্দ্রতা হারিয়ে শুষ্ক হয়ে যায়। যে কারণে, প্রতিবার শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার ব্যবহার করার কথা বলা হয়ে থাকে। কন্ডিশনার চুলের শুষ্কভাব দূর করতে এবং চুলকে নমনীয় করতে সাহায্য করে থাকে।


তবে বাজার থেকে কেনা যেকোন কন্ডিশনারে থাকে প্রচুর পরিমাণে কেমিক্যাল। যা নিয়মিত ব্যবহারের ফলে অদূর ভবিষ্যৎ এ চুলের উপকারের পরিবর্তে ক্ষতির কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে ঘরোয়া উপাদান দিয়ে তৈরি দারুণ তিনটি প্রাকৃতিক কন্ডিশনার সম্পর্কে জেনে নিন, যা কোন ধরণের ক্ষতি ও পার্শপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই চুলকে করবে নমনীয়।

১/ ভিনেগার ও ডিমের কন্ডিশনার


চুল পড়ার ক্ষেত্রে ভিনেগার খুব দারুণ কাজ করে থাকে বলে ভিনেগার চুলের জন্য খুবই উপকারী একটি উপাদান। এছাড়া চুলের জন্য ডিমের উপকারের কথা আলাদাভাবে বলার অপেক্ষাই রাখে। এছাড়াও এই কন্ডিশনার তৈরিতে ব্যবহার করা হয় মধু ও অলিভ অয়েল। যা চুলের আর্দ্রতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং চুলকে শক্ত করে।

যা প্রয়োজন হবে:


-      ডিম

-      অলিভ অয়েল

-      মধু

-      ভিনেগার

-      লেবুর রস

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে:


দুই-তিনটি ডিমের কুসুম একসাথে ফাটিয়ে নিয়ে এসে সাথে পরিমাণ মতো ভিনেগার, লেবুর রস মেশাতে হবে। এরপর অলিভ অয়েল এবং মধু মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে ঘন পেষ্ট এর মতো বানিয়ে নিতে হবে। চুল শ্যাম্পু করার পরে চুলের মধ্যবর্তী অংশ থেকে আগা পর্যন্ত পেষ্ট লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

২/ কলার মাস্ক


শুষ্ক এবং রুক্ষ ধরণের চুলের জন্য কলা খুব দারুণ একটি প্রাকৃতিক উপাদান। বিশেষ করে, কলার সাথে সঠিক উপাদান মিশিয়ে যখন চুলের জন্য কোন পেষ্ট বানানো হয়, সেটি চুলের উপকারে খুব ভালো এবং দ্রুত কাজ করে।

যা প্রয়োজন হবে:


-      কলা

-      ডিম

-      মধু

-      দুধ

-      অলিভ অয়েল

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে:


একটি ডিম, একটি কলা, তিন টেবিল চামচ মধু, তিন টেবিল চামচ দুধ এবং পাঁচ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল একসাথে খুব ভালোভাবে মিশিয়ে ঘন একটি পেষ্ট তৈরি করতে হবে। পুরো চুলে এই মিশ্রণ লাগিয়ে ১৫-৩০ মিনিট সময় অপেক্ষা করতে হবে। এরপর পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৩/ দইয়ের মাস্ক

শুধুমাত্র স্বাস্থ্যের জন্য নয়, চুলের জন্যেও দই খুব দারুণ একটি উপাদান। ক্ষতিগ্রস্থ চুল পুনরায় সুস্থ করে তোলার জন্য দই চমৎকার কাজ করে থাকে।

যা প্রয়োজন হবে:


-      দই

-      ডিম

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে:


একটি ডিমের শুধুমাত্র সাদা অংশ নিয়ে খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিতে হবে। যতক্ষণ না পর্যন্ত ডিমের সাদা অংশ একদম ফোমের এর মতো হয় ততোক্ষণ ফেটাতে হবে। এরপর এর সাথে পাঁচ-ছয় টেবিল চামচ পরিমাণ দই মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করতে হবে। যেহেতু এই মিশ্রণটি হালকা হবে তাই কৌশলে পুরো চুলে লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ এর মাধ্যমে চুল ঢেকে রাখতে হবে ১৫-৩০ মিনিট। এরপর হার্বাল কোন শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

 


 প্রথাগত শিক্ষা ব্যবস্থার বাইরে পেশা সহায়ক এবং ব্যতিক্রম কিছু কোর্স নিয়ে ১ নভেম্বর থেকে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে ই-এডু-ল্যাব। এই ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে সরাসরি ক্লাস করা ছাড়াও ঘরে বসেপড়া যাবে বই, দেওয়া যাবে যেকোনো টেস্ট।


২৫ অক্টোবর সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা জয়ন্ত সরকার বলেন, আমাদের এই প্লাটফর্ম যে কেউ ব্যবহার করতে পারবে। অনেক সময় দেখা যায় আমাদের শিক্ষার্থীদের মেধা থাকা সত্ত্বেও কাজে লাগাতে পারে না শুধুমাত্র গাইডলাইন এর অভাবে। এই প্লাটফর্মটি থেকে ঢাকার একজন শিক্ষক সহজেই ক্লাস নিতে পারবেন।

তিনি আরও জানান, স্কুল কলেজ ভার্সিটিতে যেসব কোর্স থাকে না সেগুলোতে সবাইকে এক্সপার্ট করে বিশ্বের দরবারে উপস্থাপন করাই ই-এডু-ল্যাবের মূল লক্ষ্য।

 

অ্যাপ ভিত্তিক ট্যাক্সি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান উবার এতদিন আপনার স্মার্টফোনের মধ্যে ছিল আর এবার এই অ্যাপ আপনার ওয়ালেটে ঢুকে গেছে। ২৫ অক্টোবর বুধবার প্রতিষ্ঠানটি ব্রিটিশ ব্যাংক বারক্লেস এর সাথে কোলাবরেশনে এই সুবিধা যুক্ত করেছে। আগামী ২ নভেম্বর থেকে এই কার্ড চালু করা হবে।


এই ক্রেডিট কার্ডে পয়েন্ট ব্যবহার করা হবে। ক্যাশব্যাক লয়ালিটি প্রোগ্রামের মতো একে ডিজাইন করা হয়েছে। উবার রাইডে পেমেন্ট করার পর কার্ডহোল্ডার ২ শতাংশ ক্যাশব্যাক পাবেন। এবং কার্ডের শুরুর বোনাস ১০০ মার্কিন ডলার। আর উবার এর ফুড ডেলিভারি সেবা উবারইটস এ ৪ শতাংশ ক্যাশব্যাক পাওয়া যাবে। আবার এয়ারলাইন, হোটেল এবং অবকাশের ভাড়ার জন্য ৩ শতাংশ ক্যাশব্যাক পাবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাহিরে ব্যবহারে কোনো বৈদেশিক লেনদেনের ফি নেবে না উল্লেখযোগ্যভাবে, কোনো বার্ষিক ফিও দিতে হবে না এই কার্ডে।

উবার একমাত্র প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান নয় যারা ক্রেডিট কার্ড অফার করছে। উদাহরণস্বরূপ অ্যাপলও বারক্লেসের সাথে মিলে একই সেবা দিচ্ছে।

