জাপানে বড় অংকের ডিজিটাল মুদ্রা চুরি

জাপানে বড় অংকের ডিজিটাল মুদ্রা চুরি 

জাপানি প্রতিষ্ঠান কয়েনচেক থেকে ৫৩৪ মিলিয়ন ডলার চুরির অভিযোগ উঠেছে হ্যাকারদের বিরুদ্ধে। বলা হচ্ছে এটা বিশ্বে ডিজিটাল মুদ্রা চুরির সবচেয়ে বড় ঘটনা। কয়েনচেক জাপানের শীর্ষ ডিজিটাল মুদ্রা বিনিময়কারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম।


কয়েনচেক থেকে চুরির বিষয় সম্পর্কে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে এই অভিযোগ সত্যি প্রমাণ হলে এটাই হবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ডিজিটাল মুদ্রা চুরির ঘটনা। এর আগে ২০১৪ সালে আরেক জাপানি প্রতিষ্ঠান মেটগক্স থেকে ৪০০ মিলিয়ন ডলার চুরি হয়েছিল।

চুরি সম্পর্কে কয়েনচেকের একজন প্রতিনিধি জাপানি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, শুক্রবারে আমরা যে অর্থ হারিয়েছি তা পরিশোধ করা অসম্ভব হয়ে পড়বে।

কয়েনচেক থেকে চুরি হওয়া অর্থ হট ওয়ালেটে রাখা হয়েছিল বলে জানানো হয়েছে। হট ওয়ালেট হলো অফলাইনে থাকা সম্পদ অনলাইনে নিয়ে আসা। মূলত কোল্ড ওয়ালেট তথা অফলাইনে কয়েনচেকের সম্পদ নিরাপদে সংরক্ষিত ছিল। কিন্তু সেই নিরাপত্তা ভেঙে হ্যাকররা ওই সম্পদকে অনলাইনে নিয়ে আসে।

কয়েনচেক বলছে, তাদের সম্পদ কোন ডিজিটাল ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে তা জানা আছে তাদের। এ সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির চিফ অপারেটিং অফিসার ইউসুকে ওতসুকা বলেন, আমরা হিসাব করে দেখেছি চুরি হওয়া অর্থের পরিমাণ ৫৮ বিলিয়ন ইয়েন।



তিনি আরও বলেন, আমরা জানি এই অর্থ কোথায় পাঠানো হয়েছে। আমরা তাদের ওপর নজর রাখছি এবং তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছি। অর্থ ফিরে পাওয়া যেতে পারে।

কয়েনচেক ইতিমধ্যে এই ঘটনাটি পুলিশ এবং জাপানের ফিনান্সিয়াল সার্ভিস এজেন্সিকে জানিয়েছে।

জাপানি প্রতিষ্ঠান কয়েনচেক থেকে ৫৩৪ মিলিয়ন ডলার চুরির অভিযোগ উঠেছে হ্যাকারদের বিরুদ্ধে। বলা হচ্ছে এটা বিশ্বে ডিজিটাল মুদ্রা চুরির সবচেয়ে বড় ঘটনা। কয়েনচেক জাপানের শীর্ষ ডিজিটাল মুদ্রা বিনিময়কারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম।