আগামীতে ঢাকায় ফেসবুকের অফিস খোলা হবে: রিতেশ মেহতা




ভবিষ্যতে ঢাকায় ফেসবুকের অফিস চালু হবে বলে মন্তব্য করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের দক্ষিণ এশিয়া পলিসি প্রোগ্রামের প্রধান রিতেশ মেহতা। সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে  দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন। রিতেশ মেহতা বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে ফেসবুকের বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে। যার কিছু কিছু বাস্তবায়ন হতে শুরু করেছে।’ ঢাকাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ইতিবাচকভাবে নেওয়ায় ভবিষ্যতে এখানে অফিসও চালু করা হবে বলে তিনি জানান। তবে কবে নাগাদ অফিস চালু হতে পারে সেই ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট দিনক্ষণ না জানাতে পারলেও তিনি বলেন, ‘ফেসবুক ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সহযোগী হতে চায়।’



দেশে ফেসবুকের ‘বুস্ট ইওর বিজনেস’ শিরোনামের একটি প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকায় এসেছেন রিতেশ মেহতা। এই কর্মসূচিতে দেশের ১০ হাজার তরুণ-তরুণী ও উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। রিতেশ মেহতা বলেন, ‘এর আগে আমরা ডিজিটাল খিঁচুড়ি নামের একটি কর্মসূচি চালু করেছিলাম। এবার করলাম নিজের উদ্যোগ ও ব্যবসায়ে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য বুস্ট ইওর বিজনেস নামের কর্মসূচি।’


এক প্রশ্নের জবাবে রিতেশ বলেন,‘বাংলাদেশে এসব কর্মসূচি পরিচালনা করে ফেসবুকের মুনাফা করার কোনও উদ্দেশ্য নেই। সামাজিক এনগেজমেন্ট বাড়ানোর জন্য আমরা এটা করেছি। এটা করতে আমরা সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ। বিভিন্ন কমিউনিটির সঙ্গে আমরা এসব কাজ করছি।’ বাংলাদেশ থেকে ফেসবুক বুস্টিং, বিজ্ঞাপনসহ অন্যান্য খাত মিলিয়ে কী পরিমাণ অর্থ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি আয় করে থাকে জানতে চাইলে রিতেশ মেহতা বলেন, ‘আমার এই বিষয়ে কথা বলা বারণ।’


বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা কত তা জানতে চাইলে রিতেশ বলেন, ‘আমরা কোনও দেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রকাশ করি না। এটা আমাদের পলিসি। তবে যারা গবেষণা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন প্রযুক্তি মাধ্যম ব্যবহার করে যারা ফেসবুক বিশ্লেষণ করে থাকেন তারা হয়তো কখনও কখনও ধারণাগত একটা সংখ্যা প্রকাশ করে থাকে।’ উল্লেখ্য, ওই অনুষ্ঠানে আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, দেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২ কোটি ৭০ লাখ।


বাংলাদেশে ফেক বা ভুয়া আইডি বন্ধে (আইডি খোলার সময়) ফেসবুক জাতীয় পরিচয়পত্র বা ফটো আইডির ব্যবহার শুরুর কোনও পরিকল্পনা রয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, এটা জটিল প্রশ্ন। এটা করা মোটেও সহজ হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘কপিরাইট বলে একটা বিষয় রয়েছে। বিশ্বব্যাপী এটার একটা গ্রহণযোগ্য ও মানসম্মত সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তা চালু করা যাবে না। তবে কোনও দেশে অফিস চালু করলে বা অ্যাডমিন প্যানেল চালু করলে তখন স্থানীয় আইন মেনে অনেক কিছুই করা সম্ভব।’


অপর এক প্রশ্নের জবাবে রিতেশ বলেন, ‘কোনও ফটো আইডি ছাড়াই আইডি খুলতে পারা মোটেও ফেসবুকের ব্যবসায়িক কৌশল নয়। বরং এটা ফেসবুকের বৈশ্বিক নীতি।’


বাংলাদেশকে নিয়ে ফেসবুকের ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানতে চাইলে রিতেশ জানান, শিগগিরই স্যোশাল এনগেজমেন্ট বাড়ানোর জন্য আমরা আরও একাধিক কর্মসূচি বাংলাদেশে চালু করবো। এরই মধ্যে এ সংক্রান্ত দুটি কমর্সূচি চালু হয়ে গেছে বলেও জানান তিনি।

ভবিষ্যতে ঢাকায় ফেসবুকের অফিস চালু হবে বলে মন্তব্য করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের দক্ষিণ এশিয়া পলিসি প্রোগ্রামের প্রধান রিতেশ মেহতা। সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন। রিতেশ মেহতা বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে ফেসবুকের বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে। যার কিছু কিছু বাস্তবায়ন হতে শুরু করেছে।’ ঢাকাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ইতিবাচকভাবে নেওয়ায় ভবিষ্যতে এখানে অফিসও চালু করা হবে বলে তিনি জানান। তবে কবে নাগাদ অফিস চালু হতে পারে সেই ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট দিনক্ষণ না জানাতে পারলেও তিনি বলেন, ‘ফেসবুক ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সহযোগী হতে চায়।’