বন্ধ রোমকূপের সমস্যা দূর করুন ৭টি কৌশলে

 

সমগ্র বিউটি কমিউনিটি এখন ব্ল্যাকহেড কিভাবে দূর করতে হবে এমন হাজারো সামগ্রী দিয়ে ভরপুর। কিন্তু এই প্রত্যেকটি প্রোডাক্ট আসলে কতটুকু উপকারি? আমাদের রোমকূপের আকৃতি আসলে জেনেটিক এবং এগুলো অপরিবর্তিত। আপনি চেষ্টা করলেও বড় রোমকূপ ছোট করতে পারবেন না একটি নির্দিষ্ট মাত্রার পর। এ কারণে রোমকূপ ময়লা আটকে বন্ধ হয়ে যাওয়ার সমস্যাটি অনেককে ভোগায়। কোনো প্রোডাক্ট ব্যবহারেই যদি ব্ল্যাকহেডসের সমস্যা দূর না হয় তাহলে আপনার উচিৎ রোমকূপ যাতে বন্ধ না হয় তার ব্যবস্থা করা। কারণ ব্ল্যাকহেডসের জন্য এই ময়লা জমে বন্ধ হয়ে থাকা রোমকূপ বা ক্লগড পোরস দায়ী। চলুন দেখে নিই রোমকূপ বন্ধ হয়ে থাকার ঝামেলাটি দূর করার কিছু উপায়।


দুগ্ধজাত খাবার এবং চিনি বাদ দেওয়া

অধিক পরিমাণে দুগ্ধজাত খাবার এবং মিষ্টিজাতীয় খাবার খেলে ত্বকের হরমোনজাতীয় সমস্যা বেড়ে যায় এবং তৈল নিঃসরণ বাড়তে থাকে। এতে করে ত্বকের তৈলাক্তভাব বেড়ে যায় এবং অ্যাকনে এবং ব্ল্যাকহেড দেখা দেয়। অতিরিক্ত তৈলাক্তভাবের কারণে রোমকূপ আকারে বেশ বড় দেখা যায়। সুতরাং এ ধরনের খাবার খাওয়া কমাতে হবে।

ত্বকে ভাপ দেওয়া

ত্বকে ভাপ দিলে সেটি যাবতীয় ময়লা দূর করে ত্বককে নরম করতে সাহায্য করে। অতঃপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুলে ত্বক টানটান হয় এবং আলাদা একটা গ্লো আসে মুখে।  এই কাজটি দীর্ঘ সময় ত্বক ভালো রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

এক্সফোলিয়েট করুন

দূরে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার আগে পার্লারে এক্সফোলিয়েট করাবেন আর সারা মাস কোন খবর থাকবে না, তা কিন্তু মোটেই ভালো অভ্যাস নয়। আবার দামি স্ক্রাবার ব্যবহার করলেই যে শুধুমাত্র ভালো উপকার পাবেন, তাও নয়। সিলিকন কিংবা রাবার ব্রাশের স্ক্রাবার ব্যবহার করলে আপনি বেশ লাভবান হবেন। আপনার ত্বক নরম ও কোমল হয়ে উঠবে। ত্বক স্ক্রাব করতে অবশ্যই মাইল্ড কোন স্ক্রাবার ব্যবহার করবেন।

টোনার ব্যবহার করুন

ত্বকের মান ভালো করতে এবং অতিরিক্ত তৈলাক্তভাব কমাতে টোনার বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ত্বকের পিএইচ ব্যালেন্সকেও একদম নিয়ন্ত্রণে রাখে টোনার।ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করার পর অবশ্যই টোনার ব্যবহার করুন।

প্রাইমার

মেকআপ করার পূর্বে প্রাইমার লাগানোর অভ্যাস করুন। তা না হলে খুব দ্রুত আপনার ত্বক বুড়িয়ে যাবে। প্রাইমার আপনার ত্বক এবং ফাউন্ডেশনের মাঝে একটি বাঁধা সৃষ্টি করে যার ফলে মেকআপ আপনার রোমকূপে প্রবেশ করে খুব একটা ক্ষতি করতে পারে না।

চারকোল

যে সকল প্রোডাক্টে চারকোল থাকে সেগুলো রোমকূপ পরিষ্কার রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অতিরিক্ত তেল শোষণ করে নিয়ে ত্বককে স্বাস্থোজ্জ্বল রাখে। ইদানিং বাজারে চারকোল ফেসপ্যাক, ক্লে মাস্ক, স্ক্রাব, ফেসওয়াশ ইত্যাদি বিভিন্ন কিছু পাওয়া যায় যা আপনার অবশ্যই ট্রাই করে দেখা উচিৎ।

সান প্রটেকশন

রোমকূপ বন্ধের প্রবণতা তখনি দেখা দেয় যখন এতে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির প্রভাব পড়ে মাত্রাতিরিক্তভাবে। এতে করে রোমকূপ বড় দেখা যায় এবং ত্বক তার স্বাভাবিক অবস্থা হারাতে বসে। সেজন্যে বেশ ভালো মানের এসপিএফ যুক্ত সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করা উচিৎ যেন সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ত্বকের ওপর কোন বিরুপ প্রভাব ফেলতে না পারে।

রোমকূপ পরিষ্কার রাখতে অবশ্যই নিম্নোক্ত নিয়মগুলো মেনে চলবেন-

-      ত্বকে অ্যাকনে থাকলে অবশ্যই সাবান ব্যবহার করা যাবে না।

-      ঘুমানোর পূর্বে অবশ্যই মেকআপ ভালো মত তুলে নিতে হবে।

-      নন-কমেডোজেনিক প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে হবে।

-      শক্তিশালী ফেসওয়াশ ব্যবহার এড়িয়ে চলতে হবে তা না হলে ত্বক অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয়ে পড়বে।

-      আলতোভাবে মাইল্ড ক্লেনজার দিয়ে মুখে স্ক্রাব করুন, কিন্তু খুব বেশি সময় ব্যয় করবেন না এতে।

-      ক্লেনজিং-টোনিং-ময়েশ্চারাইজিং এ রুটিন অনুসরণ করুন।

-      তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বিশেষ ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম ব্যবহার করুন।

সমগ্র বিউটি কমিউনিটি এখন ব্ল্যাকহেড কিভাবে দূর করতে হবে এমন হাজারো সামগ্রী দিয়ে ভরপুর। কিন্তু এই প্রত্যেকটি প্রোডাক্ট আসলে কতটুকু উপকারি? আমাদের রোমকূপের আকৃতি আসলে জেনেটিক এবং এগুলো অপরিবর্তিত। আপনি চেষ্টা করলেও বড় রোমকূপ ছোট করতে পারবেন না একটি নির্দিষ্ট মাত্রার পর। এ কারণে রোমকূপ ময়লা আটকে বন্ধ হয়ে যাওয়ার সমস্যাটি অনেককে ভোগায়। কোনো প্রোডাক্ট ব্যবহারেই যদি ব্ল্যাকহেডসের সমস্যা দূর না হয় তাহলে আপনার উচিৎ রোমকূপ যাতে বন্ধ না হয় তার ব্যবস্থা করা। কারণ ব্ল্যাকহেডসের জন্য এই ময়লা জমে বন্ধ হয়ে থাকা রোমকূপ বা ক্লগড পোরস দায়ী। চলুন দেখে নিই রোমকূপ বন্ধ হয়ে থাকার ঝামেলাটি দূর করার কিছু উপায়।