Waltons-new-cellphone-phone 

শক্তিশালী ব্যাটারির নতুন সেলফি ফোন আনল ওয়ালটন। যারা ভালো মানের সেলফি ও ছবি এবং দীর্ঘক্ষণ ব্যাটারি ব্যাপ-আপ চান তাদের জন্য এটি হবে একটি উত্তম ফোন। সেইসঙ্গে যারা সাশ্রয়ী দামে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও ফোরজিসহ অন্যান্য অত্যাধুনিক সব ফিচার খোঁজেন তাদের জন্যও আদর্শ হ্যান্ডসেট ‘প্রিমো এস সিক্স’ মডেলের নতুন এই ফোন।


মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) থেকে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা এবং মোবাইল ব্র্যান্ড আউটলেটে ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে। দাম মাত্র ১৫ হাজার ৫৯০ টাকা। আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফোনটি মিলছে কালো ও সোনালি এই দুটি ভিন্ন রঙে।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে ‘এস সিক্স’ মডেলের নতুন এই স্মার্টফোনে রয়েছে বিএসআই সেন্সরযুক্ত ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। যা দেবে দুর্দান্ত সেলফি। এফ ২.০ অ্যাপারচার সাইজের এই ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে সফট এলইডি ফ্ল্যাশ। ফলে অন্ধকার বা অল্প আলোতেও স্পষ্ট সেলফি বা ভিডিও তোলা সম্ভব হবে। এই ফোনের পেছনে রয়েছে বিএসআই সেন্সরযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। যার অ্যাপারচার সাইজ ২.২। উভয় ক্যামেরায় রয়েছে পি.ডি.এ.এফ প্রযুক্তি। যা ০.১ সেকেন্ডেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্যামেরার ফোকাস সেট করবে। মাল্টিলেয়ার লেন্স থাকায় ছবি হবে নিখুঁত, উজ্জ্বল ও জীবন্ত। গ্রাহকের রঙ্গিন ও স্মরণীয় সব মুহূর্ত থাকবে ফ্রেমবন্দি।

ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও ফেস বিউটি, এইচডিআর, টাইম ল্যাপস, স্লো মোশন, প্যানোরামা, স্মার্ট সিন, নাইট মোড এবং জিফের মতো আকর্ষণীয় মোডে ছবি তোলার সুযোগ থাকছে। ফ্রন্ট কিংবা রিয়ার - উভয় ক্যামেরায় ফুল এইচডি ভিডিও ধারণ করা যাবে। রয়েছে ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, টাচ-ফোকাস ও টাচ-শট।

‘এস সিক্স’ স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ৫.২ ইঞ্চির অন সেল আইপিএস প্রযুক্তির এইচডি ডিসপ্লে। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার এবং ভিডিও দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিং হবে আরো প্রাণবন্ত। এর ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস ডিসপ্লে প্যানেল স্ক্রিন টাচে স্বাচ্ছন্দ্য দেবে। আঁচর ও দাগ থেকে ডিসপ্লের সুরক্ষায় রয়েছে হাই প্রোটেকটিভ স্ক্র্যাচ প্রুফ গ্লাস।

ফ্ল্যাগশিপ ফোনটির উচ্চগতি নিশ্চিত করতে রয়েছে ৬৪-বিট সম্পন্ন ১.৪৫ গিগাহার্জ গতির কর্টেক্স-এ৫৩ কোয়াডকোর প্রসেসর। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-টি ৭২০। বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, থ্রিডি গেমিং এবং দ্রুত ভিডিও লোড ও ল্যাগ-ফ্রি ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা দিতে রয়েছে ৩ জিবি দ্রুতগতির ডিডিআর৩ র্যা ম। আছে ১৬ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরি। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

এই ফোনের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ এর শক্তিশালী ব্যাটারি। ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি দেবে দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপ। এতে রয়েছে রিভার্স চার্জিং সুবিধা। যা পাওয়ার ব্যাংকের কাজ করবে। ফলে জরুরি প্রয়োজনে ফোনটি থেকে অন্যান্য ডিভাইসেও চার্জ দেয়া যাবে।

দুটি সিম ব্যবহারের সুবিধাসম্পন্ন ফোনটি থ্রিজি এবং ফোরজি নেটওয়ার্ক সমর্থন করে। স্মার্টফোনটি অ্যান্ড্রয়েড নূগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত। ফোনের তথ্য সুরক্ষায় রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ইউএসবি ২, ওয়্যারলেস ডিসপ্লে, ল্যান হটস্পট, ওটিএ ও ওটিজি সুবিধা।

আইআর সেন্সর থাকায় ‘এস সিক্স’ টেলিভিশন, এয়ারকন্ডিশনারসহ অন্যান্য হোম অ্যাপ্লায়ান্সের রিমোট কন্ট্রোলার হিসেবেও ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। ডাটা ক্লোনিং সুবিধা থাকায় পুরনো ফোন থেকে ছবি, অ্যাপ, কনটাক্টস এমনকি মেসেজসহ গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ট্রান্সফার করা যাবে সহজেই। স্পিট স্ক্রিন থাকায় একই সঙ্গে ডিসপ্লেতে দুটি অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে। অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও, ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক, নোটিফিকেশন লাইট ইত্যাদি।

৮.৮ মিমি স্লিম ফোনটি বেশ হালকা। ব্যাটারিসহ এর ওজন মাত্র ১৬৬ গ্রাম। এতে রয়েছে স্মার্ট আই প্রোকেটশন। যা দীর্ঘক্ষণ ব্যবহারে চোখের জন্য আরামদায়ক।

উল্লেখ্য, দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যাচ্ছে সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।

 The-trip-is-down-coming-out-Ubermato-Send-Kars

বাড়তি ভাড়ার কারণে ঢাকায় আগের চেয়ে উবারের ট্রিপ কমে গেছে। বাড়ছে মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিংয়ের ট্রিপ। উবারও শিগগিরই মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং চালুর ঘোষণা দিয়েছে। আর মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং অ্যাপস ‘পাঠাও’ উবারের মতো প্রাইভেট কারে রাইড শেয়ারিং শুরু করতে যাচ্ছে।



ঢাকায় উবারের অনেক চালক জানিয়েছেন, তারা আগে যত ট্রিপ পেতেন তা এখন ততটা পান না। উবার-এক্স নিয়মিত ট্রিপ পেলেও উবার প্রিমিয়ারের চালকরা খুব কম রাইড রিকোয়েস্ট  পান।

উবার সংশ্লিষ্ট স্যোশাল মিডিয়া গ্রুপগুলোতে উবার চালক ও যাত্রীদের কাছ থেকে এসব প্রতিক্রিয়া জানা গেছে।

গত সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝিতে ভাড়া একটু বাড়িয়ে সাম্প্রতিক মডেলের প্রাইভেট কার দিয়ে চালু হয় উবার প্রিমিয়ার। আর পুরাতন মডেলের গাড়ি দিয়ে চলছে উবার-এক্স। এক্সের ভাড়া কিছুটা প্রিমিয়ারের চেয়ে কম। এরপর থেকে ঢাকায় উবার এক্স নিয়মিত ব্যবহৃত হলেও উবার প্রিমিয়ার ততটা সাড়া জাগাতে পারেনি।

