টাকা দিয়ে মুখ বন্ধ করেছে উবার

 

২০১৬ সালে রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারের হ্যাকিংয়ের জন্য দায়ি যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ২০ বছর বয়সী এক তরুণ। সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চুরি হওয়া তথ্য মুছে ফেলতে এবং হ্যাকিং অপ্রকাশিত রাখতে বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম নামে ওই তরুণকে অর্থ দিয়ে মুখ বন্ধ রেখেছে উবার।


২১ নভেম্বর বর্তমান উবার প্রধান দ্বারা খোশরোওশাহি ২০১৬ সালের অক্টোবরের হ্যাকিংয়ের বিষয়টি প্রকাশ করেন। হ্যাকিংয়ের ফলে যুক্তরাষ্ট্রে উবার ৫৭ মিলিয়ন উবার ব্যবহারকারীর ডাটা চুরি হওয়ার কথা জানানো হয়। এবং এজন্য হ্যাকারকে এক লাখ মার্কিন ডলার দেওয়া হয় বলে জানানো হয়। যদিও কীভাবে এই অর্থ দেওয়া হয়েছে হ্যাকারকে সে বিষয়ে কিছু প্রকাশ করেনি উবার।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, হ্যাকারকে দেওয়া অর্থ একটি বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম দেখিয়ে দেওয়া হয়। উবারের বাগ বাউন্টি প্রোগ্রামের নিয়ন্ত্রণকারী ‘হ্যাকারওয়ান’ বলছে, ‘বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম হিসেবে এক লাখ ডলার পুরস্কার খুবই অস্বাভাবিক ঘটনা। সাধারণত বাগ বাউন্টি প্রোগ্রামের পুরস্কার ৫০০০ থেকে ১০ হাজার ডলার হয়ে থাকে’।

হ্যাকারকে এই অর্থ দেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কার ছিল সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। উবারের হোস্ট হ্যাকারওয়ান এই বাগ বাউন্টি প্রোগ্রামের ব্যবস্থা করেনি। সংশ্লিষ্ট দুই সূত্রমতে, উবার হ্যাকারের পরিচয় নিশ্চিত করার জন্য অর্থ প্রদান করে এবং আরও অন্যায় কাজ বন্ধ করার জন্য তাকে দিয়ে একটি ননডিসক্লোজার চুক্তি স্বাক্ষর করিয়ে নেয়।

একজন সূত্রের বর্ণনা মতে, হ্যাকার ফ্লোরিডার একটি ছোট বাড়িতে তার মায়ের সাথে বসবাস করে। অন্য আরেকটি সূত্র মতে, ওই হ্যাকার দ্বিতীয় একজন ব্যক্তিকে গিটহাব এ এক্সেস নেওয়ার জন্য অর্থ দিয়েছে। প্রোগ্রামারদের তাদের কোড সংরক্ষণ করার জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত একটি সাইট হলো গিটহাব।

তবে গিটহাব জানিয়েছে, এই আক্রমণে তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থার দুর্বলতা জড়িত নয়। তারা আরও জানিয়েছে, তাদের সাইট অ্যাক্সেস টোকেন, পাসওয়ার্ড, বা অন্য প্রমাণীকরণ বা এনক্রিপশন কীগুলি সংরক্ষণ না করার সুপারিশ করে থাকে।

হ্যাকিং ঘটনা প্রকাশের পরপর উবারের প্রধান নির্বাহী দ্বারা খোশরোওশাহি প্রতিষ্ঠানের দুইজন শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে বহিষ্কার করেন।

২০১৬ সালে রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারের হ্যাকিংয়ের জন্য দায়ি যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ২০ বছর বয়সী এক তরুণ। সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চুরি হওয়া তথ্য মুছে ফেলতে এবং হ্যাকিং অপ্রকাশিত রাখতে বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম নামে ওই তরুণকে অর্থ দিয়ে মুখ বন্ধ রেখেছে উবার।