৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য হ্যাকিংয়ের খবর গোপন করেছে উবার

৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য হ্যাকিংয়ের খবর গোপন করেছে উবার 

সত্য কখনও লুকিয়ে রাখা যায় না। আর তাই আবার প্রমাণ হলো অ্যাপ ভিত্তিক ট্যাক্সি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান উবারের ক্ষেত্রে। ২০১৬ সালে ৫ কোটি ৭০ লাখ উবার গ্রাহক এবং চালকের তথ্য চুরি হয়েছে। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি এই হ্যাকিংয়ের খবর গত একবছর যাবত গোপন করে আসছে। এমনকি এই চুরি হওয়া ডাটাগুলো মুছে ফেলতে এবং হ্যাকিং ধামাচাপা দিতে হ্যাকারদের এক লাখ মার্কিন ডলার দিয়েছে উবার।


সিএনবিসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, এই হ্যাকিংয়ের খবর নিয়ে কোনো প্রতিবেদনও প্রকাশ করেনি উবার। উবারের সাবেক প্রধান নির্বাহী ট্রাভিস কালানিক এই হ্যাকিংয়ের বিষয়ে সেসময় অবগত ছিলেন বলেও প্রতিবেদনে বলা হয়।

২১ নভেম্বর মঙ্গলবার ২০১৬ সালের ওই সাইবার আক্রমণের এক বিবৃতি প্রকাশ করেছে উবার। বিবৃতি অনুযায়ী, হ্যাকাররা চালক এবং গ্রাহকের নাম, ইমেইল অ্যাড্রেস এবং চালকের লাইসেন্স নাম্বারের মতো ব্যক্তিগত তথ্যগুলো চুরি হয়েছে। তবে গ্রাহকের ক্রেডিট কার্ডের তথ্য বেহাতের কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি।

উবারের প্রধান নির্বাহী দারা খোশরোওশাহি জানান, প্রতিষ্ঠানটি সম্প্রতি এই হ্যাকিংয়ের বিষয়টি জেনেছে। তিনি বলেন, ‘এই ঘটনার কোনোটিই ঘটা উচিত ছিল না এবং আমি এর জন্য ক্ষমা চাইছি’।

বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, এই ডাটাগুলো অ্যামাজনের ওয়েব সার্ভিসের ক্লাউড অ্যাকাউন্টে সংরক্ষিত ছিল। দুটি আলাদা বাহিরের প্রতিষ্ঠান ক্লাউডে এক্সেস নিয়ে ডাটাগুলো ডাউনলোড করে নিয়েছে। তবে ডাটাগুলো সেসময়ই মুছে ফেলা হয়েছে এবং এ নিয়ে আর কোনো জালিয়াতির খবর পাওয়া যায়নি।

উবারের হ্যাকিংয়ের ঘটনা এটিই প্রথম নয়, এর আগেও ২০১৪ সালে এক সাইবার আক্রমণে প্রতিষ্ঠানের ৫০ হাজার সাবেক ও বর্তমান চালকের ডাটা ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছিল।

৫ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য হ্যাকিংয়ের খবর গোপন করেছে উবার