তবে তীব্র যানজট পেরিয়ে দ্রুত গন্তব্যে যেতে মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। ঢাকায় পাঠাও, শেয়ার এ মোটরসাইকেল (স্যাম), আমার রাইড, মুভ, বাহন সহ কয়েকটি অ্যাপস বাইক রাইড শেয়ারিং করছে।

রাইড শেয়ারিং স্যোশাল মিডিয়া গ্রুপগুলোর বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া বিশ্লেষণ করে মুরাদ শুভ জানান, ‘অ্যাপের দিক থেকে ‘স্যাম’ বাইকার এবং রাইডারদের প্রশংসা পাচ্ছে। নির্ভুল জিপিএস সিস্টেম ও নতুন নতুন ফিচারের কারণে বাইকার এবং রাইডার বাড়ছে তাদের। তবে বাইকার বেশি থাকায় ট্রিপ বেশি পাচ্ছে পাঠাও। জিপিএস ত্রুটি ভাড়ার হিসেবে গোলমালের অভিযোগ দেখা গেছে তাদের ফেসবুক গ্রুপগুলোতে।’

রাইড শেয়ার নিয়ে নিয়মিত বিশ্লেষক মুরাদ শুভ জানান, সিঙ্গেল যাত্রীরা তাদের যাত্রায় একটি প্রাইভেট কারের চেয়ে মোটরসাইকেল ব্যবহারের দিকে ঝুঁকে পড়ছেন। যে কারণেও উবারও ঢাকায় মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং শুরু করে দিচ্ছে।

রাইড শেয়ারিংয়ের প্রতিযোগিতামূলক অবস্থায় উবার ঢাকায় মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং ফিচার যুক্ত করছে জানিয়ে বলেন, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য দেশেও বাইকশেয়ারিং-এর গ্রহণযোগ্যতা  বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভারতে প্রথম বছরেই উবারমটো দুই মিলিয়ন ট্রিপ সম্পন্ন করেছে।


যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য চালকদের পরিচয় প্রকাশসহ উবারমটো তে ট্রিপের স্ট্যাটাস শেয়ারিং, জিপিএস ট্র্যাকিং

The-barrier-to-come-to-4g 

চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক তথা ফোরজি’র আগমন পদে পদে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। মোবাইলফোন অপারেটররা তাদের দাবির কথা জানিয়ে বলছে, ফোরজি নিলামের আগেই বিদ্যমান সমস্যার সমাধান হওয়া জরুরি। এদিকে সরকার বলছে, অপারেটরগুলোর উত্থাপিত ২৪টি দাবির মধ্যে ২২টিই সমাধান হয়ে গেছে। যে দুটো অবশিষ্ট রয়েছে, তারও সমাধান শিগগিরই হয়ে যাবে। যৌক্তিক সময়ের মধ্যে উদ্ভূত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে অপারেটররাও আশাবাদী।


প্রসঙ্গত, গত বছরের শুরুর দিকে জানা যায়, দেশে ফোরজি আসছে। কিন্তু ওই বছর তরঙ্গের নিলাম আয়োজনও করা সম্ভব হয়নি। একই বছরের অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৬-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন, ২০১৭ সালে সারাদেশে ফোরজি চালু হবে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে এক অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, ২০১৭ সালে দেশে ফোরজি চালুর পদক্ষেপ হিসেবে স্পেক্ট্রামের নিলাম অনুষ্ঠিত হবে এবং বর্তমান সরকারের মেয়াদের মধ্যেই এই সেবা চালু করা হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, থ্রিজি সেবা চালু করে মোবাইল অপারেটরগুলোর একটা অভিজ্ঞতা হয়েছে। বিশাল অংকের অর্থ বিনিয়োগ করে সেই অর্থ এখনও বিনিয়োগেই এক প্রকার আটকে আছে। আবারও প্রায় একই ধরনের ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে বলে তাদের আশঙ্কা, বিদ্যমান ইস্যুগুলোর সমাধান না করে আগের পথে হাটলে একই ধরনের জটিলতায় পড়তে পারে টেলিযোগাযোগ খাত।

উল্লেখ্য, থ্রিজিতে মোবাইলফোন অপারেটরগুলোর বিনিয়োগের পরিমাণ ৩২ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে এখনও পর্যন্ত মাত্র ছয় হাজার কোটি টাকা ফেরত পেয়েছে বলে অপারেটরগুলোর দাবি।

জানা গেছে, মোবাইল অপারেটররা, ১২ বছর ভয়েস কলের রেকর্ড সংরক্ষণ, সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিল খরচ করার আগে অনুমতি নেওয়া, উচ্চ তরঙ্গমূল্য, প্রযুক্তি নিরপেক্ষতা,কনটেন্ট ফিল্টারিং, লোকেশন পিন পয়েন্ট ইত্যাদি বিষয়ে তাদের আপত্তির কথা জানিয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি অপারেটরগুলোকে ব্যাখ্যা দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমরা তাদের (মোবাইলফোন অপারেটর) কনসার্ন (আপত্তির বিষয়গুলো) নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেছি। এখনও সেই ধারাটা অব্যাহত আছে। বিটিআরসি তাদের বিষয়গুলো ‘এক্সপ্লেইন’ করেছে। সেটা নিয়েও আমরা অপারেটরগুলোর সঙ্গে বসবো। আমরা তাদের প্রতিটি কনসার্নের জায়গায় ‘অ্যাড্রেস’ করেছি। যেগুলো তাদের বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে বলে তারা মনে করছেন, সেগুলোর ব্যাখ্যা আমাদের কাছে এসেছে। আমরা তাদের নিয়ে বসবো।’

তিনি জানান, তারা (মোবাইলফোন অপারেটররা)যে কনসার্নগুলো আমাদের জানিয়েছেন, তার বেশিরভাগই সমাধান হয়ে গেছে। যে দুই-একটা বাকি রয়েছে সেসবও সমাধান হয়ে যাবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, অপারেটরগুলো ২৪টি ‘কনসার্ন’ দিয়েছিল ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে। এর মধ্যে ২২টিরই সমাধান হয়েছে গেছে বলে বিভাগ থেকে দাবি করা হয়েছে। 

মোবাইলফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের এক পদস্থ কর্মকর্তা নিজেকে উদ্ধৃত না করে বলেন, ‘সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিলসহ (এসওএফ) যে বিষয়গুলো এখনও সমাধান হয়নি তা নিলামের আগেই হওয়া জরুরি।’ তিনি এসওএফ -এর অর্থ খরচ করার বিষয়ে অনুমতি নেওয়ার বিষয়ে বলেন,‘এটা জটিলতা তৈরি করবে এবং জটিলতা বাড়াবে। এটারও সমাধান হওয়া জরুরি।’

