না ফেরার দেশে জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী

না ফেরার দেশে জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী 

ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী আর নেই। ২৬ জানুয়ারি শুক্রবার ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় এই গুণী শিল্পীর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন তিনি।


সুপ্রিয়া চৌধুরী নামেও পরিচিত সুপ্রিয়া দেবী। তার আসল নাম কৃষ্ণা এবং ডাকনাম বেনু। ১৯৩৫ সালের ৮ জানুয়ারি মিয়ানমারে জন্মগ্রহণ করেন সুপ্রিয়া দেবী। তার বাবা বিখ্যাত আইনজীবী গোপাল চন্দ্র বন্ধোপাধ্যায়।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় পরিবারের সঙ্গে ভারতে এসে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন সুপ্রিয়া দেবী। মাত্র সাত বছর বয়সে তার বাবা’র পরিচালিত দুটি নাটকের মাধ্যমে অভিনয়ে অভিষেক ঘটে সুপ্রিয়া দেবীর।

সুপ্রিয়া দেবী বাংলা চলচ্চিত্রে ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত বিখ্যাত চরিত্র ‘দেবদাস’ (১৯৭৯) সিনেমার চন্দ্রমুখী। চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে- ‘মেঘে ঢাকা তারা’, ‘কলঙ্কিনী কঙ্কাবতী’, ‘কোমল গান্ধার’, ‘দুই পুরুষ’, ‘দ্য নেমসেক’, ‘একটী নদীর নাম’, ‘শেষ ঠিকানা’, ‘হানিমুন’, ‘ইমান কল্যাণ’, ‘মন নিয়ে’, ‘সন্ধ্যা রাগ’, ‘আপ কি পরিছাঁইয়া’, ‘দূর গগন কি ছাঁও মে’, ‘লাল পাত্থর’ ইত্যাদি।

১৯৫৪ সালে সুপ্রিয়া দেবী বিশ্বনাথ চৌধুরীকে বিয়ে করেন এবং পরবর্তীতে তাদের একমাত্র কন্যা সোমা জন্মগ্রহণ করে। বিখ্যাত বাংলা ছোট গল্প লেখক বলাই চাঁদ মুখোপাধ্যায়, যার ছদ্মনাম বনফুল, সুপ্রিয়ার বড় বোনের সাথে তার বিয়ে হয়।

সুপ্রিয়া দেবী ২০১১ সালে পশ্চিম বঙ্গের সর্বোচ্চ বেসামরিক উপাধী ‘বঙ্গভূষণ’ অর্জন করেন। ২০১৪ সালে বাংলা চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক উপাধী ‘পদ্মশ্রী’ তে ভূষিত হন তিনি।

ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী আর নেই। ২৬ জানুয়ারি শুক্রবার ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় এই গুণী শিল্পীর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন তিনি।