ত্বক বিশেষজ্ঞদের রুপচর্চা রুটিন জানেন কি আপনি?

What-do-you-know-about-the-routines-of-skin-specialists 

ত্বকের যেকোন সমস্যা সমাধানে আমরা ডার্মাটোলজিস্ট কিংবা ত্বক বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হই। তাদের ত্বক দেখে রুপচর্চার রুটিন সম্পর্কে জানার আগ্রহ বেড়ে যায় কয়েকগুণ। বয়সের তুলনায় তাদের ত্বক থাকে একেবারে কোমল এবং তরুণ, থাকে না কোন অনাকাঙ্ক্ষিত বয়সের ছাপ কিংবা অ্যাকনের কালো দাগ। কিন্তু বেশিরভাগ সময় তাদের ব্যস্ততার কারণে জানা হয়ে ওঠেনা তাদের রুপচর্চার রহস্য কী।


তবে আর নয় ধোঁয়াশা। আজকের আয়োজনে আপনাদের জানানো হবে বিশ্বের সকল নামীদামী ডার্মাটোলজিস্ট কিংবা ত্বক বিশেষজ্ঞের বেসিক রুপচর্চা রুটিন সম্পর্কে। চলুন তবে কথা না বাড়িয়ে জেনে আসা যাক।

আই-ক্রিম ব্যবহার করা

চোখ আমাদের ত্বকের সবচেয়ে সংবেদনশীল অংশ। সুতরাং, এর বিশেষ যত্ন নেওয়া বাধ্যতামূলক। মুখের ত্বকে আমরা যে ধরনের ময়েশ্চারাইজারই ব্যবহার করিনা কেন তা চোখের নিচের ত্বকের জন্যে যথেষ্ট নয়। সেজন্য বিভিন্ন ধরনের আই-ক্রিম আছে বাজারে, আপনার মুখের ত্বকের সঙ্গে মানানসই এমন একটি দেখে কিনে নিন। প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে নিয়ম করে আলতোভাবে আঙ্গুলের ডগা দিয়ে মালিশ করুন। আঁখিযুগল সুস্থ থাকবে।

সিল্কের তৈরি বালিশের কভার ব্যবহার করুন

আপনি হয়তো ‘স্লিপ লাইন’ এর ব্যাপারে শুনেছেন। এটি হলো ঘুমের ঘোরে আমাদের ত্বকে এক ধরনের লাইন কিংবা ভাঁজের সৃষ্টি হয়। স্লিপ লাইন সাধারণত কপালে, আই-ব্রোএর মাঝে এবং চোখের দু’পাশে দেখা দিতে পারে। এটি ত্বকের মধ্যে উঁচুনিচু ধাপের সৃষ্টি করে। সুতরাং, স্লিপ লাইন এড়ানোর জন্য সিল্কের তৈরি বালিশের কভার ব্যবহার করুন। এতে একটু হলেও আপনার ত্বক শান্তিতে বিশ্রাম নেওয়ার সুযোগ পাবে।

প্রচুর পরিমাণে সবজি খান

শুধুমাত্র শর্করা জাতীয় খাবার আমাদের ত্বক পরিষ্কার করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে না। সেজন্যে খাদ্যতালিকায় প্রচুর পরিমাণে সবুজ শাকসবজি রাখতে হবে। এগুলো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ এবং ত্বকে আলাদা এক ধরনের গ্লো আনতে খুব সাহায্য করে। বেশি করে গাজর, বিভিন্ন ধরনের শাক, টমেটো খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

হেডফোনের সাহায্যে ফোনে কথা বলুন

আপনার মোবাইলে একটি টয়লেট সিটের চাইতেও অধিক পরিমাণে জীবাণু থাকে। সুতরাং, ফোনে কথা বলার সময় এটি কানে এবং গালে লাগিয়ে কথা বললে সে জীবাণু খুব সহজেই মুখের ত্বককে আক্রান্ত করে ফেলে। সেজন্যে কথা বলার সময় হেডফোন ব্যবহার করুন।

মিষ্টিজাতীয় খাবার কম খান

খাদ্যতালিকায় অধিক পরিমাণে মিষ্টিজাতীয় খাবার রাখলে শরীরের যথেষ্ট ক্ষতিসাধন হতে পারে। চিনির দানা কোলাজেন তৈরিতে বাঁধা প্রদান করে। এতে করে চেহারায় বলিরেখা পড়তে পারে। এজন্যে যতটুকু সম্ভব চিনি কম খান এবং ত্বক ভালো রাখুন।

সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করুন

অফিস কিংবা কাজের প্রয়োজনে ঘরের বাইরে সকলকেই বের হতে হবে, এটিই স্বাভাবিক। ঘরের বাইরে পা রাখার আগে অবশ্যই সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করবেন, তা যেন ভালো এসপিএফ সমৃদ্ধ হয়। কোনভাবেই এর ব্যতিক্রম যেন না হয়। শুধুমাত্র মুখের ত্বকে নয়, শরীরের অনাবৃত যেকোন অংশে যেমন হাতে, গলায় ও পিঠেও সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করুন।

