নতুন পরিচয়ে চুক্তিবদ্ধ হলেন পূর্ণিমায়া

 

একটি প্রবাদ আছে ‘যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে’। অভিনয়ের প্রয়োজনে চিত্রনায়িকা পূর্ণিমার চুল বাঁধা অর্থাৎ সাজগোজের ব্যাপারটি সম্পর্কে তার ভক্তরা ভালোই জানেন।


তবে পূর্ণিমা যে ভালো রাঁধতে পারেন কিংবা রান্না নিয়ে রীতিমতো নিরীক্ষা করতে পারেন, এ বিষয়টি অনেকেরই অজানা। অভিনয় কিংবা ফ্যাশন এমনকি সাম্প্রতিককালে উপস্থাপনা, সর্বশেষ গান গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। সবার জন্য এবার নতুন খবর হলো, পূর্ণিমা প্রথমবারের মতো রান্না বিষয়ক কোনও রিয়েলিটি শো’য়ের বিচারক হিসেবে কাজ করতে যাচ্ছেন।

স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড আয়োজিত দেশের অন্যতম সেরা রান্না বিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪ (বঙ্গাব্দ)’-এর তিন বিচারকের একজন হবার জন্য গত মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এই নায়িকা। প্রতিযোগিতার মূল স্টুডিও রাউন্ডে অভিজ্ঞ শেফ শুভব্রত মৈত্র ও বর্ষীয়ান রন্ধন বিশেষজ্ঞ নাহিদ ওসমানের সঙ্গে মিলে তিনি বিচারকের দায়িত্বপালন করবেন।

প্রথমবারের মতো রান্না বিষয়ক অনুষ্ঠানের বিচারক হবার পেছনে কী কী কারণ কাজ করেছে জানতে চাইলে পূর্ণিমা বলেন, “নিজে রন্ধনশিল্পী না হলেও আমার মনে হয় ভালো রান্নার গুণাগুণ বিচারের দক্ষতা আমার রয়েছে। এমনকি রান্না নিয়ে নিরীক্ষা করতেও পছন্দ করি। অভিনয়, নাচ, গানের অনুষ্ঠানের সঙ্গে তো বরাবরই সম্পৃক্ত ছিলাম। তবে ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ সেসব অনুষ্ঠান থেকে পুরোপুরি ব্যতিক্রম।’’

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন, ‘এ অনুষ্ঠানে দেশের ৭টি আলাদা অঞ্চল থেকে আসা ৪০ জনকে প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হবে। পরবর্তীতে ১৬ জনকে নিয়ে স্টুডিও রাউন্ড এবং বিভিন্ন ধাপে প্রতিযোগিতা পেরিয়ে একজনকে বেছে নেওয়া হবে; যিনি পাবেন ১৫ লাখ টাকার পুরস্কার। তবে এবার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এমন একজন রন্ধনশিল্পীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করবো আমরা যিনি শুধু রান্না পরিবেশনাতেই দক্ষ হবেন না বরং বুদ্ধিদীপ্ত উপস্থাপনের মাধ্যমে তার রেসিপির বিপণনেও পারদর্শী হবেন। আমার মনে হয়, প্রতিযোগিদের বন্ধু হিসেবে তাদের কাছ থেকে আমিও অনেক কিছু শিখতে পারবো। সেই সঙ্গে আমার অভিজ্ঞতা, জ্ঞান তাদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারবো।’

জানা গেছে, আসছে ১২ জানুয়ারি ২০১৮ থেকে প্রতি শুক্র-শনিবার রাত ৯টায় মাছরাঙা টেলিভিশনে ‘সেরা রাঁধুনী ১৪২৪’ অনুষ্ঠানটির প্রচার শুরু হবে।

একটি প্রবাদ আছে ‘যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে’। অভিনয়ের প্রয়োজনে চিত্রনায়িকা পূর্ণিমার চুল বাঁধা অর্থাৎ সাজগোজের ব্যাপারটি সম্পর্কে তার ভক্তরা ভালোই জানেন।