শিশু সুরক্ষা আইন ভঙ্গ করেছে ইউটিউব

শিশু সুরক্ষা আইন ভঙ্গ করেছে ইউটিউব 

যুক্তরাষ্ট্রে শিশুদের অনলাইন গোপনীয়তা রক্ষার যে প্রচলিত আইন রয়েছে তার কোন শর্ত ইউটিউব মানছে না বলে অভিযোগ করেছে দেশটির ভোক্তা অধিকার সংস্থাগুলো। এ নিয়ে সংস্থাগুলো দেশটির কেন্দ্রীয় বাণিজ্য পরিষদে মামলাও দায়ের করেছে। খবর বিবিসি বাংলা।


সংস্থাগুলোর অভিযোগ, বাবা মায়ের সম্মতি ছাড়াই শিশুদের অ্যাকাউন্ট খুলতে উৎসাহিত করছে ইউটিউব। অনেকে নার্সারি রাইম, কার্টুন, খেলনার বিজ্ঞাপনসহ আরও বিভিন্ন বিষয়ের ওপর আলাদা চ্যানেল খুলে বসেছে। ওই সব চ্যানেলে অসংলগ্ন ভিডিও লিংক চলে আসছে।

সংস্থাগুলো আরও অভিযোগ করে, শিশুদের কীভাবে ইউটিউবের প্রতি আকর্ষণ করা যায় সে সংক্রান্ত ভিডিও টিউটোরিয়ালেরও কোনো অভাব নেই। ফলে ১৩ বছরের কম বয়সী শিশুরা ঝুঁকে পড়ছে ইউটিউব ব্যবহারে। আর ইউটিউব এ সব শিশুদের তথ্য সংগ্রহ করছে।

আইনানুযায়ি, শিশুদের জন্য কোন ওয়েবসাইট চালাতে গেলে বিশেষ করে শিশুদের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহের আগে তাদের বাবা মায়ের অনুমোদন নিতে হয়। অথচ ইউটিউব কোন সম্মতি ছাড়াই শিশুদের অবস্থান, তাদের ব্রাউজিং অভ্যাস সবকিছু বিশ্লেষণ করছে।

অথচ গুগল এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, ইউটিউবে অ্যাকাউন্ট খুলতে হলে নূন্যতম ১৩ বছর বয়স হতে হবে।ইউটিউবের বিরুদ্ধে আইন লঙ্ঘনের অভিযোগের বিষয়ে গুগল কর্তৃপক্ষ জানায়, তারা প্রতিটি অভিযোগ মূল্যায়ন শেষে নিজেদের ভুল শুধরে আরও ভালো কিছু করার ওপর জোর দেবেন।

যুক্তরাষ্ট্রে শিশুদের অনলাইন গোপনীয়তা রক্ষার যে প্রচলিত আইন রয়েছে তার কোন শর্ত ইউটিউব মানছে না বলে অভিযোগ করেছে দেশটির ভোক্তা অধিকার সংস্থাগুলো। এ নিয়ে সংস্থাগুলো দেশটির কেন্দ্রীয় বাণিজ্য পরিষদে মামলাও দায়ের করেছে। খবর বিবিসি বাংলা।