বাংলালিংকের জ্যেষ্ঠ পরিচালক তাইমুর রহমান বলেন, ‘আমরা আশাবাদী, যে দুই-একটি সমস্যা রয়েছে, সেগুলো সমাধান হয়ে যাবে।’ তার আশা, তরঙ্গমূল্য (স্পেক্ট্রাম) আরও কমবে। তিনি সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিল সম্পর্কে বলেন, ‘আমরা সব সময়ই জানিয়ে থাকি, কোথায় আমরা এই টাকা খরচ করছি। কিন্তু অনুমতি নিয়ে খরচ করার বিষয়টিতে জটিলতা দেখতে পাচ্ছে অন্য অপারেটররাও। এটার একটা যৌক্তিক সমাধান হবে বলে আমরা আশাবাদী।’

 

শীতকালে নানা রকমের সবজি পাওয়া যায়। আর এই সবজি দিয়ে তৈরি করা হয় মজার মজার সব খাবার। কিন্তু বাচ্চাদের সবজি খাওয়ানো বেশ কষ্টসাধ্য কাজ। তাদের সবজি খাওয়ানোর জন্য মায়েদের অবলম্বন করতে হয় নানা কৌশলের। এখন সবজি খাওয়াতে পারবেন কেকের মাধ্যমে। অবাক শোনালেও সত্যি, ঘরে থাকা সবজি এবং অল্প কিছু উপাদান দিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন মজাদার সবজি প্যানকেক।


প্যানকেক তৈরি করার উপকরণ:


১টি গাজর কুচি
পালং শাক কুচি
বেবি কর্ণ ১/২ কাপ
ক্যাপসিকাম ১/২ কাপ
ক্রিম বা দুধ
গোলমরিচ গুঁড়ো
১ কাপ ময়দা
৬টি ডিম
পানি

প্রণালি:

১. প্রথমে অল্প কিছু ময়দা,গোলমরিচ গুঁড়ো এবং ডিম ভাল করে মিশিয়ে নিন।
২. এবার এতে ক্রিম বা দুধ মিশিয়ে নিন।
৩. তারপর এতে সামান্য পানি ভাল করে মিশিয়ে নিন। এমনভাবে মেশাবেন যাতে ফেনা উঠে যায়।
৪. মেশানোর সাথে সাথে সবগুলো সবজি দিয়ে দিন।
৫. তারপর এতে বাকী ময়দা মিশিয়ে নিন।
৬. ময়দা, সবজি, ডিম ভাল করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি যেন বেশি পাতলা বা ঘন না হয়ে যায়।
৭. এবার চুলায় প্যান গরম হয়ে এলে এতে মাখন বা তেল দিয়ে দিন।
৮. সবজির মিশ্রণটি গোল করে প্যানে দিন। অল্প আঁচে প্যান কেকটি রান্না করুন।
৯. এক পিঠ হয়ে গেলে অপর পিঠ উল্টিয়ে দিন।
১০. বাদামী রং হয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন।

টিপস: আপনি চাইলে সবজি আগে সিদ্ধ করে নিতে পারেন। সবজি সিদ্ধ করে নিলে বেশিক্ষণ ভাজার প্রয়োজন হবে না।

 

ডায়েট করছেন, এদিকে খেতে মন চায় মশলাদার চটপটে খাবার। এদিকে আবার নিজের জন্য একটু আয়োজন করে কিচ্ছু তৈরি করার সময়টাও নেই মোটেই। তাহলে উপায়? উপায় নিয়ে এসেছেন সায়মা সুলতানা। খুব সহজে মজাদার ও হেলদি স্পাইসি খাবার তৈরির একটি দারুণ রেসিপি আজ জানাচ্ছেন তিনি। যারা ডায়েট করছেন কিন্তু মুখরোচক খাবার খেতে চান, অন্যদিকে রান্নার পেছনে খুব একটা সময়ও দেয়া সম্ভব না, তাদের ক্ষেত্রে খুব কাজে আসবে এই রেসিপিটি।


যা লাগবে

হাড় ছাড়া মুরগির মাংস টুকরা  ৫০০ গ্রাম

পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ

রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ

পাপরিকা পাউডার ২ টেবিল চামচ

লাল মরিচ গুঁড়ো ২ চা চামচ

জিরা গুঁড়ো ২ চা চামচ

জয়েত্রী গুঁড়ো হাফ চা চামচ

জায়ফল গুঁড়ো হাফ চা চামচ

টমেটো কেচাপ ১ টেবিল চামচ

ধনিয়া পাতা মিহি কুচি ২ টেবিল চামচ

টক দই ২ টেবিল চামচ

লবণ স্বাদ অনুযায়ী

অলিভ অয়েল ১ টেবিল চামচ

প্রণালী

-অলিভ অয়েল ছাড়া উপরের সব উপকরণ এক সাথে মেখে মেরিনেট করে করে রাখুন ২ ঘন্টা , আগের দিন রাতে ও ফ্রিজে মেরিনেট করে রাখতে পারেন।

-দুই ঘন্টা পর মাংসের পিসগুলি কাঠিতে গেঁথে নিন। এখন বেকিং ট্রে-তে ফয়েল পেপার বিছিয়ে নিন , এবার এতে মাংস দিয়ে তৈরী স্কিউয়ার্স গুলি ছড়িয়ে নিন। এর উপর অলিভ অয়েল ছিটিয়ে দিন , এর ওপর কিছু ধনিয়া পাতা কুচি ছিটিয়ে দিতে পারেন ।

-বেকিং ট্রে-টা খুব ভালো করে ফয়েল পেপার দিয়ে মুড়িয়ে নিন, এভাবে যেন কোনো ভাবেই ভেতর থেকে ভাপটা না বের হতে পারে।

-এখন প্রি হিট করা ওভেনে ১৫০ ডিগ্রিতে কুক করুন ৩৫-৪০ মিনিট। হয়ে এলে ওভেন থেকে বের করে খুব সাবধানে ফয়েল পেপার খুলে নিন আর গরম গরম পরিবেশন করুন।

-ওভেন না থাকলে নন স্টিক প্যানে অল্প অলিভ অয়েলে ভেজেও নিতে পারেন।


আজ (২৫ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় ঢাকায় পৌঁছেছেন ভারতীয় অভিনেত্রী শাবানা আজমি ও তার স্বামী গীতিকবি জাভেদ আখতার।


সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় রাজধানীর ফার্মগেটের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ কমপ্লেক্স মিলনায়তনে ‘কাইফি অউর ম্যায়’ শিরোনামের একটি বিশেষ নাটক মঞ্চস্থ করবেন এই তারকা দম্পতি। 

আয়োজক ব্লুজ কমিউনিকেশনস জানায়, সন্ধ্যার আয়োজনে উর্দু সাহিত্যের স্বনামধন্য কবি কাইফি আজমির জীবন মঞ্চে তুলে আনবেন শাবানা ও জাভেদ। ভারতের চলচ্চিত্রে উর্দু সাহিত্যকে জনপ্রিয় করায় কাইফি আজমির অবদান অনেক।

শাবানা আজমির পিতা কবি কাইফি আজমি’র জীবনীনির্ভর মঞ্চনাটক এটি। কবি কাইফি আজমিকে নিয়ে শওকত কাইফির বই ‘ইয়াদ কি রেহগুজার’ থেকে নাটকটি রচনা করেছেন জাভেদ আখতার। মঞ্চে জাভেদ আখতার ও শাবানা আজমির কথোপকথনের মধ্য দিয়ে এগিয়ে চলে নাটকটির গল্প।

