৩০ হাজার বার্গার খেয়েও ‘ক্ষুধার্ত’


 

বার্গার খেতে পছন্দ করেন অনেকেই। তাই বলে ৩০ হাজার! হ্যাঁ, যুক্তরাষ্ট্রের এক ব্যক্তি নিয়মিত দুই বেলা বার্গার খেয়ে আসছেন গত ৪৬ বছর ধরে।


বার্গার-পাগল এই ব্যক্তির নাম ডন গোর্সকে, বয়স ৬৪। তিনি বাস করেন যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টকে তিনি জানান, গত ৪৬ বছর ধরে দিনে দুটো করে ম্যাকডোনাল্ডসের বিগ ম্যাক বার্গার খেয়ে আসছেন তিনি। চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পরও একই অভ্যাস বজায় রাখার সংকল্প তার।

অবসরপ্রাপ্ত এই কারারক্ষী বলেন, ‘৪০ হাজার বার্গার খাওয়ার লক্ষ্য আছে আমার, আর তা করতে আরও ১৪ বছর লাগবে।’

২০০৪ সালে গোর্সকে ‘সুপার সাইজ মি’ নামের এক তথ্যচিত্রে স্থান পেয়েছিলেন, কারণ প্রচুর ফ্যাটযুক্ত এসব বার্গারে রয়েছে ৫৬৩ ক্যালোরি। তবে গোর্সকে দাবি করেন, এসব বার্গার নিয়মিত খাবার পরেও তিনি পুরোপুরি সুস্থ।

গোর্সকে জানিয়েছেন, ১৯৭২ এর ১৭ মে থেকে প্রতিদিন তিনি অন্তত একটি করে বিগ ম্যাক বার্গার খেয়ে আসছেন। তা প্রমাণের জন্য প্রতিটি রিসিট যত্ন করে রেখে দিয়েছেন তিনি। ২০১৬ সালে ২৮,৭৮৮টি বার্গার খাওয়া হলে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম ওঠে তার।

বার্গার খাওয়ার ব্যাপারে নিয়ম মেনে চলেন গোর্সকে। তিনি প্রতি সোমবার ছয়টি বিগ ম্যাক কেনেন। এর মাঝে দুইটি তখনই খেয়ে নেনে, আর বাকি চারটি বাড়িতে ফ্রিজে রেখে দেন, প্রতিদিন বের করে মাইক্রোওয়েভে গরম করে খান। আবার বৃহস্পতিবারে আটটি বার্গার কিনে একই কাজের পুনরাবৃত্তি করেন।

গোর্সকে বার্গার বাদে অন্যকিছু কমই খান। তার খাদ্যভ্যাসের ৯০ শতাংশই হলো বার্গার। কেউ কেউ তার এই বার্গার-প্রীতিকে ‘অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার’ বলে ধারণা করেন। কিন্তু একে মানসিক সমস্যা বলে ভাবতে নারাজ গোর্সকে।

বার্গার খেতে পছন্দ করেন অনেকেই। তাই বলে ৩০ হাজার! হ্যাঁ, যুক্তরাষ্ট্রের এক ব্যক্তি নিয়মিত দুই বেলা বার্গার খেয়ে আসছেন গত ৪৬ বছর ধরে।