স্বল্প খরচে বা স্কলারশীপে চীনে মেডিক্যাল পড়াশোনা

 

চিকিৎসা পেশা সারা পৃথিবীতে অত্যন্ত সম্মানজনক ও মর্যাদা সম্পন্ন। অধিক উপার্জন সক্ষম পেশাও। তাই সারা পৃথিবীতেই উচ্চ মাধ্যমিক পাশ ছাত্রদের পড়ার এক নম্বর বিষয় হচ্ছে মেডিকেল। বাংলাদেশের লোকসংখ্যা ১৬ কোটি। চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ডাক্তারের সংখ্যার বিশাল ঘাটটি রয়েছে। ঘাটতি পূরনের জন্য প্রচুর ডাক্তারের প্রয়োজন।


কিন্তুু আসন সংখ্যা কম থাকা এবং ভর্তিচ্ছুক ছাত্রদের সংখ্যা বেশী হওয়ায় অধিক সংখ্যক ছাত্রই ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও ডাক্তারী পড়তে পারে না। যেমন- এবছরে ৩১টি সরকারী ও ৬৯টি বেসরকারী মেডিক্যাল কলেজে মোট ৩৩১৮+৬২২৫=৯৫৪৩টি আসনের জন্য ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছে ৮২,৭৮৮ জন। পাশ করেছে ৪১,১৩২ জন। কিন্তুু পাশ করলেও ৪১,১৩২-৯৫৪৩=৩১,৫৮৯ জন ছাত্র-ছাত্রী মেডিক্যাল পড়ার জন্য ভর্তি হতে পারবে না। তবে এরা অনায়াসে ভর্তি হতে পারে চীনে। স্কলারশীপ নিয়ে চীনা ভাষায় চীনে মেডিক্যাল পড়তে পারে।
ইংরেজী মাধ্যমেও ডাক্তারী পড়তে পারে টিউশন ফি দিয়ে ।

চীনের অন্তত: ০৪টি নামি মেডিক্যাল ভার্সিটিতে (কলেজ নয়) ভর্তি করা যাবে [Nanjing, Xuzhow, Chanzhow Ges Yangzhow Medical University]। ইংরেজী মাধ্যমে পড়লে বার্ষিক টিউশন ফি RMB ৩০,০০০ বা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় চার লাখ। তবে চীনা ভাষায় পড়লে ১০% ছাত্র ফুল ফ্রি স্কলারশিপ পাবে। ২০% ছাত্র অর্ধেক টিউশন ফি দিয়ে (RMB ১৫০০) পড়তে পারবে এবং ৭০% ছাত্র পড়তে পারে ২৫% স্কলারশিপে বা জগই ২২৫০০ টিউশন ফিতে (বা:দে: টাকায় ২,৯০,০০০)। ১ম বছরে ভাল রেজাল্ট করতে পারলে অন্য স্কলারশিপ পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

মেডিক্যাল ৬ বছরের (১ বছর ইন্টার্নিসহ)। চীনা ভাষায় পড়লে এর সঙ্গে যোগ করতে হবে আরো এক বছর, চীনা ভাষা শেখার জন্য। টিউশন ফি দিতে হবে RMB ১৪,০০০ বা বাংলাদেশী টাকায় ১,৮০,০০০।

বিদেশে বিশেষ করে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অষ্ট্রেলিয়ায়ার মত দেশেও মেডিক্যালে পড়ার আসন অত্যন্ত সীমিত, ব্যয়বহুল এবং আমাদের দেশ থেকে সরাসরি ভর্তিও হওয়া যায় না। আমরা ইউরোপ আমেরিকায় ভর্তি করতে এবং ভিসা করাতে পারব। বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের ফ্রি সেমিনারে এসে জেনে বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন (মোবাইল: ০১২৫৫২৪১৭৫৩১)।

যাদের বিদেশে পড়ার ইচ্ছা এবং আর্থিক সামর্থ রয়েছে তারা ইউরোপ এবং আমেরিকা পড়া যায় এমন অনেক মানসম্পন্ন মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যেতে পারেন।

এই নিবন্ধে এমন কিছু সুযোগ নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

পূর্ব ইউরোপের জর্জিয়ায় MBBS/MD পড়া যাবে ইংরেজী মাধ্যমে, টিউশন ফি বার্ষিক ৪৫০০ ডলার। চতুর্থ বৎসর থেকে জার্মানীতে কাজ করা যাবে মাসিক ৪০০ ইউরো নিয়ে। এছাড়াও ইংরেজী মাধ্যমে প্রায় একই বা আরো কম টিউশন ফি-তে মেডিক্যাল পড়া যাবে ইউক্রেন ও বেলারুসে। ইউরোপের মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রী নিয়ে ইউরোপে প্রাকটিশ বা চাকুরী করা যায়। বার্ষিক ৮০০০ থেকে ১২০০০ ইউরো টিউশন ফি দেওয়ার সক্ষমতা থাকলে মেডিক্যাল পড়া যাবে Poland, Czech Republic, Lithuania, Hungary তে। এখুনি ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। ভর্তি হতে পারলে ভিসা পাওয়া নিশ্চিত।

চোখ কপালে ওঠার মতো একটা সংবাদ প্রকাশ করেছে AAMC-Association of American Medical College; ২০২৫ সাল নাগাদ যুক্তরােষ্ট্র ডাক্তারের ঘাটতি দাঁড়াবে ৪৬,০০০ হাজার থেকে ৯০,০০০ হাজার। যারা মেডিকেলে পড়তে চাও তারা এ সংবাদটি মাথায় রাখতে পারো।

আমেরিকার (US Track Carabbian Countries) অনেক ভালো নামী এবং অনুমোদিত মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রগ্রামে ভর্তি হলে শেষ অর্ধেক সময় Gesপড়া যাবে। USMLE-এর জন্য প্রয়োজনীয় Clinical Rotation ও করা যাবে। ফলে পাশ করে USAও Canada-তে চাকুরী, প্রাকটিস বা উচ্চ শিক্ষা নেওয়া যাবে। দেশে বসেই ভর্তি ও ভিসা পাওয়া সম্ভব।

মেডিক্যাল, ডেন্টাল ফার্মেসী ইত্যাদি বিষয়ে ভর্তি ও ভিসা সম্পর্কে সঠিক তথ্য ও প্রক্রিয়া জানা এবং ফ্রি সেমিনারে অংশ গ্রহনের জন্য ০১৫৫২৪১৭৫৩১ নাম্বারে যোগাযোগ করা যেতে পারে। অথবা জীবন-বৃত্তান্ত (Bio-data) এবং মার্কশিটের Scan copy ইমেইলে (scholarshipchina2018@gmail.com) পাঠালে সব তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে ।

চিকিৎসা পেশা সারা পৃথিবীতে অত্যন্ত সম্মানজনক ও মর্যাদা সম্পন্ন। অধিক উপার্জন সক্ষম পেশাও। তাই সারা পৃথিবীতেই উচ্চ মাধ্যমিক পাশ ছাত্রদের পড়ার এক নম্বর বিষয় হচ্ছে মেডিকেল। বাংলাদেশের লোকসংখ্যা ১৬ কোটি। চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ডাক্তারের সংখ্যার বিশাল ঘাটটি রয়েছে। ঘাটতি পূরনের জন্য প্রচুর ডাক্তারের প্রয়োজন।