তাসকিন: খলনায়ক তিনি, নায়কও!

Tuskin-The-villain-he-the-hero 

নায়ক নয়। সোয়াট, পুলিশ, বোমা নিষ্ক্রিয় দলসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কেউই নয়। সবার মুখে মুখে এখন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির ভিলেন বচন! নায়ক-নায়িকাকে ছাপিয়ে ভিলেন জিসানই হয়ে উঠেছেন হিরো! এই চরিত্রে অভিনয় করা তাসকিন রহমানের নাম চারদিকে ফুটছে টগবগ করে! সকলেই বলছেন, ছবিটির ট্রাম কার্ড তিনিই।


স্বাভাবিক, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন প্রশংসার বন্যায় ভাসছেন তাসকিন। তাকেই দেশীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সবচেয়ে স্মার্ট খলনায়ক বলছেন সবাই। খলনায়ক হলেও নায়কোচিত দাপট দেখিয়ে আলো কেড়ে নিলেন তিনি।

তাসকিনের অভিনয় আর অভিব্যক্তি দেখে মুগ্ধ তারকারাও। অভিনেত্রী-নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওনের বন্ধু তিনি। ফেসবুক স্ট্যাটাসে বন্ধুকে নিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘আমার শৈশবের সরল সাদাসিধা বন্ধুটা এমন অসুস্থ একটা চরিত্রে যা করে দেখালো! অঞ্জন, বন্ধু তুমি অভিনেতা হয়েই জন্মেছো।’

চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ তার ফেসবুকে তাসকিনের সঙ্গে নিজের ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘যখন ভিলেনই নায়কের চেয়ে অনেক বেশি আকর্ষণীয়!’ একই ছবির অন্যতম অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ কমেন্ট করেছেন, ‘উড়ায়া দিছো তুমি! সবাই তোমার কথা বলছে তাসকিন রহমান।’ অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদ স্ট্যাটাস দিয়েছেন, ‘তাসকিন রহমান, তুমি অনেকদূর যাবে।’ অভিনেতা এবিএম সুমনের স্ট্যাটাসে দেখা গেছে— ‘তাসকিন রহমান তুমি খুনে সুপারস্টার!’

সংগীতশিল্পী প্রীতম হাসানের মন্তব্য, “সবাই বলছে ‘দ্য ডার্ক নাইট’-এ জোকারের ভূমিকায় হিথ লেজার যেমন নৈপুণ্য দেখিয়ে গেছেন, তাসকিন রহমানের অভিনয়ও অনেকটা ওইরকম। আমরা জানতাম এমনটাই হবে। তিনিই বাংলাদেশের নতুন প্রজন্মের সেরা ভিলেন।” পরিচালক দীপংকর দীপন তো তাসকিনকে তুলনা করেছেন ‘নো কান্ট্রি ফর ওল্ডমেন’খ্যাত অস্কারজয়ী অভিনেতা হাভিয়ার বারদেমের সঙ্গে!


সব মিলিয়ে খলনায়ক চরিত্রেও যে কাঁপিয়ে দেওয়া যায় তা অভিষেকেই দেখিয়েছেন তাসকিন। তার অভিনয়ে রীতিমতো মুগ্ধ সবশ্রেণির দর্শক। তাদের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নতুন দিনের নতুন ভিলেন। তিনি স্মার্ট, ড্যাশিং, ডেডলি!’ কারও মতে, ‘অসাধারণ তাসকিনই ছবিটিকে স্পেশাল করে দিয়েছেন।’

‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে জিসানই গোটা ঢাকাকে ধ্বংস করার ছক কষে। সে উগ্র আদর্শবাদী। ধ্বংসের ভেতরে ভয়ঙ্করভাবে বিজয় দেখে সে। ঠাণ্ডা মাথার সাইকো ভিলেন যাকে বলে! এ চরিত্রে তাসকিন পর্দায় এসেই নীলচে সাদা চোখের রাঙানিতে দর্শকদের মনে ‘অ্যাটাক’ করেছেন। তার প্রকাশভঙ্গি, অ্যাকশন সবই আন্তর্জাতিক মানের বলে মন্তব্য অনেকের।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্তব্যের ঘরে ঘুরেফিরে আসছে— তাসকিন সত্যিকার অর্থে ভয় দেখাতে পেরেছেন দর্শকদের। ভিলেন চরিত্রকে একঘেয়েমির বৃত্ত থেকে বের করে এনেছেন। হুমকি-ধামকি, পেশী আর ভয়ঙ্কর চেহারা না দেখিয়েও যে ভীতি ছড়ানো যায় তা দেখিয়েছেন এই তরুণ।