জাভেদ আখতার-শাবানা আজমির নাটকের পাশাপাশি এ আয়োজনে গজল পরিবেশন করবেন জসিন্দর সিং।

 

প্রতিটা ঋতুতেই আবহাওয়ার ধরণ অনুযায়ী ত্বকের জন্য প্রয়োজন হয় বিশেষ যত্নের। বিশেষ করে শীতের সময় ত্বকের প্রয়োজন হয় কিছুটা বাড়তি যত্ন এবং বাড়তি সতর্কতার। আমাদের শরীরের ত্বক শীতের সময়ে অন্যান্য সময়ের তুলনায় অনেক বেশী রুক্ষ এবং শুষ্ক হয়ে ওঠে। ত্বকের এমন বিরূপ আচরণ দেখা দেওয়া শুরু করে শীতকাল শুরু হবার বেশ আগে থেকেই।


শীত আসার আগে থেকে শুরু করে পুরো শীতকাল ধরেই ত্বকের প্রতি বাড়তি যত্ন নেওয়ার প্রয়োজন হয়। এছাড়াও, ত্বকের যত্নে নিয়মিত যে কাজগুলো করা হয় সেই রুটিনের ধরণ কিছুটা বদলে নিলেও অনেকটা সুবিধা হয়। ডাভ এর ডার্মাটোলোজিষ্ট ডা. অ্যালিসিয়া বারবা জানিয়েছেন শীতের মাঝে ত্বককে সুরক্ষিত রাখতে চাইলে কী করা উচিৎ।

১/ এক্সফলিয়েট করা কমিয়ে দিতে হবে


ত্বকের সুস্বাস্থ্যের জন্য এবং উজ্জ্বল পরিচ্ছন্ন ত্বকের জন্য এক্সফলিয়েট করা খুবই প্রয়োজনীয়। তবে এটাও মনে রাখতে হবে যে, এক্সফলিয়েশনের ফলে ত্বক অনেক শুষ্ক হয়ে যায়। তাই শীতকালে এক্সফলিয়েট করার হার কমিয়ে দিতে হবে অনেকখানি। ডা. বারবা জানান, "অতিরিক্ত এক্সফলিয়েশন এর ফলে মুখের ত্বকের প্রয়োজনীয় তেল কমে গিয়ে ব্রণের উপদ্রব দেখা দিতে পারে। তাই শীতকালে সপ্তাহে একবারের জন্য এক্সফলিয়েট করা যাবে।"

২/ হাইড্রেটিং ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে


মুখের ত্বক পরিষ্কার করার পাশাপাশি ত্বকের নমনীয়তার ব্যাপারেও খেয়াল রাখতে হবে। তাই মুখের ত্বকের জন্য হাইড্রেটিং ক্লিনজার, অর্থাৎ খুবই নমনীয় ধাঁচের কোন ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে। বারবা জানান, "শুষ্ক ত্বক অনেক বেশী অস্বস্তিকর। শুষ্ক ত্বক থেকে একজিমার মতো বড় ধরণের সমস্যা তৈরি হতে পারে।" এ কারণে ত্বক যেন বেশী শুষ্ক না হয় সেদিকে খেয়াল রেখেই হাইড্রেটিং ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে।

৩/ এক্সফলিয়েশনের পরে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে


ত্বকের সুস্বাস্থ্যের জন্য শীতকালে সপ্তাহে একবার এক্সফলিয়েট করতে হবে। প্রতিবার এক্সফলিয়েশনের পরে অবশ্যই মনে করে খুব চমৎকার এবং মুখের ত্বকের সাথে মানানসই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।

৪/ ঘুমাতে যাওয়ার আগে অবশ্যই মুখে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে


রাতে ঘুমানোর সময়টুকু ত্বক কোমল হবার সবচাইতে দারুণ সময়। তাই রাতে ঘুমাতে যাবার আগে একটু বেশী করে কোন ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম ব্যবহার করার কথা ভুলে গেলে চলবে না।

৫/ শীতকাল তো বটেই, সে কোন সময়েই ব্যবহার করতে হবে সানস্ক্রিন


ঘরের বাইরে বের হলেই ত্বককে রোদের করা তাপের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সানস্ক্রিন প্রয়োজন। তবে সেটা সকল সময়ের জন্যই প্রযোজ্য। শীতকালেও রোদের তেজ এবং ইউভি রশ্মির প্রভাব বিন্দুমাত্র কমে না। তাই সোয়েটার পরে থাকলেও, মুখের ত্বকে অবশ্যই ভালো কোন সানস্ক্রিন লাগিয়ে বের হতে হবে।

 

কিছু কিছু খাবার আছে যা বাড়িতেই রান্না করে খেতে ভালো লাগে। মায়ের হাতের এসব রান্নার জুড়ি নেই সত্যি, কিন্তু কিছু খাবার আবার বাড়িতে তৈরি করলে ঠিক স্বাদটা আসে না। এমন একটি খাবার হলো বুটের ডাল ভুনা। রাস্তার পাশের বিভিন্ন হোটেলে, হোস্টেলের ক্যান্টিনে বা ডাইনিং হলে খাওয়ার পর মুখে লেগে থাকে এই খাবারটির স্বাদ। অনেকেই ছুটির দিন সকালে এসব হোটেল থেকে ডাল ভুনা এবং পরোটা নিয়ে আসেন একটু আয়েশ করে খাবার জন্য। কিন্তু দারুণ মজার এই খাবারটির স্বাদ ঠিক রেখে যদি বাড়িতেই তৈরি করা যায়, তাহলে কেমন হয় বলুন তো? আজ দেখে নিন ঠিক হোটেলের ডাল ভুনার মতো স্বাদ নিয়ে আসার একটি রেসিপি।


উপকরণ


এক কাপ বুটের ডাল ( ভালোভাবে ধুয়ে সারারাত ভিজিয়ে রাখা)

একটা বড় পেঁয়াজ কুচি

একটা শুকনা মরিচ

একটা কাঁচামরিচ মাঝখান দিয়ে চিরে নেওয়া

১ চা চামচ জিরা গুঁড়ো

১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো

১ চা চামচ জিরা গুঁড়ো

১ চা চামচ আদা বাটা

১ চা চামচ রসুন বাটা

৩-৪ টেবিল চামচ তেল

স্বাদমত লবণ

প্রণালী


১) একটি বড় ফ্রাইপ্যানে তেল গরম করে নিন। এতে পিঁয়াজ কুচি, কাঁচামরিচ এবং শুকনো মরিচ দিন। কিছুটা লবণ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। পিঁয়াজ একটু ভাজা ভাজা করে নিন।

২) পিঁয়াজে হালকা বাদামি রং ধরলে এতে অল্প করে পানি দিন। এবার এতে গুঁড়ো এবং বাটা মশলাগুলো দিয়ে দিন। ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন এবং মশলা কষিয়ে নিন।

