সিঙ্গেল নারীদের সুখে থাকার রহস্য কী?

সিঙ্গেল নারীদের সুখে থাকার রহস্য কী? 

 একটা সময় ছিল, যখন একজন নারীর পরিচয় মানেই ছিল তার স্বামী বা প্রেমিকের পরিচয় এবং ‘সিঙ্গেল’ থাকাটাকে অভিশাপ মনে করতেন তারা। কিন্তু এখন সময় পাল্টেছে। সিঙ্গেল থাকাটাকেই অনেকে স্বাধীনতা এবং কোনো ঝামেলা ছাড়া জীবন চালিয়ে নেওয়ার উপায় বলে মনে করছেন এখন। কনজুমার অ্যানালিস্ট মিনটেলের এক রিপোর্ট অনুযায়ী, ব্রিটিশ নারীদের মাঝে ৬১ শতাংশই তাদের ‘সিঙ্গেল’ জীবন নিয়ে সুখী। অন্যদিকে দেখা যায়, ৪৯ শতাংশ পুরুষ ‘সিঙ্গেল’ তকমা নিয়ে খুশি।


এই জরিপ থেকে আরো দেখা যায়, ৭৫ শতাংশ নারী (এবং ৬৫ শতাংশ পুরুষ) বিগত এক বছরে কোনো সম্পর্কে জড়াতে উৎসাহী হননি। ৪৫-৬৫ বছর বয়সীদের মাঝে নারী-পুরুষে প্রকট পার্থক্য দেখা যায়। এই বয়সসীমার ৩২ শতাংশ নারী সিঙ্গেল অবস্থা নিয়ে সুখী ছিলেন। কিন্তু পুরুষের মাঝে মাত্র ১৯ শতাংশ ছিলেন এই অবস্থায় খুশি।

এই পার্থক্যের কারণ কী? সম্ভবত কারণ এটাই, যে সম্পর্কে থাকা অবস্থায় নারীরই বেশী সমস্যা হয়। ইউনিভার্সিটি অফ এসেক্সের ডাঃ এমিলি গ্রান্ডি জানান, পুরুষের তুলনায় নারীরা তাদের সম্পর্কে বেশী ভূমিকা রাখে, ফলে সিঙ্গেল থাকার চাইতে সম্পর্কে থাকা অবস্থায় তাদের বেশী শ্রম দিতে হয়। দেখা যায়, বেশিরভাগ সময় নারীরা পুরুষের চাইতে বেশী ঘরের কাজ, রান্নাবান্না করে, আর তাদের মানসিক শ্রমটাও বেশী দিতে হয়, গ্রান্ডি দি টেলিগ্রাফকে জানান।

শুধু তাই নয়, এটাও দেখা যায় যে পুরুষরা তাদের সঙ্গিনীর ওপর বেশী নির্ভরশীল। কিন্তু নারীরা বরং তাদের কাছে বন্ধুবান্ধবের ওপরে নির্ভরশীল। এ কারণে সিঙ্গেল নারীদের বেশী বন্ধু থাকে এবং তারা সামাজিকতায় বেশী সময় দিতে পারেন।

এর পাশাপাশি ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার প্রফেসর বেলা ডিপাওলো তার ‘সিঙ্গেল স্টাডিজ’ এর ব্যাপারে বলেন। সিঙ্গেল থাকাটা মানুষের ওপর কী কী প্রভাব ফেলে তা নিয়ে গবেষণা করেন তিনি। “আমি দেখেছি যে, সিঙ্গেল থাকার অনেক বড় বড় উপকারিতা আছে,” জানান তিনি। “বিশেষ করে নারীরা একাকী জীবন পুরুষের তুলনায় বেশী উপভোগ করে। এ সময়টা তারা সৃজনশীলতা, নিজের উন্নতি এবং নিজেকে সারিয়ে তুলতে ব্যয় করে। আর সিঙ্গেল থাকা অবস্থায় নিজের পছন্দের জীবন তৈরি করে নেবার অনেক চমৎকার সুযোগ পাওয়া যায়, ইচ্ছে হলেই আপনি ভ্রমণ করতে পারেন, নিজের স্বপ্ন বাস্তবায়ন এবং দারুণ সব কাজে মন দিতে পারেন।”

একটা সময় ছিল, যখন একজন নারীর পরিচয় মানেই ছিল তার স্বামী বা প্রেমিকের পরিচয় এবং ‘সিঙ্গেল’ থাকাটাকে অভিশাপ মনে করতেন তারা। কিন্তু এখন সময় পাল্টেছে। সিঙ্গেল থাকাটাকেই অনেকে স্বাধীনতা এবং কোনো ঝামেলা ছাড়া জীবন চালিয়ে নেওয়ার উপায় বলে মনে করছেন এখন। কনজুমার অ্যানালিস্ট মিনটেলের এক রিপোর্ট অনুযায়ী, ব্রিটিশ নারীদের মাঝে ৬১ শতাংশই তাদের ‘সিঙ্গেল’ জীবন নিয়ে সুখী। অন্যদিকে দেখা যায়, ৪৯ শতাংশ পুরুষ ‘সিঙ্গেল’ তকমা নিয়ে খুশি।