তাসকিনের অভিনয় দক্ষতা দেখে বেশিরভাগ সাধারণ দর্শকের মন্তব্য, আরেকজন হুমায়ুন ফরীদি এসে গেছেন! তিনি ছাড়া আর কোনও ভিলেন এতটা গ্রহণযোগ্যতা পাননি বলে মনে করেন তারা। কাকতাল হলেও সত্যি, ১৯৯০ সালে বিটিভিতে প্রচারিত ‘শীতের পাখি’ নামের একটি নাটকে শিশু শিল্পী হিসেবে প্রয়াত এই নন্দিত অভিনেতার সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন তাসকিন। এবার সেই অভিনেতার সঙ্গেই তুলনা হচ্ছেন তাসকিন। তিনি কী বলেন? ‘এটা দর্শকদের অনুভূতি। অবশ্যই এমন তুলনা আমার জন্য পরম পাওয়া। কিন্তু ফরীদি স্যারের সঙ্গে কারও তুলনা চলে না। তার ধারেকাছেও যাওয়া আমার জন্য স্বপ্নের মতো।’

তাসকিনকে দেখে মনে হবে কোনও বিদেশি অভিনেতা বুঝি! কারণ তার লুকে হলিউডি একটা ব্যাপার আছে। কিন্তু তিনি বাংলাদেশেরই ছেলে। এখন আছেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। বড় ভাই তানিম রহমান অংশুর পরিচালনায় ‘আদি’ (মুক্তি প্রতীক্ষিত) ছবিতে কাজ করেছেন আগে। এর শুটিং চলাকালীন দীপংকর দীপনের মাধ্যমে ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এ জিসান চরিত্রের কাজের প্রস্তাব যায় তার কাছে।

‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর নায়ক আরিফিন শুভর সঙ্গে ২০০৭ সালে ‘চক্র’ নামের একটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন তাসকিন। আরও কিছু নাটকে দেখা গেছে তাকে। দেশের বাইরে থাকায় লম্বা বিরতি পড়েছে অভিনয়ে। ২০০২ সাল থেকে ক্যাঙ্গারুদের দেশে আছেন তিনি। সেখান থেকে  জানালেন, সিডনিতে গভর্নমেন্ট ডিপার্টমেন্টে কারেক্টিভ সার্ভিস ডিভিশনে কাজ করছেন।


মজার ব্যাপার হলো, তাসকিনের হাতে এখন যে তিনটি ছবি, এর মধ্যে দুটির নায়ক ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর দুই সহশিল্পী! এগুলো হলো শুভর সঙ্গে ‘মৃত্যুপুরী’ আর এবিএম সুমনের সঙ্গে ‘আদি’। অন্যদিকে শাকিব খানের ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ ছবিতেও থাকছেন তিনি।

সিডনিতে বসে  কাছে তাসকিনের আত্মবিশ্বাস প্রকাশ— ‘আগামীতে দর্শকদের আরও ভালো কিছু কাজ উপহার দিতে পারবো।’

নায়ক নয়। সোয়াট, পুলিশ, বোমা নিষ্ক্রিয় দলসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কেউই নয়। সবার মুখে মুখে এখন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির ভিলেন বচন! নায়ক-নায়িকাকে ছাপিয়ে ভিলেন জিসানই হয়ে উঠেছেন হিরো! এই চরিত্রে অভিনয় করা তাসকিন রহমানের নাম চারদিকে ফুটছে টগবগ করে! সকলেই বলছেন, ছবিটির ট্রাম কার্ড তিনিই।