৩) মশলা থেকে পানি কমে যাবে এবং তেল ওপরে উঠে আসবে। এরপর আগের দিন রাত্রে ভেজানো ডাল থেকে পানি ঝরিয়ে নিন এবং তা এই মশলায় দিয়ে দিন। ডালটা ভালো করে মশলার সাথে মাখিয়ে কষিয়ে নিন ৫-৬ মিনিট। এরপর এতে ২ কাপ গরম পানি দিয়ে ঢাকনা চাপা দিয়ে রাখুন।

৪) ২৫-৩০ মিনিট কম আঁচে ঢাকনা চাপা দিয়ে রান্না হতে দিন। মাঝে মাঝে নাড়ুন নয়তো নিচে ধরে যাবে। এই সময়ের পর ঢাকনা খুলে নিন। এর মাঝেই ডাল সেদ্ধ হয়ে যাবে। আঙ্গুলে টিপে ধরলে গলে যাবে। আপনার পছন্দমত ঝোল কমিয়ে নেবার জন্য ঢাকনা খুলে আরো ৫ মিনিট রান্না হতে দিন।

একদম ঘরোয়া উপকরণে তৈরি এই ডালের স্বাদ হবে ঠিক হোটেলের সেই পারফেক্ট ডালের মত। আপনি চাইলে তা রুটি বা পরোটার সাথে পরিবেশন করতে পারেন। অথবা লাঞ্চে ভাত বা পোলাওয়ের সাথেও সাইড ডিশ হিসেবে রাখতে পারেন।

ভালোভাবে বুঝতে দেখে নিতে পারেন ভিডিও রেসিপিটি-

0

সেক্স রোবট বলতে আমরা এমন রোবটকে বুঝি যার সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করা সম্ভব। সাধারণত সেক্স রোবটের ভেতর এক ধরনের ডিভাইস স্থাপন করা থাকে। যে ডিভাইসের মাধ্যেমে রোবটটি তার পার্টনারের মধ্যে যৌন অনুভূতি সৃষ্টি করতে পারে। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন এই সেক্স রোবট সন্তানও জন্ম দেবে। হ্যাঁ, এমন তথ্য দিয়েছেন সার্জি সেনটস। নীল চোখের সেক্স রোবট সামান্তার আবিষ্কারক এই সার্জি। সার্জি সেক্স রোবটের সাহায্যে সন্তানের জন্ম দিতে আগ্রহী।


স্পেনের বার্সেলোনায় নিজ পরিবারের সঙ্গে থাকেন সার্জি। সার্জি মনে করেন, ভবিষ্যতে প্রতিটি মানুষ বিয়ের আগে সেক্স ডলের সঙ্গে বসবাস করবেন। 

সার্জি সেনটস আরও জানান, তিনি এমন এক ধরনের রোবট তৈরি করতে চান যে রোবটের নিজস্ব নৈতিকতা থাকবে। সেই রোবট বিচার করতে পারবে কোনটি ভালো কোনটি মন্দ। একটি মানুষের মধ্যে যেসব গুণাবলি থাকবে ওই রোবটের মধ্যেও সেইসব গুণাবলি থাকবে। তিনি জানান, এই রোবটের মাধ্যমে সন্তানেরও জন্ম দেওয়া যাবে খুব সহজে।

Sunnys-new-dog-robot-will-help-in-home-work 

বাসাবাড়িতে কাজে সহায়তা করতে পারে এমন রোবট কুকুর তৈরি করছে সনি। সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সনি আগামী মাসে নতুন এ রোবট জনসমক্ষে উন্মোচন করার পরিকল্পনা করছে। এর আগে এআইবিও(এইবো) সিরিজের আওতায় ৯০ দশক এবং বিংশ শতকের শুরুতে রোবট কুকুর উন্মুক্ত করেছিল সনি। তারই ধারাবাহিকতায় নতুন এ রোবট উন্মোচন করবে প্রতিষ্ঠানটি।


নতুন এই কুকুরের নড়া চড়ায় উন্নতরূপ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া এতে ইন্টারনেট সংযোগ যুক্ত করা হয়েছে যাতে এটি বাসা বাড়ির সকল কাজে সহায়তা করতে পারে। তবে কুকুরটির নাম কি হবে, তা এখনও জানা যায়নি। তাছাড়া রোবটটির দামও এখনও জানায়নি সনি। পূর্বেকার এইবো রোবটগুলো ২,৫০০ মার্কিন ডলারে বিক্রি হয়েছে।

এইবো সিরিজের রোবটগুলো বাণিজ্যিকভাবে জনপ্রিয়তা না পাওয়ায় ২০০৬ সালে এর উৎপাদন বন্ধ করে দেন সনির সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাওয়ার্ড স্ট্রিঙ্গার। কয়েক বছর ধরে এক্সপেরিয়া ক্যাম্পেইনের অংশ হসেবে এইবোকে উপস্থাপন করা হচ্ছে। সম্প্রতি সনির ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এইবো রোবটের অনেকগুলো মডেল প্রদর্শিত হয়েছিল।

IPhone-Tien-is-the-first-iPhone-I-will-not-buy-Ozniak 

মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপলের সহ প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ ওজনিয়াক জানিয়েছেন, অ্যাপলের সর্বশেষ বিশেষ ফ্ল্যাগশিপ ফোন আইফোন টেন কিনবেন না তিনি। সিএনবিসিকে ওজনিয়াক বলেন, ‘আইফোন ৮ নিয়েই আমি খুশি। আমার কাছে আইফোন ৮ আইফোন ৬ এর মতোই। তবে অনেকে আইফোন ৮কে আইফোন ৭ এর সাথে তুলনা করেছেন।’


২৩ অক্টোবর সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে আয়োজিত ‘মানি ২০/২০ কনফারেন্স’ এ ওজনিয়াক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বেশ কিছু কারণে আইফোন টেন প্রথম কোনো ফোন যা আমি প্রথমেই কিনছি না। তবে আমার স্ত্রী জেনেট হিল আইফোন টেন কিনবে, সুতরাং আমি খুব কাছাকাছি থেকে ফোনটি সম্পর্কে জানতে পারব’।

স্টিভ ওজনিয়াক একই সাথে অনেকগুলো নতুন ফোন ব্যবহারের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত। তবে এই ফোনটি তিনি কেন কিনছেন না তা বোঝা দুষ্কর। অ্যাপল তাদের নতুন এই আইফোন টেনকে বলছে ‘ভবিষ্যতের স্মার্টফোন’। আইফোন টেনে রয়েছে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি এজ-টু-এজ ওএলইডি ডিসপ্লে, ফেশিয়াল রিকগনিশন এবং থ্রিডি ক্যামেরা সেন্সর। ৯৯৯ ডলারের আইফোন এক্স প্রি-অর্ডার করা যাবে ২৭ অক্টোবর থেকে এবং হাতে পাওয়া যাবে ৩ নভেম্বর থেকে।

বাজার বিশ্লেষকরা একই সাথে দুটি ফোন উন্মুক্ত করার কারণে গ্রাহক আইফোন ৮ নাকি আইফোন টেন কিনতে আগ্রহী হবে তা নিয়ে বিভ্রান্তিতে রয়েছে।

