ষোল আনা বাঙালিয়ানা: বেগুন দিয়ে কেচকি শুঁটকির চচ্চড়ি

 

 আজকাল পিজ্জা-বার্গার-চিকেন ফ্রাইয়ের ভিড়ে যেন হারিয়েই গেছে বাঙালি হেঁসেলের চিরায়ত খাবারগুলো। যেসব খাবার একটা সময়ে তৈরি হতো ঘরে ঘরে, সেসব সেসব পরিণত হয়েছে শৌখিনতায়। তরুণ প্রজন্মের একটা বড় অংশ যেন চেনেই না সেই খাবারগুলোকে, যেগুলোর পরিচিত স্বাদে কেটেছে আমাদের শৈশব।


তেমনই আরও একটি খাবার বেগুন দিয়ে কেচকি শুঁটকির চচ্চড়ি ।  গরম গরম ভাতের সাথে এই কেচকি শুঁটকির চচ্চড়ি আসলেই ভীষণ মুখরোচক একটি খাবার। তবে হ্যাঁ, সব বেগুনে এই চচ্চড়ি মজাদার হবে না। বড় তাল বেগুন নয়, বরং বেছে নিতে হবে একদম চিকন চিকন দেশি বেগুনগুলো। কুচিয়ে নিতে হবে একটু মোটা করে। তবেই মিলবে স্বাদ, কেচকি আর বেগুন মিলে আপনার হেঁসেলে নিয়ে আসবে দারুণ দেশি আবহ। 

 
 চলুন, সায়মা সুলতানার হেঁসেল হতে জেনে আসি এই মজাদার রেসিপি।

যা লাগবে


কেচকি শুঁটকি ১ কাপ ( ধুয়ে নিয়ে প্যানে হালকা টেলে নেয়া। রান্নার আগে তেলে নিলে শুঁটকির ফ্লেভার বাড়ে। )

ছোট বেগুণ টুকরো করা হাফ কাপ পরিমাণ

রসুন কুচি ১ কাপ ( একটু মোটা করে কুচি করা )

পেঁয়াজ কুচি দেড় কাপ

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ

মরিচ গুঁড়ো ২ চা চামচ ( ঝাল কম খেতে চাইলে কম করে দিতে পারেন)

ধনিয়া গুঁড়ো ১ চা চামচ

তেল ১/৪ কাপ

লবণ স্বাদমত

প্রণালী


-প্রথমে প্যানে তেল দিয়ে এতে পেয়াজ কুচি দিন।

-মিডিয়াম আঁচে পেয়াজ নরম হবার আগ পর্যন্ত রান্না করুন। এখন রশুন কুচি দিয়ে রান্না করুন ৩ থেকে ৪ মিনিট ।

-এখন সব গুঁড়া মশলা দিয়ে নাড়াচাড়া করে অল্প পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন ।

-এবার টেলে রাখা শুঁটকি দিয়ে নাড়াচাড়া করে আরেকটু কষিয়ে নিন ।

-এতে বেগুণ টুকরা , স্বাদ অনুযায়ী লবণ , কয়েকটা কাঁচামরিচ আর ১/৪ কাপ পানি দিয়ে ঢাকনা লাগিয়ে মিডিয়াম আঁচে রান্না করুন আরও ১০ থেকে ১২ মিনি।

-তরকারিতে তেলটা উপরে উঠে এলে নামিয়ে গরম গরম ভাত এর সাথে পরিবেশন করুন এই বেগুন দিয়ে কেচকি শুঁটকি ভুনা !

আজকাল পিজ্জা-বার্গার-চিকেন ফ্রাইয়ের ভিড়ে যেন হারিয়েই গেছে বাঙালি হেঁসেলের চিরায়ত খাবারগুলো। যেসব খাবার একটা সময়ে তৈরি হতো ঘরে ঘরে, সেসব সেসব পরিণত হয়েছে শৌখিনতায়। তরুণ প্রজন্মের একটা বড় অংশ যেন চেনেই না সেই খাবারগুলোকে, যেগুলোর পরিচিত স্বাদে কেটেছে আমাদের শৈশব।