জেনে নিন লাল মাংস রান্নার স্বাস্থ্যকর উপায়

 

লাল মাংস খেতে অনেকেই বেশ ভালোবাসেন। যেমন : গরুর মাংস, খাসির মাংস ইত্যাদি। লাল মাংস আয়রন ও প্রোটিনের ভালো উৎস। এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি এবং জিংক। মাংস দেহে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। তবে লাল মাংসের কারণে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা হতে পারে। তাই স্বাস্থ্যকরভাবে লাল মাংস রান্না করা উচিত।


লাল মাংসের ক্ষতকারক দিক:

লাল মাংসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে স্যাচুরেটেট ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল, যা হৃদরোগ তৈরি করে।
প্রক্রিয়াজাত লাল মাংসে রয়েছে উচ্চমাত্রার সোডিয়াম। সোডিয়াম উচ্চ রক্তচাপ বাড়ায়; যা স্ট্রোক এবং হৃদরোগ তৈরি করতে পারে।
এর মধ্যে রয়েছে হেমি আয়রন, যা টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়।
বেশি মাত্রায় লাল মাংস খেলে প্রোস্টেট ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ে।

কীভাবে রান্না করবেন লাল মাংস:
লাল মাংস কাটার সময় ছোট ছোট টুকরো করুন। প্রতিটি টুকরো হতে পারে তিন থেকে চার আউন্স। এতে ভালো পরিমাণে প্রোটিন পাওয়া যাবে এবং স্যাচুরেটেট ফ্যাট কম পরিমাণে থাকবে।
মাংস রান্নার আগে বাড়তি চর্বি ফেলে দিন।

যদি কেউ ফ্লুতে আক্রান্ত থাকেন এবং তিনি যদি মাংস রান্নার আগে ধোয়া, কাটাকাটি ইত্যাদি করেন তবে জীবাণু মাংসে লেগে যেতে পারে। তাই অবশ্যই ভালো করে হাত ধুয়ে মাংস প্রস্তুত করুন। রান্নাঘরের জন্য পরিষ্কার তোয়ালে ব্যবহার করুন। তোয়ালে না ধুয়ে ব্যবহার করলে জীবাণু ছড়াতে পারে।

মাংস কাটার জন্য চপিং বোর্ড ভালো করে ধুয়ে নিন এবং কাটার পরেও চপিং বোর্ডকে ধুয়ে রাখুন।
রান্না করার আগে ফ্রিজ থেকে বের করে মাংস কিছুক্ষণ বাইরে রেখে দিন, যাতে তা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ফিরে আসে। এর ফলে মাংস বাইরে ও ভেতরে ভালোভাবে সিদ্ধ হবে।

রান্নার সময় সাধারণত মাংস থেকে চর্বি বের হয়। তাই মাংস রান্নার সময় বেশি তেল ব্যবহার না করাই ভালো। লাল মাংস রান্নার সময় কম লবণ ব্যবহার করবেন। এছাড়া উচ্চ মাত্রার সোডিয়াম রয়েছে এমন কোনো খাদ্য উপাদান না ব্যবহার করাই ভালো।

অতিরিক্ত মশলা দিয়ে মাংস রান্না করবেন না। মাংস রান্নার সময় অল্প পরিমাণ লেবুর রস দিতে পারেন। মাংস রান্নার ভালো পদ্ধতি হচ্ছে বেক, রোস্ট, গ্রিল বা সেদ্ধ করা। এটি চর্বি দূর করতে সাহায্য করবে এবং খাবারকে স্বাস্থ্যকর করবে।

এছাড়া মাংস সম্পূর্ণভাবে রান্নার আগে সেদ্ধ করে পানি ঝড়িয়ে নিতে পারেন। এতে অতিরিক্ত চর্বি দূর হবে।

মাংস খাওয়ার পর চর্বি দূর করতে সালাদ খেতে পারেন। চর্বি কাটতে লেবুমিশ্রিত উষ্ণ গরম পানিও পান করা যেতে পারে।

লাল মাংস খেতে অনেকেই বেশ ভালোবাসেন। যেমন : গরুর মাংস, খাসির মাংস ইত্যাদি। লাল মাংস আয়রন ও প্রোটিনের ভালো উৎস। এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি এবং জিংক। মাংস দেহে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। তবে লাল মাংসের কারণে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা হতে পারে। তাই স্বাস্থ্যকরভাবে লাল মাংস রান্না করা উচিত।