 Stephen-Hawkings-PhD-thesis-is-open

ইন্টারন্যাশনাল ওপেন একসেস সপ্তাহকে সামনে রেখে সোমবার ইন্টারনেটে উন্মুক্ত হলো বিখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী ও গণিতজ্ঞ স্টিফেন উইলিয়াম হকিংয়ের পিএইচডি থিসিস। এর নাম ‘প্রপার্টি অব এক্সান্ডিং ইউনিভার্স’।


১৯৬৬ সালে সম্পন্ন করা স্টিফেন হকিংয়ের এই থিসিস এতদিন ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি অব স্কলারলিতে ছিল। ওপেন একসেস সপ্তাহ উপলক্ষে এটি উন্মুক্ত হওয়ায় এখন যে কেউ ডাউনলোড করে পড়তে পারবেন।

ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির লাইব্রেরি অফিস অব স্কলারলি কমিউনিকেশন সোমবার এক বার্তায় জানিয়েছে, অধ্যাপক স্টিফেন হকিংয়ের অনুমতি নিয়েই তার পিএইচডি থিসিস সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলো। এখন থেকে এটি ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজের ওপেন একসেস সংগ্রহশালা ‘অ্যাপোলো’তে পাওয়া যাবে।

এ প্রসঙ্গে স্টিফেন হকিং বলেন, ‘আমার পিএইচডি থিসিস ওপেন একসেসের মাধ্যমে উন্মুক্ত হওয়ার ফলে আশা করছি, সারাবিশ্বের অনেকেই এটি পড়তে ও এ বিষয়ে আরও ভালোভাবে জানতে পারবে। পৃথিবীর যে কেউ শুধু আমার থিসিসটি পড়তেই পারবে তা নয়, বরং নিজেদের নানা গবেষণায়ও কাজে লাগাতে পারবে।’

বিখ্যাত এই বিজ্ঞানী উল্লেখ করেন— ‘একজন তরুণ পিএইচডি গবেষক হিসেবে ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটিতে কাজ করতে পেরে আমি গর্ববোধ করি। এখানেই স্যার আইজ্যাক নিউটন, জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েল ও আলবার্ট আইনস্টাইনের মতো বিজ্ঞানী ও গবেষকরা কাজ করেছেন।’

ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির লাইব্রেরি অফিস অব স্কলারলি কমিউনিকেশনের উপ-প্রধান ড. আর্থার স্মিথ বলেন, ‘পিএইচডি থিসিস গবেষণা ও জ্ঞানার্জনের ক্ষেত্রে দারুণ সহায়ক হতে পারে। সেই ভাবনা থেকেই ওপেন একসেস ভিত্তিক গবেষণায় উৎসাহী হয়ে আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। এর মাধ্যমে বিজ্ঞান, তথ্যপ্রযুক্তি ও মেডিসিন বিষয়ে দারুণ সব থিসিস গবেষণা সবার জন্য উন্মুক্ত হবে। ফলে অনেকে এসব বিষয়ে আরও উন্নত গবেষণা করতে পারবেন।’

ড. আর্থার স্মিথ উল্লেখ করেন, ‘চলতি মাস থেকেই ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির সব পিএইচডি গবেষকের থিসিসের ডিজিটাল কপি জমা নেওয়া হবে। যারা ওপেন একসেসে নিজেদের থিসিস উন্মুক্ত করতে রাজি হবেন তাদের কাজগুলো একইভাবে উন্মুক্ত করা হবে। আমরা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই বিশেষ করে নোবেল পাওয়া ৯৮ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে থিসিস জমা দেওয়ার অনুরোধ জানাই।’



অ্যাপোলোর লাইব্রেরি সার্ভিসের পরিচালক ড. জেসিকা গার্ডনার বলেন, ‘৬০০ বছরের পুরনো ইতিহাস সমৃদ্ধ ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির লাইব্রেরি। এখানে এখন পর্যরন্ত ২০ হাজার ডিজিটাল তথ্য, ১৫ হাজার গবেষণা নিবন্ধ, ১০ হাজার মূল্যবান গবেষণা সংক্রান্ত ছবি, দুই হাজার ৪০০ থিসিস রয়েছে।’

জানা যায়, আইজ্যাক নিউটন ও চার্লস ডারউইনের মতো বিজ্ঞানীদের মূল গবেষণার কপিও অ্যাপোলোর লাইব্রেরিতে আছে। এগুলো ডিজিটাল করা হচ্ছে বলে জানান ড. জেসিকা। তার আশা, অধ্যাপক হকিংয়ের মতো এ গবেষণাপত্রগুলোর একসেসও সবার জন্য উন্মুক্ত করা যাবে।

শারীরিকভাবে ভীষণরকম অচল ও মোটর নিউরন রোগে আক্রান্ত স্টিফেন হকিং ২০০৯ সালে ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির সারাবিশ্বের অন্যতম সম্মানজনক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘লুকাসিয়ান প্রফেসর অব ম্যাথমেটিক্স’ থেকে অবসর নেন। এ পদে এর আগে স্যার আইজ্যাক নিউটনও দায়িত্ব পালন করেন। 



হলিউডে ২০১৪ সালে হকিংয়ের জীবন অবলম্বনে তৈরি হয় ‘দ্য থিওরি অব এভরিথিং’ নামের একটি ছবি। এতে তার ভূমিকায় অনবদ্য অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতা বিভাগে অস্কার, গোল্ডেন গ্লোব ও বাফটা পুরস্কার জেতেন ব্রিটিশ তারকা এডি রেডমেইন।  

আন্তর্জাতিকভাবে ‘ওপেন একসেস উইক’ শুরু হয়েছে সোমবার (২৩ অক্টোবর)। এবারের স্লোগান ‘ওপেন ইন অর্ডার টু…’। তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক এই আয়োজন চলবে ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত।

* উন্মুক্ত হওয়া স্টিফেন হকিংসের পিএইচডি থিসিস পাওয়া যাবে https://doi.org/10.17863/CAM.11283 অথবা https://cudl.lib.cam.ac.uk/view/MS-PHD-05437/1 ঠিকানায়।

Facebook-will-divide-the-news-feed-into-two-parts 

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের নিউজ ফিড আলাদা দু’টি ভাগে বিভক্ত হতে পারে। মূলত ব্যক্তিগত তথ্য ও বাণিজ্যিক পোস্টগুলো আলাদাভাবে পরিবেশন করা হবে এতে।


সোমবার (২৩ অক্টোবর) ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের বাড়তি বিজ্ঞাপনী সুবিধা দিতে নিউজ ফিড আলাদা করতে হতে পারে।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মূল আকর্ষণ হচ্ছে এর নিউজ ফিড। এখানে ব্যবহারকারীর বন্ধু ও পরিবারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড, ছবি, ভিডিও ইত্যাদি পরিবেশিত হয়। তাছাড়া পেজে লাইক দেওয়া থাকলে সে সংক্রান্ত তথ্য বা বিজ্ঞাপন এতে দেখা যায়।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষের দেওয়া বিবৃতিতে জানা যায়, এবার ব্যবহারকারীর জন্য দু’টি আলাদা ইউজার ফিড থাকবে। একটিতে বন্ধু ও পরিবারের আপডেট দেখাবে, অপরটিতে লাইক দেওয়া পেজের আপডেট। ইতোমধ্যেই ছয়টি দেশের ব্যবহারকারীর জন্য পরীক্ষামূলকভাবে পরিবর্তনটি প্রয়োগ করা হয়েছে।

