যেভাবে রাঁধলে পাঙ্গাস মাছে গন্ধ হবে না একটুও!

 

পাঙ্গাস মাছ অনেকেরই প্রিয় মাছ হলেও অনেকেই আবার খেতে চান না গন্ধের কারণে। তবে সঠিক রেসিপিতে রাঁধতে জানলে পাঙ্গাস মাছ অত্যন্ত সুস্বাদু ও উপাদেয় একটি মাছ। সুমনা সুমি আজ জানাচ্ছেন ঠিক সেই রেসিপিটি। এই রেসিপিতে পাঙ্গাস রান্না করা খুব সহজ, কিন্তু রাঁধার পর একটুও বাজে গন্ধ বা স্বাদ হবে না। একবার রান্না করে ২/৩ দিন ফ্রিজে রেখে খাওয়া যাবে, স্বাদটাও তাতে নষ্ট হবে না একটুও। পরিবেশন করতে পারবেন ভাত কিংবা পোলাওয়ের সাথে।


চলুন, জেনে নিই রেসিপিটি।

উপকরণ


    পাঙ্গাস মাছ ১০-১২ টুকরো (মাঝারি আকারে কাটা)
    তেল ১/২ কাপ
    পিঁয়াজ বাটা ১ কাপ
    আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ করে
    সরিষা বাটা ১ টেবিল চামচ
    হলুদের গুঁড়ো ১ চা চামচ
    লবণ স্বাদ মত
    লাল মরিচ গুড়ো ১ টেবিল চামচ
    টালা জিরা গুঁড়ো ১চা চামচ
    টালা ধনে গুঁড়ো ২ চা চামচ
    টমেটো কুচি ১ পিস
    কাঁচা মরিচ ২-৩ পিস
    ধনে পাতা ২ টেবিল চামচ

প্রনালি


    মাছের টূকরাগুলো লবণ দিয়ে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
    লবণ ও হালকা হলুদ মেখে ১/৪ কাপ তেলে হালকা করে ভেজে নিন।কড়া ভাজা যাবে না।
    একটি কড়াইয়ে বাকি তেল গরম করে পেঁয়াজ দিন। পেঁয়াজ একটু ভাজা হলে বাকি বাটা মশলা ও সরিষা দিন। এখন সব গুঁড়ো মশলা ও লবণ দিয়ে কষাতে থাকুন। তেল ছাড়লে ১/২ কাপ পানি দিন।
    আবার কিছুক্ষণ কষিয়ে ২ কাপ পানি দিন। পানি ফুটলে মাছের ভাজা টূকরোগুলো ও টমেটো মশলায় ছেড়ে দিন।মশলার পানি মাছের সমান সমান হবে।
    হালকা করে নেড়ে ঢেকে দিয়ে রান্না হতে দিন ২০ মিনিট। এ সময় চুলার আঁচ কম থাকবে। ধনেপাতা ও কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে দিন।
    ২ মিনিট পর চুলা বন্ধ করে ঢেকে রাখুন।গরম গরম ভাত বা পোলাওয়ের সাথে পরিবেশন করুন।

পাঙ্গাস মাছ অনেকেরই প্রিয় মাছ হলেও অনেকেই আবার খেতে চান না গন্ধের কারণে। তবে সঠিক রেসিপিতে রাঁধতে জানলে পাঙ্গাস মাছ অত্যন্ত সুস্বাদু ও উপাদেয় একটি মাছ। সুমনা সুমি আজ জানাচ্ছেন ঠিক সেই রেসিপিটি। এই রেসিপিতে পাঙ্গাস রান্না করা খুব সহজ, কিন্তু রাঁধার পর একটুও বাজে গন্ধ বা স্বাদ হবে না। একবার রান্না করে ২/৩ দিন ফ্রিজে রেখে খাওয়া যাবে, স্বাদটাও তাতে নষ্ট হবে না একটুও। পরিবেশন করতে পারবেন ভাত কিংবা পোলাওয়ের সাথে।