কেমিকেলমুক্ত যে উপাদানগুলো ব্যবহারে ঘর থাকবে পরিষ্কার

The-ingredients-that-are-free-from-chemicals-will-be-used-to-clean-the-house 


সকলেই চায় তার নিজের বাড়িঘর সাজানো গোছানো, আরামদায়ক এবং একদম ঝকঝকে পরিষ্কার রাখার জন্য। শুধু পরিষ্কার নয় একইসাথে স্বাস্থ্যকর এবং নিরাপদও রাখা প্রয়োজন নিজের বাড়িকে। নিজের ঘরে ভালমতো থাকার জন্য ঘর ও ঘরের সকল আসবাবপত্র থাকা চায় পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত। ঘরবাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য সকলেই নিশ্চয় বিভিন্ন ধরণের কেমিককেলযুক্ত পণ্য ব্যবহার করেন। এই সকল পণ্য কিন্তু পরিবেশবান্ধব বা ইকো-ফ্রেন্ডলি নয়। একইসাথে অনেক পণ্য ও পণ্যে ব্যবহৃত পদার্থ স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।


তবে এই সকল কারণে ঘরবাড়ি অপরিষ্কার রাখা সম্ভব নয় নিশ্চয়। তাহলে উপায়! উপায় তো অবশ্যই রয়েছে। জেনে নিন প্রাকৃতিক কিছু নিত্যদিনের ব্যবহার্য উপাদানের নাম, যেগুলো ঘরের বিভিন্ন উপাদান পরিষ্কারের ক্ষেত্রেও সাহায্য করবে দারুনভাবে।

১/ বেকিং সোডা এবং মাষ্টার্ড পাউডার

এই দুইটি উপাদান নিশ্চয় কমবেশী সকলের বাসাতেই থাকে। বেকিং সোডা ময়লা তুলে ফেলতে সাহায্য করে এবং মাষ্টার্ড পাউডার বিরক্তিকর তেল চিটচিটে ভাব দূর করতে সাহায্য করে। যার ফলে থালাবাসন ধোয়ার জন্য, ওভেন পরিষ্কার করার জন্য, স্যানিটারি পণ্য পরিষ্কার করার জন্য অথবা রান্নাঘরের যেকোন বাসন পরিষ্কারের জন্যেও ব্যবহার করা যাবে। এক লিটার পানিতে এক চা চামচ মাষ্টার্ড পাউডার মিশিয়ে নিয়ে এই মিশ্রণ যেকোন ভাবে ব্যবহার করা যাবে।

২/ লেবু

লেবু খুবই দারুণ একটি উপকরণ ময়লা পরিস্কারক হিসেবে। তেলের দাগ, ময়লা, টাইলসের দাগ তোলার ক্ষেত্রে লেবুর রস তুলনাহীন। এছাড়া প্রাকৃতিক এয়ার ফ্রেশনার হিসেবেও লেবু দারুণ কাজ করে। কাটিং বোর্ড পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে অথবা কাটিং বোর্ড থেকে দূর্গন্ধ দূর করার জন্য লেবুর রস সবচেয়ে ভালো কাজ করে। এছাড়াও মাইক্রোওয়েভের ভেতরের অংশ পরিষ্কার করার জন্য ৪০০ মিলিগ্রাম পানিতে ৩ টেবিল চামচ লাবুর রস মিশিয়ে উচ্চ তাপমাত্রায় মাইক্রওয়েভ ওভেনে গরম করতে হবে। এটি মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ভেতরের অংশ একেবারেই পরিষ্কার করে দিবে।

৩/ কোকা-কোলা অথবা পেপসি

কঠিন কোন ময়লা অথবা দাগ তোলার জন্য কোকা-কোলা অথবা পেপসির মতো কোমল পানীয় খুবই দারুণ একটি উপকরণ। লেবু কিংবা সাবানের মতোই স্যানিটারি যে কোন উপাদান পরিষ্কার করতে এটি কাজ করে থাকে। এর জন্য কোমল পানীয় ফুটিয়ে নিতে হবে এবং এরপর ব্যবহার করতে হবে।

৪/ টুথপেষ্ট

সবার বাসাতেই এই উপাদানটি সবসময় পাওয়া যায়, কারণ টুথপেষ্ট একটি নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ব্যবহার্য উপাদান। শুধু দাঁত পরিষ্কারের জন্যেই নয়, যেকোন কিছু থেকে একদম কম কষ্টে ময়লা পরিষ্কার করে ফেলতেও টুথপেষ্ট খুব ভালো কাজ করে। যেকোন রূপার জিনিস পরিষ্কার করতে, দেয়াল থেকে কলমের দাগ তুলে ফেলতে অথবা কাঠের কোন আসবাব থেকে চায়ের দাগ তুলতেও নির্বিঘ্নে টুথপেষ্ট ব্যবহার করা যাবে।

৫/ ট্যালকম পাউডার

ঘরে থাকা এই উপাদানটি যেমন প্রয়োজনীয় তেমন নিরীহ। কাপড় কিংবা মেঝের দাগ তোলার জন্য ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করা যেতে পারে।

৬/ আলু

মজাদার আলুভাজির জন্যেই শুধু আলু চমৎকার নয়, রান্নাঘর কিংবা ঘরের ময়লা পরিষ্কার করার ক্ষেত্রেও আলু চমৎকার কাজ করে। যে কারণে রান্নার পাশাপাশি রান্নাঘর পরিষ্কার করার কাজেও আলু ব্যবহার করা যাবে। রান্নাঘরের তৈলাক্ত জানালা পরিষ্কার করতে চাইলে এক টুকরা আলু খুব ভালোভাবে জানালার গ্রিলে ঘষতে হবে কিছুক্ষণ। এরপরে পরিষ্কার কোন কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। ঘরের টাইলসও একই উপায়ে পরিষ্কার করা যাবে।

৭/ অলিভ অয়েল

পছন্দের চামড়ার কোন পণ্য অথবা খুব দামী কোন কাঠের আসবাব ঝাঁ চকচকে করার জন্যে অন্য কোন উপাদান নয়, প্রয়োজন কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল! এই একটি উপাদান ব্যবহারেই আপনার প্রিয় কোন পণ্য অথবা আসবাব একদম নতুনের মতো হয়ে উঠতে পারে। সেজন্য কোন পরিষ্কার কাপড় কিংবা তুলাতে কয়েক ফোঁটা অলিভ ওয়েল নিয়ে ভালভালে মুছতে হবে।

সকলেই চায় তার নিজের বাড়িঘর সাজানো গোছানো, আরামদায়ক এবং একদম ঝকঝকে পরিষ্কার রাখার জন্য। শুধু পরিষ্কার নয় একইসাথে স্বাস্থ্যকর এবং নিরাপদও রাখা প্রয়োজন নিজের বাড়িকে। নিজের ঘরে ভালমতো থাকার জন্য ঘর ও ঘরের সকল আসবাবপত্র থাকা চায় পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত। ঘরবাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য সকলেই নিশ্চয় বিভিন্ন ধরণের কেমিককেলযুক্ত পণ্য ব্যবহার করেন। এই সকল পণ্য কিন্তু পরিবেশবান্ধব বা ইকো-ফ্রেন্ডলি নয়। একইসাথে অনেক পণ্য ও পণ্যে ব্যবহৃত পদার্থ স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।