ফেসবুকের নিউজ ফিড সংশ্লিষ্ট নির্বাহী কর্মকর্তা অ্যাডাম মসেরি একটি ব্লগ পোস্টে উল্লেখ করেছেন, নিউজ ফিড বিভক্ত করার পরীক্ষামূলক পরিবর্তনটি কয়েকমাস চলবে। যেসব দেশের ব্যবহারকারীদের উপর পরিবর্তনটি প্রয়োগ করা হয়েছে তা হলো- বলিভিয়া, কম্বোডিয়া, গুয়াতেমালা, সার্বিয়া, স্লোভাকিয়া এবং শ্রীলংকা।

ধারণা করা হচ্ছে, পেজ মালিকদের বিজ্ঞাপন ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত ফিডে দেখানোর জন্য আলাদা অর্থ দিতে হতে পারে। ইতোমধ্যেই ছোট-খাট মিডিয়া সাইটগুলোতে এর প্রভাব পরিলক্ষিত হওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে। স্লোভাকিয়ার একজন সাংবাদিক ফিলিপ স্টুহারিক একটি পোস্টে লিখেছেন, যদি আপনার ফেসবুক পেজের পোস্ট আগের নিউজ ফিডে দেখাতে চান, তবে আপনাকে অর্থ দিতে হবে।

তবে এখনই বিশ্বের দুশো কোটি ব্যবহারকারীর ফিড বিভক্ত করার কোনো পরিকল্পনা নেই প্রতিষ্ঠানটির। ব্যবহারকারীদের প্রতিক্রিয়া দীর্ঘদিন বিশ্লেষণের পর নিউজ ফিড বিভক্ত সংক্রান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ফেসবুক।

 


বলা হয়ে থাকে বেগুন, নেই কোনো গুণ। তবে পুষ্টিবিদরা প্রমাণ করে দিয়েছেন যে বেগুন, যে গুণে ভরপুর। মাংসের পুরভরা বেগুন, বেগুন ভর্তা, বেগুন সবজি, বেগুন ভাজি অনেকের পছন্দ। বেগুন সবজিটি অনেকে অনেক রকম করে রান্না করে থাকেন। বেগুন দিয়ে তৈরি পুরভরা বেগুন জনপ্রিয় আরেকটি রান্না। মাংসের পুর দিয়ে তৈরি এই খাবারটি ছোট বড় সবাই পছন্দ করবে। বাচ্চারা যারা বেগুন খেতে পছন্দ করে না, তারাও এই খাবারটি মজা করে খাবে। আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক মাংসের পুরভরা বেগুনের রেসিপি।


উপকরণ:


বেগুন ৪-৮টি

গরুর কিমা ২২৭ গ্রাম

ধনেপাতা কুচি ১ আঁটি

টমেটো কুচি ২টি

পেঁয়াজ কুচি ১টি ছোট

রসুন কুচি ২ কোয়া

তেল ৭ টেবিল চামচ

টমেটো পেস্ট ১ টেবিল চামচ

গরম মশলা গুঁড়া সামান্য

শুকনো মরিচ গুঁড়ো

লাল মরিচ গুঁড়ো

লবণ স্বাদ মতো

প্রণালি:


১. প্রথমে বেগুনগুলোর চামড়া ছাড়িয়ে মাঝে হালকা করে চিড়ে নিন। এবার বেগুনগুলো সামান্য তেলে অল্প আঁচে ভাজুন। আপনি চাইলে বেগুনের চামড়া রেখে দিতে পারেন।

২. প্যানে তেল গরম হয়ে এলে এতে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে নাড়ুন।

৩. পেঁয়াজ নরম হয়ে এলে এতে রসূন কুচি, শুকনা মরিচ গুঁড়ো, গরম মশলা গুঁড়ো দিয়ে নাড়ুন।

৪. এরপর গরুর কিমা, টমেটো পেস্ট, লবণ দিয়ে নাড়ুন।

৫. পর ধনে পাতা কুচি দিয়ে নাড়ুন। কিমা রান্না হয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন।

৬. এখন টমেটোকে গোল আকৃতি করে কেটে নিন।

৭. একটি নন-স্টিকে প্যানে তেল দিয়ে এর উপরে টমেটো টুকরো বিছিয়ে দিন।

৮. এখন হালকা ভাজি করা বেগুনের ভিতর মাংসের কিমা ঢুকিয়ে টুথপিক দিয়ে মুখ বন্ধ করে দিন।

৯. বেগুনের টুকরাগুলো টমেটোর উপর বিছিয়ে দিন।

১০. এবার বেগুনগুলোর উপর টমেটো টুকরো দিয়ে ঢেকে দিন।

১১. মাঝারি আঁচে ১০ মিনিট রান্না করুন।

১২. ১০ মিনিট পর চুলা থেকে নামিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার পুরভরা বেগুন

 Recipe-Shrimp-Paste

গরম ভাতের সঙ্গে চিংড়ি পোস্ত খেতে খুবই সুস্বাদু। এই আইটেমটি রান্না করে ফেলা যায় ঝটপট। জেনে নিন কীভাবে রান্না করবেন পোস্ত চিংড়ি।


উপকরণ


চিংড়ি- ৫০০ গ্রাম
সরিষা- ১ টেবিল চামচ
রসুন- ৬ কোয়া
মরিচ গুঁড়া- ১ চা চামচ
চিনি- স্বাদ মতো
তেল- ১ কাপ
পোস্ত দানা- ২ টেবিল চামচ
টমেটো- ১টি
কালোজিরা- ১ চা চামচ
লবণ- স্বাদ মতো
হলুদ গুঁড়া- ১ চা চামচ
পানি- প্রয়োজন মতো 
    

প্রস্তুত প্রণালি

চিংড়ি ভালো করে ধুয়ে নিন। চুলায় মাঝারি আঁচে প্যান দিয়ে তেল গরম করুন। গরম তেলে লবণ ও হলুদ দিয়ে চিংড়ি ভেজে নিন। হালকা ভাজা হলে চিংড়ি উঠিয়ে রাখুন।

পোস্ত দানা, রসুন ও সরিষা একসঙ্গে বেটে নিন। চুলায় মাঝারি আঁচে সসপ্যান দিন। ২ টেবিল চামচ তেল গরম করে কালোজিরা ভাজুন। কয়েক সেকেন্ড পর মরিচ গুঁড়া ও পোস্ত-সরিষা বাটা দিয়ে নাড়তে থাকুন। তেলে ছেড়ে দিলে হলুদ, লবণ ও চিনি দিন। ১ মিনিট নেড়ে ভেজে রাখা চিংড়ি দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে পানি দিন। ৫ থেকে ১০ মিনিট রান্না করুন। রান্না হয়ে গেলে নামিয়ে ধনেপাতা কুচি ছিটিয়ে পরিবেশন করুন গরম ভাতের সঙ্গে।
Blogger দ্বারা পরিচালিত.