দিন ও রাতের আলাদা রুপচর্চা রুটিন অনুসরণ করুন

বয়স পঁচিশের চৌকাঠ অতিক্রম করা মাত্রই ভালো একটা রুপচর্চা রুটিন মেনে চলা আপনার জন্যে বাঞ্ছনীয়। দিন এবং রাতের জন্যে আলাদা আলাদা রুটিন মেনে চলুন। যেমন দিনের বেলা সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করা অপরিহার্য কিন্তু রাতে সেটির দরকার নেই। আবার, রাতে ভালো একটি নাইট ক্রিম ব্যবহার না করলেই নয়, দিনে সেটির কোন প্রয়োজন নেই। ক্লিনিং-টোনিং-ময়েশ্চারাইজিং এর প্যাটার্ন মেনে রুটিন প্রস্তুত করুন এবং সেটী পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে মেনে চলুন।

অল্প প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন

এ মাত্রই বলা হলো দিন ও রাতের আলাদা স্কিনকেয়ার রুটিন অনুসরণ করতে কিন্তু অনেক বেশি প্রোডাক্ট ব্যবহার করার কিন্তু কোন বাধ্যবাধকতা নেই। অল্প প্রোডাক্ট কিন্তু ভালো মানের দেখে ব্যবহার করুন। আপনার ত্বকের সঙ্গে অবশ্যই যেন তা সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন। একটি ভালো মানের ফেসওয়াশ, টোনার, ময়েশ্চারাইজার, ফেশিয়াল স্ক্রাব এবং সানব্লক ক্রিমই যথেষ্ট ত্বক ভালো রাখতে।

গরম পানিতে গোসল করা এড়িয়ে চলুন

শীতকাল তো প্রায় চলেই এসেছে। এ সময়ে উষ্ণ গরম পানিতে গোসল করলে স্বস্তি ও শান্তি দুই-ই পাওয়া যায়। কিন্তু এটি যে আপনার ত্বকের বেশ ক্ষতি করছে, তা কী আপনি জানেন? গরম পানিতে গোসল করে শরীরের রোমকূপগুলো খুলে যায় এবং এতে খুব সহজেই ময়লা, জীবানু ও তেল প্রবেশ করে। সুতরাং, খুব বেশি গরম পানিতে গোসল না করে হালকা গরম কিংবা ঠান্ডা পানিতেই গোসল সেরে নিন।

হারবাল চা পান করুন

শীতের সময়ে নিজেকে উষ্ণ রাখার অন্যতম ভালো উপায় হলো চা পান করা। কাজের ফাঁকে কিংবা নাস্তার পরে চা পান করলে শরীর যেমন ঝরঝরে লাগে, সেই সঙ্গে গলায়ও বেশ আরাম বোধ হয়। কিন্তু এখানে অধিক চিনি যুক্ত কিংবা দুধ চা পানের কথা কিন্তু বলা হচ্ছে না। এগুলোর বদলে হারবাল চা যেমন সবুজ চা, পুদিনা চা, আদা চা ইত্যাদি পান করুন। নিজেকে হালকা তো লাগবেই সেই সাথে শরীর ও ত্বকের দারুণ খেইয়াল রাখা হবে।

বোনাস টিপ-

নিয়মিত ব্যায়াম করুন

ডার্মাটোলজিস্ট কিংবা সচেতন চিকিৎসকদের ত্বক এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ টিপস হলো, তারা নিয়মিত শরীরচর্চার পেছনে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ সময় ব্যয় করেন। প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে, ঘুমানোর আগে কিংবা দিনের যেকোন সময় তারা ব্যায়ামের পেছনে সময় দেন। এর ফলে যে ঘাম খরচ হয়, তাতে করে শরীরের রক্ত চলাচল ক্ষমতা বাড়ে এবং শরীর ঝরঝরে অনুভূত হয়।

ত্বকের যেকোন সমস্যা সমাধানে আমরা ডার্মাটোলজিস্ট কিংবা ত্বক বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হই। তাদের ত্বক দেখে রুপচর্চার রুটিন সম্পর্কে জানার আগ্রহ বেড়ে যায় কয়েকগুণ। বয়সের তুলনায় তাদের ত্বক থাকে একেবারে কোমল এবং তরুণ, থাকে না কোন অনাকাঙ্ক্ষিত বয়সের ছাপ কিংবা অ্যাকনের কালো দাগ। কিন্তু বেশিরভাগ সময় তাদের ব্যস্ততার কারণে জানা হয়ে ওঠেনা তাদের রুপচর্চার রহস্য কী।