আহামরি কিছু নয়, সাধারণ কলাই সমাধান করবে চুলের সমস্যার!

 Ahamari-is-nothing-the-common-plating-solution-hair-problems

চুলের যত্নের জন্য অন্যান্য সকল উপাদানের পাশাপাশি ফল হিসেবে কলাও ব্যবহারের চল রয়েছে। কলাতে থাকা বিভিন্ন ধরণের ভিটামিন, পুষ্টিগুণ এবং অ্যাসিড সমূহ চুলের যত্নের জন্য এবং চুলের উপকারের জন্য খুব ভালো। যে কারণে চুলের নানান রকম প্যাক তৈরিতে কলা প্রধান উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।


চুল ভেঙে যাওয়া, চুলের আগা ফেটে যাওয়া, চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়া, চুল পড়ে যাওয়ার মতো সমস্যাগুলোর ক্ষেত্রে কলা খুব উপকারী একটি উপাদান হিসেবে কাজ করে থাকে। এছাড়া বাজারের বিভিন্ন ধরণের কেমিক্যালযুক্ত পণ্য ব্যবহার পরিবর্তে প্রাকৃতিক উপাদান কলার যথাযথ ব্যবহার চুলের ক্ষেত্রে বেশী দ্রুত ও ভালো কাজ করে। আজকের ফিচার থেকে জেনে নিন চুলের কোন সমস্যা ও সমাধানের জন্য কলা দিয়ে তৈরি ভিন্ন ভিন্ন চুলের প্যাকের বিবরণ।

উজ্জ্বল ও শক্ত চুলের জন্য কলা ও লেবুর প্যাক

একটি পাকা কলা ভালোভাবে ভর্তা করে নিতে হবে। এরপর এর সাথে এক টেবিল চামচ পরিমাণ লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে পুরো চুলে ভালোভাবে লাগাতে হবে। এক ঘন্টা রেখে দেওয়ার পর হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিয়ে এরপর শ্যাম্পু করে ফেলতে হবে। সপ্তাহে একবার এই পদ্ধতিতে চুলে প্যাক ব্যবহার করা যাবে।

চুলের গোড়া শক্ত করতে কলা ও ডিমের সাদা অংশের প্যাক

একটি পাকা কলা ভর্তা করে তার সাথে একটি ডিমের সাদা অংশ মেশাতে হবে। পুরো চুলে, বিশেষ করে চুলের গোড়ায় ভালোভাবে এই প্যাকটি লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট সময় অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে গেলে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে হালকা ধাঁচের কোন শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। কাঙ্ক্ষিত ফলাফল পাওয়ার জন্য সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করতে হবে।

সুস্থ চুল পেতে ডিম ও অলিভ অয়েলের প্যাক

একটি পাকা কলা ভর্তা এবং এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এই প্যাক তৈরি হয়ে গেলে পুরো চুল ও চুলের গোড়ায় ভালোভালে লাগিয়ে নিয়ে এক ঘণ্টার জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর সাধারণ তাপমাত্রার পানি ও হালকা কোন শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালোভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে। এক মাসের মাঝে দুইবার চুলের এই প্যাক ব্যবহার করলে চুলের বেশীরভাগ সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

চুল ভেঙে যাওয়া প্রতিরোধে ডিম ও অ্যালোভেরার প্যাক

একটি বাটিতে দুই টেবিল চামচ পরিমাণ তাজা অ্যালোভেরার জেল ও একটি পাকা কলার ভর্তা নিয়ে একসাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর এই প্যাক চুলের গোড়া থেকে শুরু করে পুরো চুলে সমানভাবে লাগিয়ে নিয়ে এক ঘণ্টার জন্য রেখে দিতে হবে। শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে ধীরে ধীরে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে এবং প্রয়োজন হলে শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। প্রতি সপ্তাহে একবার করে এই প্যাক ব্যবহারে চুলে লক্ষণীয় পরিবর্তন দেখা দেবে।

চুল নমনীয় করতে ডিম ও নারিকেল তেলের প্যাক

একটি পাকা কলা ভর্তা এবং দুই টেবিল চামচ নারিকেল তেল একসাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর পুরো চুলে লাগিয়ে ৪০-৪৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। শুকিয়ে গেলে সাধারণ তাপমাত্রার পানি দিয়ে চুল ভালোভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে। প্রতি সপ্তাহে দুইবার এই প্যাক ব্যবহার করলে চুলের রুক্ষতা কমে আসবে অনেকখানি।

চুলে পুষ্টি জোগাতে ডিম ও মধুর প্যাক

একটি পাকা কলা ভর্তা, দুই টেবিল চামচ মধু ও আধা চা চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার একসাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে নিতে হবে। এরপর এই মিশ্রণ চুলের গোড়ায় খুব ভালোভাবে ঘষে ঘষে লাগাতে হবে এবং হেয়ার প্যাক দিয়ে চুল ঢেকে রাখতে হবে যেন কোন ধুলাবালি মাথায় লাগে। এক ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে একবার করে চুলের এই প্যাকটি ব্যবহার করতে হবে।

চুলের যত্নের জন্য অন্যান্য সকল উপাদানের পাশাপাশি ফল হিসেবে কলাও ব্যবহারের চল রয়েছে। কলাতে থাকা বিভিন্ন ধরণের ভিটামিন, পুষ্টিগুণ এবং অ্যাসিড সমূহ চুলের যত্নের জন্য এবং চুলের উপকারের জন্য খুব ভালো। যে কারণে চুলের নানান রকম প্যাক তৈরিতে কলা প্রধান উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।