নাবালিকাকে যৌন হয়রানি, মুখ খুললেন পাপন এবং নাবালিকা

নাবালিকাকে যৌন হয়রানি, মুখ খুললেন পাপন এবং নাবালিকা 

অসংখ্য জনপ্রিয় গানের গায়ক পাপনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দায়ের করা হলো গতকাল শুক্রবার। এই ঘটনা নিয়ে গতকাল গোটা ভারতীয় মিডিয়া ছিল তোলপাড়। সংবাদে প্রকাশ, শিশুদের রিয়েলিটি শো-তে এক নাবালিকাকে জোর করে চুমু খেয়েছেন আসামের জনপ্রিয় গায়ক পাপন। সেই রিয়েলিটি শোয়ের বিচারক তিনিই। গত মঙ্গলবার পাপন নিজের ফেসবুক পেজেই সেই শুটের ভিডিওটি লাইভ করেন। সেখানেই দেখা যায়, হাসি, গান, নাচ, মজা করতে করতে, আচমকাই পাপন এক নাবালিকা প্রতিযোগীকে রং মাখিয়ে তার ঠোঁটে চুম্বন করেন।


এই ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয় অভিযোগ। নাবালিকাকে যৌন হেনস্থা করার জন্য অভিযোগের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয় পাপনকে। বিষয়টি প্রথমে সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবীর নজরে আসে। তিনি মনে করেন, একজন নাবালিকাকে এভাবে চুম্বন করা যৌন হয়রানির সমান। বিভিন্ন রিয়েলিটি শোয়ে অংশ নেওয়া বাচ্চা প্রতিযোগীদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে, পকসো আইনে পাপনের বিরুদ্ধে মামলা করেন এই আইনজীবী।

ঘটনার পর থেকেই সরব হয় সোশ্যাল মিডিয়া। এ ধরনের কাণ্ড ঘটানোর জন্য পাপনকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে, এমন দাবিও তোলেন নেটিজেনরা। অবশেষে নীরবতা ভেঙে প্রতিক্রিয়া দিলেন পাপন। তার দাবি, ভুল অ্যাঙ্গেলে ক্যামেরা ধরে রাখার জন্য মনে হয়েছে চুম্বনটি অশালীন। আসলে সেই মুহূর্তে উচ্ছ্বাসে, উত্তেজনায় তিনি ওই কাণ্ডটি ঘটিয়ে ফেলেন। কোনও রকম খারাপ উদ্দেশে তিনি এমন করেননি। এমনকি পুরো ঘটনাটি রিয়েলিটি শোয়ের অন্য সদস্যদের উপস্থিতিতে ঘটেছে। কোনও রকম অশালীন কিছু বা যৌন হয়রানির উদ্দেশ্য তার ছিল না।

পাপন বলেন, ‘এ ধরনের অভিযোগ করার আগে প্রত্যেকেরই আরও একটু সতর্ক হওয়া উচিত। এই ঘটনায় যাদের নাম জড়িয়ে যায় এবং যাদের পরিবার জড়িয়ে যায়, প্রত্যেকেরই সমাজে প্রচুর লজ্জা-হয়রানির সম্মুখীন হতে হয়। আমার স্ত্রী, দুটি ছোট ছোট সন্তান রয়েছে। এমনকি ওই মেয়েটির পরিবারের সদস্যদেরও একইরকমের হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। তাই এধরনের ঘটনায় কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছনোর আগে প্রত্যেকেরই উচিত, আরও একটু বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজখবর নেওয়া।’

প্রসঙ্গত, রিয়েলিটি গানের শো ভয়েস ইন্ডিয়া কিডস-এ শান এবং হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে বিচারক আসনে রয়েছেন পাপন। মঙ্গলবার ওই শোয়ের একটি হোলির পর্ব ধারণ হচ্ছিল। সেই সময়ই আচমকা দেখা যায়, এক নাবালিকা প্রতিযোগীকে রং মাখিয়ে অশালীন ভাবে চুম্বন করেন পাপন। এরপরই শীর্ষ আদালতের ওই আইনজীবী প্রতিবাদ করেন। তার দাবি, এ ধরনের ঘটনা থেকে বিভিন্ন রিয়েলিটি শোয়ে যোগদানকারী শিশুদের নিরাপত্তা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গেল।

আসামের এই গায়ক ‘বারফি’, ‘বেফিকরে’, ‘সুলতান’, ‘দম লাগা কে হাইসা’র মতো একাধিক ছবিতে গান গেয়েছেন এবং প্রতিটিই যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়েছে। এদিকে পুরো ঘটনার অপব্যাখ্যা হচ্ছে হলেই দাবি পাপনের ম্যানেজারের। তিনি জানিয়েছেন, কোনরকম খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে এ কাজ করা হয়নি। তাই পাপনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকেও ভিডিওটি ডিলিটও করা হয়নি। এদিকে পাপনের মতো জনপ্রিয় গায়কের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অভিযোগে পাপনের ফ্যানস ক্লাবের পক্ষ থেকে পালটা অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

একই কথা জানিয়েছেন পাপনের আইনজীবীও। তার বক্তব্য অনুযায়ী, ‘ঘটনার জন্য মানসিকভাবে খুবই অশান্তিতে রয়েছেন পাপন। কোনও অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে এই কাজ করেননি তিনি।’ এদিকে ইউটিউবে একটি ভিডিওর মাধ্যমে মুখ খুলল সেই নাবালিকা প্রতিযোগী। সেই ভিডিওতে প্রতিযোগী সাফ জানিয়ে দেয়, ‘পাপন স্যার’ খারাপ কিছু করেননি।

মেয়েটি জানায়, ‘হোলির জন্য আমাদের স্পেশাল শুট হচ্ছিল। শুটের পরে আমরা অভিভাবকদের সঙ্গে নিয়ে পাপন স্যারের কাছে গিয়েছিলাম। তখন আমরা সবাই ফেসবুকে লাইভ এসেছিলাম আর সবাই খুব আনন্দ করছিলাম। সবাই দেখেছেন, পাপন স্যার খারাপ কিছুই করেননি। একটা বাচ্চাকে যেমন ভাবে চুমু খায়, পাপন স্যার তেমনই করেছিলেন। আমার মা-বাবাও এমন ভাবেই চুমু খায়। দয়া করে এর কোনও খারাপ মানে বের করবেন না।’

অসংখ্য জনপ্রিয় গানের গায়ক পাপনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দায়ের করা হলো গতকাল শুক্রবার। এই ঘটনা নিয়ে গতকাল গোটা ভারতীয় মিডিয়া ছিল তোলপাড়। সংবাদে প্রকাশ, শিশুদের রিয়েলিটি শো-তে এক নাবালিকাকে জোর করে চুমু খেয়েছেন আসামের জনপ্রিয় গায়ক পাপন। সেই রিয়েলিটি শোয়ের বিচারক তিনিই। গত মঙ্গলবার পাপন নিজের ফেসবুক পেজেই সেই শুটের ভিডিওটি লাইভ করেন। সেখানেই দেখা যায়, হাসি, গান, নাচ, মজা করতে করতে, আচমকাই পাপন এক নাবালিকা প্রতিযোগীকে রং মাখিয়ে তার ঠোঁটে চুম্বন করেন।